Alexa
independent day 2019

পাকিস্তানও আমাদের মতো হতে চায়: জাফর ইকবাল

পাকিস্তানও আমাদের মতো হতে চায়: জাফর ইকবাল

ছবি: বার্তা২৪

ঢাবি করেসপনডেন্ট, বার্তা২৪.কম

লেখক ও শিক্ষাবিদ অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, ‘বাংলাদেশের অর্থনীতি অনেক এগিয়েছে। বাংলাদেশ এখন নিজের পায়ে দাঁড়িয়েছে। এখন পাকিস্তানও আমাদের মতো হতে চায়।’

শুক্রবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্জন হল লনে উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগ আয়োজিত ‘বাংলাদেশ বোটানি অলিম্পিয়াড-২০১৮, ঢাকা বিভাগের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন ।

জাফর ইকবাল বলেন, ‘একটা সময় ছিল যখন বাংলাদেশের কোনো অর্থনীতি ছিল না। কিন্তু আজ বাংলাদেশ এমন অবস্থানে এসেছে যে পৃথিবীর সমস্ত দেশ অবাক হয়ে তাকিয়ে থাকে কীভাবে এদেশ এত উন্নতি করেছে। আমাদের সময় এত সুযোগ ছিল না। তোমরা যারা কম্পিউটার সায়েন্স পড়তে পারনি, যারা উদ্ভিদবিদ্যায় পড়ছ, তোমাদের কোনো চিন্তার কারণ নেই। উদ্ভিদবিদ্যা একটি অভিজাত বিষয়। তোমাদের জন্য অসংখ্য সুযোগ রয়েছে।'

অলিম্পিয়াডে যোগ দিতে আসা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘তোমাদের হাতেই দেশ গড়ার দায়িত্ব। সুন্দরভাবে দেশটা গড়ে তোলার মাধ্যমে তোমরা তোমাদের দায়িত্ব পালন করবে। কিন্তু আমি উদ্বিগ্ন যে অনেক শিক্ষার্থীর পড়ালেখায় মনোযোগ নেই। এর কারণ স্মার্টফোন। প্রযুক্তি ভাল জিনিস। তবে আমরা প্রযুক্তি নিয়ন্ত্রণ করব, প্রযুক্তি আমাদের নয়।’

শিক্ষার্থীদের চিন্তা ও গবেষণা করতে উৎসাহিত করে জাফর ইকবাল বলেন, ‘চিন্তা কর, চিন্তা কর এবং চিন্তা কর। তাহলে ভাল গবেষক হতে পারবে। আর এজন্য প্রচুর বই পড়তে হবে এবং তা মাথায় কল্পনা করতে হবে।'

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. রাখহরি সরকার বলেন, ‘উদ্ভিদবিজ্ঞান একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ও সনাতন বিষয়। সারা বিশ্বব এ বিষয়ে গবেষণায় এগিয়ে গেলেও বাংলাদেশ কিছুটা পিছিয়ে আছে। এজন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে ব্যবহারিক শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। শিক্ষার্থীদের মাঝে এ বিষয়ে আগ্রহ তৈরি করা জরুরি।'

বোটানি অলিম্পিয়াড-২০১৮ ঢাকা বিভাগের আহ্বায়ক মোহাম্মদ মোজাদ্দেদী আলফেসানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন বাংলাদেশ বোটানি অলিম্পিয়াডের আহ্বায়ক অধ্যাপক ড. মো. জসীম উদ্দিন। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলাদেশ বিজ্ঞান জাদুঘরের সহকারী কিউরেটর মুমিনুর রশিদ।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রাখহরি সরকার, বাংলাদেশ বোটানিক্যাল সোসাইটির সভাপতি ড. এম এ গফুর ও মহাসচিব অধ্যাপক ড. মিহির লাল সাহা প্রমুখ।

সমাপনী অনুষ্ঠানের পর্বে অলিম্পিয়াডে ঢাকা বিভাগের চূড়ান্ত বাচাই পর্বে ২১টি কলেজের অর্ধসহস্রাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। এর আগে শিক্ষার্থীদের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিষয়ে আগ্রহ বাড়াতে দেশের মোট আটটি বিভাগের বিভিন্ন স্কুল-কলেজে ‘বোটানি অলিম্পিয়াড' এর আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ বোটানিক্যাল সোসাইটি ও জাতীয় বিজ্ঞান জাদুঘর যৌথভাবে এই আয়োজন করে।

ক্যাম্পাস এর আরও খবর