Barta24

সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

English

‘না ফিরলে’ মারা যাবেন সানিয়া!

‘না ফিরলে’ মারা যাবেন সানিয়া!
সন্তানকে নিয়েই কেটে যাচ্ছে সানিয়ার সময়
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

জীবনটা পাল্টে গেছে সানিয়া মির্জার। গতবছরই মা হয়েছেন তিনি। অবশ্য টেনিস ছেড়েছেন তারও অনেক আগে, ২০১৭ সালের অক্টোবরে। লম্বা বিরতিতে হাঁপিয়ে উঠেছেন এই গ্ল্যামার গার্ল। ফের চেনা ভূবন টেনিস কোর্টে ফিরতে আর তর সইছে না সানিয়ার। কিন্তু হৃদয় চাইলেও শরীর এখনো প্রস্তুত নয়। তারপরও ভারতের এই তারকা জানিয়ে দিলেন তাকে ফিরতেই হবে।

সানিয়া মা হয়েছেন ২০১৮ সালের অক্টোবরে। এখন পুত্র সন্তানকে নিয়েই কাটছে সময়। তাকে ঘিরেই যতো ব্যস্ততা। সোশাল মিডিয়ায় সন্তানের সঙ্গে সময় কাটানোর স্থিরচিত্রও তুলে ধরছেন তিনি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/11/1549873759051.jpg

সময়টা বেশ ভালই কাটছে। কিন্তু তার মন পড়ে আছে টেনিস কোর্টে। কারণ অনেক দিন তো হলো। ২০১৭ সালের শেষ দেখা গেছে প্রতিযোগিতামূলক খেলায়। এরপরই ভুগেছেন চোটে। তারপর সন্তান জন্ম দিতে লম্বা ছুটিতে যান তিনি। তবে সানিয়া-শোয়েব মালিক দম্পতির সেই সন্তানের বয়স চার মাস পেরিয়ে গেল!

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/11/1549873774689.jpg

তাইতো ভক্তরাও নড়েচড়ে বসছেন। ফের কী কোর্টে দেখা যাবে তাকে? আবার কী উড়বেন সানিয়া?

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/11/1549873825409.jpg

এমন কতোশত প্রশ্নের মুখে এখন ভারতের সর্বকালের সেরা এই নারী টেনিস তারকা। স্বস্তির খবর হলো ফেরার লড়াই শুরু হয়ে গেছে তার। সানিয়া জানিয়ে দিলেন, ‘আমি জানি ৩২ বছর বয়সে টেনিসে ফেরাটা সহজ নয়। কিন্তু এটাও ঠিক না ফিরলে আমি মারা যাব।’ এখানেই শেষ নয়, সানিয়া জানালেন ট্রেনার নিয়ে দিন কয়েক পরই ওজন কমানো ও টেনিস-ট্রেনিং শুরু করবেন তিনি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/11/1549873934267.jpeg

আরেকটা খবর অবশ্য অনেকেরই জানা যে-সামনেই আসছে সানিয়া মির্জার বায়োপিক। তার জীবনের গল্প এবার উঠে আসবে বলিউডের সিনেমায়। তবে সানিয়ার চরিত্রে কে অভিনয় করবেন তা এখনো জানা যায়নি। খোদ তিনি নিজেই অভিনয়ে নাম লেখালেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না!

আপনার মতামত লিখুন :

জয়ের দেখা পেলেন না ল্যাম্পার্ড

জয়ের দেখা পেলেন না ল্যাম্পার্ড
চেলসির সঙ্গে সমান তালে লড়ল লেস্টার

আরও একটি ম্যাচে হতাশা নিয়েই ফিরতে হলো ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ডকে। কোচ হিসেবে নাম লিখিয়ে টানা দুই ম্যাচে জয় অধরা!  এবার ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লেস্টার সিটির সঙ্গেও পারল না চেলসি। রোববার রাতে স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ১-১ গোলে ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্লুজরা!

যদিও প্রথমে এগিয়ে গিয়েছিল ফেভারিটরাই। ব্যবধান গড়ে দেন চেলসির ম্যাসন মাউন্ড। কিন্তু এরপর সমতা ফেরান লেস্টার সিটির উইলফ্রেড এনডিডি।

নিজেদের মাঠে খেলার সাত মিনিটে লিড নেয় ল্যাম্পার্ডের দল। ম্যাসন মাউন্ট অসাধারণ দক্ষতায় এগিয়ে দেন দলকে। সমতায় ফিরতে বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়েছে লেস্টারকে। ৬৭তম মিনিটে নিশানা খুঁজে নেন এনডিডি।

এনিয়ে টানা দুই ম্যাচে জয়ের দেখা পেলো না চেলসি। এবারের প্রিমিয়ার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের কাছে ০-৪ গোলে হেরে শুরু। তারপর এই ড্র!  কোচ ল্যাম্পার্ডের মুখে হাসি নেই!

এদিকে নেইমারকে ছাড়া লিগ ওয়ানে খেলতে নেমে এবার হার দেখল প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি)। রোববার রাতে রেনের মাঠে ১-২ গোলে হেরেছে ফেভারিটরা।  ম্যাচের ৩৬তম মিনিটে ডি সিলভার পাস থেকে বল পেয়ে দলকে এগিয়ে দেন এদিনসন কাভানি। এরপর এমবায়ে নিয়াংয়ের গোলে ম্যাচে ফেরে রেনে।

এর আগে নিমকে ৩-০ গোলে হারিয়ে লিগ ওয়ানের পথচলা শুরু করে চ্যাম্পিয়ন পিএসজি।

নাটকীয়তা ছড়িয়ে লর্ডস টেস্ট ড্র

নাটকীয়তা ছড়িয়ে লর্ডস টেস্ট ড্র
১১৫ রানের অনবদ্য এক ইংনিস খেলেন বেন স্টোকস/ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

শেষ বিকালে লর্ডস টেস্টে নাটকীয়তার আবেশ ছড়ায়। ইংল্যান্ড ম্যাচ জেতার রঙিন স্বপ্নে বিভোর ছিলো। ১৩৮ রানে অস্ট্রেলিয়ার ৫ উইকেট তুলে নিয়ে শেষ সেশনে লর্ডস টেস্ট জেতার খুব কাছে পৌঁছে যায় ইংল্যান্ড। কিন্তু শেষের কয়েক ওভার ঠুকঠুক ভঙ্গিতে ব্যাট করে ম্যাচ ড্র রাখতে সমর্থ হয় অস্ট্রেলিয়া।

ঠিক যাকে বলে কানের পাশ দিয়ে গুলি চলে যাওয়া- সেভাবেই বাঁচলো অস্ট্রেলিয়া লর্ডস টেস্টে!

শেষদিন ম্যাচ জেতার জন্য অস্ট্রেলিয়াকে ২৬৭ রানের চ্যালেঞ্জ দেয় ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে ৫ উইকেটে ২৫৮ রান তুলে ডিক্লেয়ার্ড করে স্বাগতিকরা।

দিনের শেষ দুই সেশনে ৪৮ ওভারে ম্যাচ জিততে অস্ট্রেলিয়া পায় ২৬৭ রানের কঠিন টার্গেট। মাত্র দু’সেশনে এই রান তোলার চ্যালেঞ্জের পথে ছুটেনি অস্ট্রেলিয়া। তবে শুরুটা হয় তাদের ভীষণ বাজে। ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার লর্ডসের উভয় ইনিংসে ফিরলেন সিঙ্গেলস ডিজিটে। ওয়ানডাউনে ওসমান খাজা আর্চারের দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরলেন মাত্র ২ রান তুলে। দলের আরেক ওপেনার ক্যামেরন ব্যানক্রফটও ব্যর্থ ব্যাটসম্যানদের একজন। ১৬ রান করে ব্যানক্রফট যখন ফিরছেন অস্ট্রেলিয়ার স্কোরবোর্ডে রান তখন মাত্র ৪৭।

চা বিরতির আগে অস্ট্রেলিয়ার ক্ষতি আর বাড়েনি। ম্যাচের শেষ সেশনে অস্ট্রেলিয়ার মিডলঅর্ডারের দুই ব্যাটসম্যান মার্নাস লাবাসুঙ্গে ও ট্রাভিস হিড কিছুটা প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। চতুর্থ উইকেট জুটিতে অস্ট্রেলিয়া যোগ করে ৮৫ রান। এই জুটিই মূলত অস্ট্রেলিয়াকে ম্যাচ বাঁচানোর পুঁজির যোগাড় এনে দেয়।

দিনের খেলা শেষ হতে ১২ ওভার বাকি থাকার সময় ৫৯ রান করা মার্নাস লাবাসুঙ্গে ফিরলেন বিতর্কিত ক্যাচের এক সিদ্ধান্তে। জ্যাক লিচের বলে জোরালো সুইপ শট খেলেন লাবাসুঙ্গে। বল শর্টলেগে থাকা ফিল্ডারের শরীরে লেগে লেগ আম্পায়ারের দিকে যায়। সেখানে ফিল্ডিং করছিলেন অধিনায়ক জো রুট। ইংলিশ অধিনায়ক সামনে ঝাঁপিয়ে সেই ডিফ্লেকটেড ক্যাচটা নিলেন। ক্যাচটা মাটিতে পড়ে হাতে জমা হলো কিনা- সেই সিদ্ধান্ত জানতে টিভি আম্পায়ারের সহায়তা চাইলেন ফিল্ড আম্পায়ার। সফট সিগন্যাল দিলেন আউট। টিভি আম্পায়ার বেশ কয়েকবার রিপ্লে দেখে আউটের সিদ্ধান্ত জানালেন। তবে টিভি রিপ্লে’র এক পাশের ক্যামেরায় বোঝা গেলো বল মাটিতে আগে পড়েছে। তারপর হাতে জমা হয়েছে। কিন্তু আরেক পাশের ক্যামেরায়  বোঝা যাচ্ছিলো বৈধ ক্যাচই ধরেছেন জো রুট। এমন দোটানা পরিস্থিতিতে টিভি আম্পায়ার মার্নাস লাবাসুঙ্গেকে আউট ঘোষণা করলেন। এই আউটে বিস্মিত হয়ে নারাজি প্রকাশের ভঙ্গিতে মাথা নাড়তে নাড়তে ড্রেসিংরুমে ফিরলেন মার্নাস লাবাসুঙ্গে।

পরের দুই ব্যাটসম্যান ম্যাথু ওয়েড এবং অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক টিম পাইন দ্রুত ফিরে এলে অস্ট্রেলিয়া বড় বিপদে পড়ে। সেই সংকট কাটিয়ে দলের হার বাঁচিয়ে দেন ট্রাভিস হেড ও প্যাট কামিন্স।

ম্যাচের শেষ তিন বল বাকি থাকতে উভয় দল ড্র মেনে হ্যান্ডশেক করে। দারুণ কষ্টে লর্ডস টেস্ট ড্র রাখতে সমর্থ হয়ে অস্ট্রেলিয়া যেন হাঁফ ছেড়ে বাঁচলো।

অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংসে ৯২ রান করা স্টিভেন স্মিথ পেসার জোফরা আর্চারের বাউন্সারে আহত হয়ে পরে আর ব্যাট করতে পারেননি।

পাঁচ ম্যাচের সিরিজে অস্ট্রেলিয়া এজবাস্টনে প্রথম টেস্টে জিতে এগিয়ে আছে ১-০ তে। সিরিজের তৃতীয় টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে ২২ আগস্ট, লিডসে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ইংল্যান্ড ২৫৮ ও ২৫৮/৫ ( স্টোকস ১১৫)। অস্ট্রেলিয়া ২৫০ ও ১৫৮/৬। ফল: ম্যাচ ড্র।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র