মামলার ঘরে এরশাদের পর শেখ হাসিনা

ছবি: বার্তা২৪.কম

স্বৈরশাসনের অপরাধে ১৯৯০ সালে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর থেকে একে একে ৩৩টি মামলায় নাম বসেছে হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের। সাবেক এই সেনাপ্রধানের মামলার দীর্ঘ লাইনের পরই রয়েছে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম। তার বিরুদ্ধেও বিভিন্ন সময়ে ১৬টি মামলা হয়েছিল। রংপুরের রিটার্নিং কর্মকর্তাকে দেয়া হলফনামা থেকে এমন তথ্য মিলেছে।

রংপুর-৩ (সদর ও সিটি করপোরেশন) আসনে হেভিওয়েট প্রার্থী জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের দায়েরকৃত হলফনামার তথ্য মতে, নব্বইয়ের পর থেকে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে ৩৩টি মামলা হয়েছে। এসবের মধ্যে ১৩টিতে খালাস পেয়েছেন তিনি। এছাড়া স্থগিত হয়েছে ৪টি, চূড়ান্ত রিপোর্ট ৪টি। অব্যাহতি মিলেছে ৬টি মামলায় এবং নিষ্পত্তি হয়েছে তিনটিতে। বাকি তিনটির মধ্যে ১টি প্রত্যাহার হলেও এখনো বিচারাধীন রয়েছে ২টি মামলা।

অন্যদিকে রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনে মনোনয়নপত্রের সঙ্গে জমা দেয়া হলফনামায় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৬টি মামলার বিবরণ উল্লেখ করেছেন। তার বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া ১৬টি মামলার মধ্যে ১২টিতে অব্যাহতি পেয়েছেন। বাকি চারটির মধ্যে তিনটি চূড়ান্ত প্রতিবেদন ও ১টি খারিজ হয়েছে। বর্তমানে শেখ হাসিনার নামে কোনো মামলা নেই।

এদিকে রংপুর-১ (গঙ্গাচড়া ও আংশিক সিটি) আসনে বিএনপির প্রার্থী হওয়ার অপেক্ষায় থাকা রইচ আহম্মেদের বিরুদ্ধে ১২টি মামলা চলমান রয়েছে। রংপুর-২ (বদরগঞ্জ ও তারাগঞ্জ) আসনে বিএনপির চূড়ান্ত মনোনয়নের আশায় থাকা অ্যাডভোকেট মাহফুজ-উন-নবী চৌধুরী ডনের চলমান মামলা ৯টি ও জাসদের কুমারেশ চন্দ্র রায় তার ২টি মামলা খালাসের তথ্য দিয়েছেন।

রংপুর-৩ (সদর ও সিটি করপোরেশন) আসনে বিএনপির চূড়ান্ত মনোনয়ন প্রত্যাশী মোজাফ্ফর হোসেনের নামে ২টি মামলা চলমান রয়েছে। স্বতন্ত্র প্রার্থী তৌহিদুর রহমান মণ্ডলের নামে রয়েছে ৩টি মামলা। এছাড়া রংপুর-৪ (পীরগাছা ও কাউনিয়া) আসনে বিএনপির মনোনয়নপ্রাপ্ত এমদাদুল হক ভরসার নামে হওয়া ২টি মামলার ১টি নিষ্পত্তি হলেও চলমান আরেকটি। জাতীয় পার্টির মোস্তফা সেলিম বেঙ্গলের নামে একটি মামলা ছিল, যা নিষ্পত্তি হয়েছে। সাদেক আলীর নামে ৩টি মামলা চলমান।

রংপুর-৫ (মিঠাপুকুর) আসনে মমিনুল ইসলামের নামে একটি মামলা থাকলেও সেটি চলমান রয়েছে। এছাড়া রংপুর-৬ এ হুমায়ন ইজাজ লেভিনের ৩টি মামলার মধ্যে নিষ্পত্তি হয়েছে দুইটি। বিএনপি মনোনীত প্রার্থী সাইফুল ইসলামের সাতটি মামলার মধ্যে ৪টি নিষ্পত্তি হয়েছে।

উল্লেখ্য, শ্বশুরবাড়ি এলাকা রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসন থেকে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচন করার কথা ছিল। কিন্তু গত ৬ ডিসেম্বর গণভবনে পীরগঞ্জের জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করে ওই আসনটি বর্তমান এমপি ও জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে ছেড়ে দিয়েছেন তিনি। এবার এ আসনে প্রধানমন্ত্রীর মেয়ের মতো শিরীন শারমিন চৌধুরীই নৌকার পাল তুলবেন।

নির্বাচন এর আরও খবর

//election count down //sticky sidebar