চবি প্রক্টরের পদত্যাগ দাবি ছাত্রদলের

ছবি: সংগৃহীত

পক্ষপাতিত্ব, দায়িত্বে অবহেলা ও ছাত্র নির্যাতনের সহায়তাকারী দাবি করে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়েরর (চবি) প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরীর পদত্যাগ চেয়েছে ছাত্রদল। 

শনিবার (৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় গণমাধ্যমে পাঠানো শাখা ছাত্রদলের সহ-দপ্তর সম্পাদক আইনুল হোসেন সাগরের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানানো হয়।

বিবৃতিতে জানানো হয়, ৬ ডিসেম্বর দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী ও শাখা ছাত্রদলের যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক তালিমুল সায়েমকে পরীক্ষার হল থেকে বের করে অমানুষিক নির্যাতন করে ছাত্রলীগ।

এরপর তাকে অপহরণ করে প্রক্টরের কার্যালয়ে নিয়ে প্রক্টরের উপস্থিতিতে ফের মারধর করে। মারধরের এক পর্যায়ে তাকে দিয়ে খালেদা জিয়াসহ শাখা ছাত্রদলের নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ লিখিত ষড়যন্ত্রমূলক পত্র পড়তে বাধ্য করে। যা ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হয়।

ঐ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন শিক্ষক ও ছাত্রদলের নেতারা সায়েমকে উদ্ধারের জন্য প্রক্টরকে অনুরোধ করেন।

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, প্রক্টর দুর্ভাগ্যজনকভাবে ছাত্রলীগের পক্ষাবলম্বন করে সায়েমকে প্রক্টর অফিসে নির্যাতনের সুযোগ করে দেন। তাকে চিকিৎসা না দিয়ে হাটহাজারী উপজেলার মীরের হাট এলাকার পূর্বের একটি গায়েবী বিস্ফোরক মামলায় গ্রেফতার করতে পুলিশকে নির্দেশ দেন।

এ ঘটনায় প্রক্টরের পদত্যাগ এবং ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের বিচার দাবি করে ছাত্রদল। অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশের দায়ভার প্রশাসনকে নিতে হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরীর বার্তা২৪কে বলেন, ‘ঘটনার দিন আমিসহ কোনো সহকারী প্রক্টর অফিসে ছিলাম না। এক শিক্ষকের মাধ্যমে জানতে পেরে তাৎক্ষণিকভাবে তাকে উদ্ধার করি। সে পরীক্ষার হল থেকে বের হওয়ার পর কিছু ছাত্র তাকে মারধরের খবর শুনলে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়।’

ক্যাম্পাস এর আরও খবর

//election count down