Barta24

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

ভালোবাসা সীমানাবিহীন

ভালোবাসা সীমানাবিহীন
সন্তান-পালনরত কুকুরের দিকে তাকিয়ে মনে পড়ল ভালোবাসা সীমানাবিহীন, ছবি: বার্তা২৪
ড. মাহফুজ পারভেজ
কন্ট্রিবিউটিং এডিটর
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ধানমন্ডির স্টার কাবাব থেকে শংকরের দিকে যেতে পশ্চিমের ফুটপাতে দিব্যি সংসার পেতে আছে সারমেয়টি। সঙ্গে আদরে-সোহাগে খেলা করছে তিন তিনটি শাবক। মাতৃস্নেহের অপত্য ঝর্ণাধারা বইছে চারপাশে।

'আহ! কি কিউট', বলতে বলতে পাশ দিয়ে হেঁটে গেল একদল তরুণী। মোড়েই অস্থায়ী দোকান চালান বরিশালের আবু হানিফ মিয়া। বললেন, 'বহু বছর ধরে কুকুরটি এখানে আছে। দিনে আশেপাশে থাকে আর রাত্রে পাহাড়াদারের কাজ করে।'

কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে দেখলাম প্রাণি জগতের ভালোবাসার খেলা। অপেক্ষার আরেকটি কারণ আছে। তা হলো, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের তরুণ অধ্যাপক মোহাম্মদ আলম চৌধুরীর একটি সন্দর্ভ। রাজনীতির শিক্ষক হলেও আলম চৌধুরী বিভিন্ন বিদ্যাচর্চা করেন। ইতিহাসপূর্ব কাল থেকে বর্তমান পর্যন্ত সভ্যতায় কুকুরে অসামান্য ভূমিকাকে চিত্রিত করেছেন তিনি। তিনি করেছেন, 'প্রায়ই যে আমরা কুকুরের বাচ্চা বলে গালি দিতে শুনি, সেটি ঘোরতর অন্যায়। কোনো কুকুরের ছানা কি গালি দেওয়ার মতো কোনো কাজ কখনো করেছে? কেন তাকে গালি দেওয়া হবে?'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Sep/14/1536941237804.jpg

আলম চৌধুরীর বক্তব্য যুক্তিনিষ্ঠ। শরীরে পানি ঢেলে দিলে বা লাঠি দিয়ে আঘাত করলে ক্ষিপ্ত হয়ে কুকুর প্রতিবাদ করে। আঘাতপ্রাপ্ত হলে কুকুর প্রতিবাদ করবেই। আক্রান্ত হলে প্রতিবাদ করা সকলেরই অধিকার। কুকুর নিজ থেকে অহেতুক কাউকে আক্রমণ করেনি। বরং ভক্তি ও বিশ্বস্ততার পরাকাষ্ঠা দেখিয়েছে।

আসলেই তো, নেকড়ে প্রজাতির সদস্য হয়েও হাজার বছর আগে কুকুর মানুষের সঙ্গী হয়ে জঙ্গল থেকে জনপদে চলে এসেছে। হাজার বছর ধরে ভালোবেসে রয়ে গেছে মানুষেরই সঙ্গে। আর জঙ্গলে ফিরে যায়নি কুকুর।

প্রতিটি ধর্মগ্রন্থে কুকুরের উল্লেখ আছে। কুকুর আছে নানা কাজের সঙ্গী হয়ে আমাদের আশেপাশে। আদর আর ভালোবাসাই তাদের প্রাপ্ত। শরত রাতের আলো-অন্ধকারের আবছায়ায় ধানমন্ডির কোলাহলহীন জনপদে সন্তান-পালনরত কুকুরের দিকে তাকিয়ে মনে পড়ল ভালোবাসা সীমানাবিহীন।

রূঢ় ও নিষ্ঠুর মানুষ এখনও ভালোবাসার দীক্ষা নিতে পারে তাদের কাছ থেকে। সেই শিক্ষায় প্রকৃত ভালোবাসার হৃদয় ছোঁয়া ঢেলে দিতে পারে স্বজন-পরিজন, প্রাণি ও উদ্ভিদ জগতে। অন্তরাত্মাকে প্রসারিত ও আলোকিত করতে পারে অসীমান্তিক ভালোবাসায়।

আপনার মতামত লিখুন :

কাঁঠাল রফতানির চিন্তা আছে: বাণিজ্যমন্ত্রী

কাঁঠাল রফতানির চিন্তা আছে: বাণিজ্যমন্ত্রী
বন্যার্তদের শুকনো খাবার বিতরণ করেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

এবছর সারাদেশে কাঁঠালের বাম্পার উৎপাদন হয়েছে। তাই দেশীয় চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি এ ফল বিদেশে রফতানির চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশ এখন খাদ্যে শস্যে স্বয়ংসম্পন্ন। এ দেশে কেউ খাবার অভাবে মরবে না। আমরা শুধু কৃষিতে, খাদ্য শস্যে নয়, ফলমূলেও স্বয়ং সম্পন্ন হয়েছি।’

শুক্রবার (১৯ জুলাই) দুপুরে রংপুরের বন্যা কবলিত পীরগাছা উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন। ছাওলা ইউনিয়ন পরিষদ উপজেলা প্রায় ছয় শতাধিক বন্যার্ত পরিবারের মাঝে ওষুধ ও শুকনা খাবার বিতরণ করা হয়।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বর্তমান সরকারের সময় কেউ না খেয়ে মারা যাবে না । প্রত্যেক মানুষকে সরকারিভাবে সাহায্য দেওয়া হবে । কোনো অভাবী, দরিদ্র, অসহায় মানুষ সরকারি সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে না।’

ত্রাণ বিতরণের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- পীরগাছা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহ মাহবুবার রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান আরিফুল হক লিটন, ছাওলা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হাকিম প্রমুখ।

ওই অনুষ্ঠান শেষে বিকেলে পীরগাছা উপজেলা পরিষদ চত্বরে তিন দিনব্যাপী ফলদ ও বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী। পরে উপজেলা পরিষদ হল রুমে মেলা উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগ সঠিক নয়: মার্কিন রাষ্ট্রদূত

সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগ সঠিক নয়: মার্কিন রাষ্ট্রদূত
মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার | বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম ফাইল ছবি

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশের হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক পরিচয়দানকারী প্রিয়া সাহা বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন বিষয়ে যে তথ্য দিয়েছেন তা সঠিক নয় বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার।

শুক্রবার (১৯ জুলাই) বিকেলে রাজধানীতে মেরুল বাড্ডায় মেরুল বাড্ডায় বৌদ্ধ মন্দিরে এক অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মিলার এ মন্তব্য করেন।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/19/1563553917440.jpg
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত সপ্তাহে ধর্মীয় স্বাধীনতা ও সহিঞ্ঝুতার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন ধর্মীয় নেতা ও প্রতিনিধিদের সঙ্গে তার অফিসে কথা বলেন। ওই অনুষ্ঠানে প্রিয়া সাহা ট্রাম্পের কাছে অভিযোগ করেন, বাংলাদেশে প্রায় ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান নিখোঁজ হয়েছেন। বর্তমানে এখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছে উল্লেখ করে তিনি ট্রাম্পের সহায়তা চান।

প্রিয়া সাহার এমন অভিযোগ সঠিক নয় মন্তব্য করেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার বলেন, বাংলাদেশের বিভিন্ন ধর্মীয় সম্প্রদায় একে অপরকে শ্রদ্ধা করে।

আরো পড়ুন: ট্রাম্পের কাছে উদ্ভট অভিযোগ, শাহরিয়ার আলমের নিন্দা

মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, আমার কাছে মনে হয়েছে, এখানকার ভিন্ন ভিন্ন বিশ্বাসের লোকজন একে অপরকে শ্রদ্ধা করে। তাই আমি মনে করি, তার অভিযোগ সঠিক নয়, বরং ধর্মীয় সম্প্রীতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশ একটি উল্লেখযোগ্য নাম।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র