Alexa

সংলাপ নয়, শুভেচ্ছা বিনিময় হবে: কাদের

সংলাপ নয়, শুভেচ্ছা বিনিময় হবে: কাদের

অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদেরসহ দলীয় নেতাকর্মীরা, ছবি: বার্তা২৪

সংলাপ নয়, শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য নির্বাচনে অংশ নেওয়া দলগুলোকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে আমন্ত্রণ জানাতে চান বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেছেন, 'নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোন বিষয় নেই। যে নির্বাচন নিয়ে গণতান্ত্রিক বিশ্বে কোন সংশয় নেই। গণতান্ত্রিক বিশ্বের কোন প্রশ্ন নেই সেখানে সংলাপের প্রশ্ন হাস্যকর।'

সোমবার (১৪ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর গুলিস্তানে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ১৯ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের বিশাল বিজয় সমাবেশ উপলক্ষে বর্ধিত সভাটি আয়োজন করা হয়।

কাদের বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের আগে সবকয়টি রাজনৈতিক দলকে গণভবনে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। বিএনপি ঐক্যফ্রন্টসহ ৭৫টা দল তখন সংলাপে অংশ নিয়েছিল। তাদের সঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য তাদের আমন্ত্রণ জানাতে চান প্রধানমন্ত্রী। এখানে কোন সংলাপের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি না। সংলাপ নয়, শুভেচ্ছা বিনিময় হবে।'

বিজয় সমাবেশের কথা তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, 'বিশাল বিজয় বিশাল দায়িত্ব। বিজয়ী দলের অনেক দায়িত্ব। তাই জনদুর্ভোগকে মাথায় রাখতে হবে। মহা বিজয়ে কেউ যেন মহা দাপট দেখাতে না যান। এ মহা বিজয় থেকে জনগণের কাছে আরও বিনয়ী হবেন। তাতে আমাদের ক্ষতি নেই।'

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/14/1547465081000.gif

সমাবেশকে কেন্দ্র করে কিছুটা জনদুর্ভোগ হবে জানিয়ে আগাম দুঃখ প্রকাশ করেন সেতুমন্ত্রী।

দল সরকার চালাবে,সরকার দল চালাবে না মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, 'আমাদের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ সরকারের মধ্যে যেন দল হারিয়ে না যায় এটা আমাদের মনে রাখতে হবে। দলের সত্ত্বা যেন সরকারে বিলীন হয়ে না যায়। কেননা দল সরকারের উপরে।'

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, 'যতই আমরা ঐক্যবদ্ধ হই আমি জানি ভেতরে কিছু দুর্বলতা আছে। সাংগঠনিক কিছু দুর্বলতা আছে। এ মহানগরীতে আছে। সারা দেশেও আছে। এ বিজয়কে যদি সংহত করতে চাই তাহলে আমাদের দল গোছাতে হবে।'

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধির উপর জোর দিয়ে তিনি আরও বলেন, 'আওয়ামী লীগের ভবিষ্যৎ বিজয় যদি আপনারা চান তাহলে আপনাদের দলের ভেতরের সমস্যা আগে ঠিক করতে হবে। এই সমস্যাগুলো অনতিক্রম্য নয়, অতিক্রম্য। আপনারাই সেটা পারেন।'

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজী আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, শিক্ষামন্ত্রী ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মণি, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নৌ প্রতিমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, শিক্ষা উপমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর, সভাপতি নুরুল আমিন রুহুলসহ আরও অনেকে।

আপনার মতামত লিখুন :