৩ হাজার প্রাণের বিনিময়ে ৫ লাখ প্রাণ!

ছবি: সংগৃহীত

‘সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ’ নামে চালানো হামলায় এশিয়ার তিন দেশে কমপক্ষে পাঁচ লাখ মানুষকে হত্যা করেছে মার্কিন সৈন্যরা।

সম্প্রতি ব্রাউন বিশ্ববিদ্যালয়য়ের ওয়াটসন ইন্সটিটিউটের একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। সেখানে ‘নাইন ইলেভেনের’ পর মার্কিন সৈন্যদের বর্বরতায় পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও ইরাকে অর্ধ-মিলিয়ন মানুষ হত্যার বিষয়টি তুলে ধরা হয়।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, ‘কোন যুদ্ধের নিহতের প্রকৃত সংখ্যা বের করা যায় না। কিন্তু আমরা এই যুদ্ধের নিহতের সংখ্যা মোটামুটি নিশ্চিত হতে পেরেছি চার লাখ ৮০ হাজার থেকে পাঁচ লাখ সাত হাজারের মত এ যুদ্ধে নিহত হয়েছে।’

২০০১ সালে টুইন টাওয়ারে সন্ত্রাসীরা হামলা করে। এ হামলায় প্রায় তিন হাজার মার্কিন নাগরিক নিহত হয়। সেপ্টেম্বরের ১১ তারিখে এ হামলা ঘটেছে বিধায় ‘নাইন ইলেভেন’ নামেও এই হামলা বিশ্ব দরবারে পরিচিত।

এ হামলাকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে বিশ্বের অন্যতম ক্ষমতাধর দেশটি। আর এই সন্ত্রাস দমন হামলা যেন কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে আফগানিস্তান, পাকিস্তান ও ইরাকের সাধারণ মানুষের উপর।

এ সন্ত্রাস বিরোধী যুদ্ধে সাধারণ জনগণ, সশস্ত্র যোদ্ধা, প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্য, নিরাপত্তা কর্মী ও মার্কিন সেনা মিলিয়ে সর্বমোট ৫ লাখের মত মানুষ নিহত হয়েছে। এ পাঁচ লাখের মধ্যে মার্কিন সেনা নিহত হয়েছে মাত্র সাত হাজার। তবে অনেক সাধারণ জনগণ যুদ্ধের পাশ্ববর্তী প্রতিক্রিয়ায় মারা গিয়েছে।

১৭ বছরের এ যুদ্ধে পাঁচ লাখের বেশি মানুষ মারা গেলেও এ যুদ্ধে হাত পা হারানো ও মারাত্তক রোগে আক্রান্ত হওয়া অনেক মানুষ এখনো এর ফল ভোগ করছে।

আন্তর্জাতিক এর আরও খবর