Barta24

শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

English

হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় ডুবল পাকিস্তান

হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় ডুবল পাকিস্তান
প্রোটিয়া বোলারদের সামনে দাঁড়াতে পারল না পাকিস্তান
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

কোন প্রতিরোধই গড়তে পারল না সরফরাজ আহমেদের দল। আগের দুই টেস্টে হেরে সিরিজ জেতার সম্ভাবনা শেষ হয়েছিল আগেই। জোহানেসবার্গে ছিল হোয়াইটওয়াশ এড়ানোর লড়াই। কিন্তু সেই আগের মতোই ব্যর্থতা সঙ্গী সফরকারীদের। জোহানেসবার্গে সোমবার হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় ডুবেছে পাকিস্তান।

সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্টটি ১০৭ রানে জিতল দক্ষিণ আফ্রিকা। সব মিলিয়ে ৩-০ ব্যবধানে টেস্ট সিরিজ জিতে নিয়েছে প্রোটিয়ারা।

অবশ্য জোহানেসবার্গে শুরুটাই বাজে ছিল পাকিস্তানের। এরপর আর ঘুরে দাঁড়ানো হয়নি। দক্ষিণ আফ্রিকা ১ম ইনিংসে ২৬২ রান তুললেও সফরকারীরা অলআউট ১৮৫ রানে। তারপর স্বাগতিকরা তুলে ৩০৩। জিততে সরফরাজদের সামনে দাঁড়ায় ৩৮১ রানের বড় লক্ষ্য। অবশ্য সেই চ্যালেঞ্জে বেশ ভালই লড়ছিল। ৩ উইকেটে ১৫৩ রান তুলে জবাব দিচ্ছিল পাকিস্তান। কিন্তু কে জানতো সেই ইনিংসটাই শেষ হয়ে যাবে ২৭৩ রানে!

বড় লক্ষ্যের সামনে টেস্ট ড্রয়ের সুযোগ ছিল না। কারণ হাতে ছিল দুই দিন। সোমবার চতুর্থ দিনে এ কারণেই আক্রমনাত্মক ক্রিকেটই বেছে নেয় সরফরাজ আহমেদের দল। আসাদ শফিক ৪৮ ও বাবর আজম ১৭ রান নিয়ে শুরু করেন। কিন্তু দিনের শুরুতেই বাবর আজমকে (২১) সাজঘরের পথ দেখিয়ে দেন ডোয়াইন অলিভিয়ের। এরপরই সরফরাজ আহমেদকে (০) তিনিই বিদায় করলে মহা বিপর্যয়ে পড়ে পাকিস্তান।

সেই ধাক্কা আর সামলে উঠা হয়নি। এর মধ্যে আসাদ শফিক তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। তিনি শুধু হারের ব্যবধানটাই কমাতে পেরেছেন। শেষ অব্দি ৬৫ রানে ফিরেন আসাদ। তারপর সাত নম্বরে নেমে যা একটু লড়লেন শাদাব খান। অন্য প্রান্তে নিয়মিত উইকেট হারিয়েছে সফরকারীরা। ১১০ বলে ৪৭ রানে অপরাজিত ছিলেন শাদাব।

দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে তিনটি করে উইকেট শিকার করেছেন ভারনন ফিলেন্ডার ও ডোয়াইন অলিভিয়ের। ডেল স্টেইনের শিকার দুই উইকেট। তিন ম্যাচ সিরিজে দুর্দান্ত বোলিং করে সিরিজসেরা অলিভিয়ের। সেঞ্চুরিয়ান কুইন্টন ডি ককের জোহানেসবার্গ টেস্টের ম্যাচসেরা।

সোমবার পাকিস্তানকে হোয়াইটওয়াশ করে সুখবরই পেল দক্ষিণ আফ্রিকা। টেস্ট র‌্যাংকিংয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে প্রোটিয়ারা। সাতে নেমে গেল পাকিস্তান।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

দক্ষিণ আফ্রিকা ১ম ইনিস: ২৬২/১০
পাকিস্তান ১ম ইনিংস: ১৮৫/১০
দক্ষিণ আফ্রিকা ২য় ইনিংস: ৩০৩/১০
পাকিস্তান ২য় ইনিংস: ৬৫.৪ ওভারে ২৭৩/১০ (শফিক ৬৫, আজম ২১, সরফরাজ ০, শাদাব ৪৭*, আশরাফ ১৫, আমির ৪, হাসান ২২, আব্বাস ৯; স্টেইন ২/৮০, ফিল্যান্ডার ১/৪১, অলিভিয়ের ৩/৭৪, রাবাদা ৩/৭৫)
ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ১০৭ রানে জয়ী
সিরিজ: তিন ম্যাচের সিরিজে ৩-০ ব্যবধানে জয়ী দক্ষিণ আফ্রিকা
ম্যাচসেরা: কুইন্টন ডি কক
সিরিজসেরা: ডোয়াইন অলিভিয়ের

আপনার মতামত লিখুন :

টানা তিন ম্যাচে হারল বাংলাদেশের মেয়েরা

টানা তিন ম্যাচে হারল বাংলাদেশের মেয়েরা
বল দখলেও পিছিয়ে থাকল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ২১ নারী দল

সেই একই গল্প! হারের বৃত্তেই বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ২১ নারী হকি দল। তবে আগের দুই ম্যাচে ৬টি করে গোল হজম করলেও এবার কিছুটা উন্নতিও হয়েছে। ভারতের সাই ন্যাশনাল হকি একাডেমি নারী দল সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে তুলে নিয়েছে ৩-০ গোলের জয়।

রাজধানীর মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামে শুক্রবার বাংলাদেশের মেয়েরা প্রথমার্ধ শেষ করে ০-২ গোলে পিছিয়ে থেকে। এরপর তৃতীয় কোয়ার্টারে আরেকটি গোল হজম করে। স্বস্তি এটাই এবার কম গোল হজম করেছে তারা।

ম্যাচে ভারতীয় দলটির হয়ে গোল তিনটি করেন সাক্ষী, লালওয়ান পুই ও লালরুতাফেলি মেসাবি।

৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হবে ওমেন্স জুনিয়র এএইচএফ কাপ। এই লড়াইয়ের আগে ঘরের মাঠে প্রস্তুতি পর্বে ভারতের সাই জাতীয় হকি একাডেমির নারী দলের সঙ্গে লড়ছে মেয়েরা। ৬ ম্যাচের সিরিজ খেলছে দুই দল।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/23/1566577980346.jpg

শুক্রবার ম্যাচের আগে দুই দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে সৌজন্য স্বাক্ষাৎ করেন বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত বিবিপি, ওএসপি, এনডিইউ, পিএসসি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের সচিব ড. মোহাম্মদ জাফর উদ্দীন, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ওয়াসেক মোহাম্মদ আলী, গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের সিনিয়র কনসালটেন্ট এ এস এ মুইজ ও ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ইকবাল বিন আনোয়ার ডন।

সিরিজের শেষ তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ২৫, ২৬ ও ২৭ আগস্ট।

তাই বলে ইংল্যান্ড ৬৭ রানে অলআউট?

তাই বলে ইংল্যান্ড ৬৭ রানে অলআউট?
জশ হেইজেলউড তুলে নেন ৫ উইকেট

হেডিংলিতে রীতিমতো দুঃস্বপ্ন সঙ্গী হয়েছে ইংল্যান্ডের। অথচ উইকেটে তেমন রহস্য ছিল কোথায়? দিনের আলোতে ঠিকঠাক খেলতে পারলে ঠিকই আরও কিছুটা সময় উইকেটে কাটিয়ে দিতে পারতেন ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু রোদ ঝলমলে দিনেই দেখা মিলল অস্ট্রেলিয়ার দুর্দান্ত বোলিং। কিন্তু তাই বলে মাত্র ৬৭ রানে অলআউট? হিসাবটা ঠিক মিলছে না!

অথচ এর আগে অজিদের ১৭৯ রানে অলআউট করে হাসিমুখে সাজঘরে ফিরেছিল ইংলিশরা। কিন্তু এরপর ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় সর্বনাশ। সব মিলিয়ে  অ্যাশেজের তৃতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে অস্ট্রেলিয়ার লিড ১১২ রান।

হেডিংলি টেস্টে বেশ দাপটই ছিল ইংল্যান্ডের। নিজেদের মাঠে বোলারদের ম্যাজিকে অজিদের চেপে ধরেছিল তারা। কিন্তু সেই হাসিমুখটা শেখ অব্দি থাকল না। কারণ শুক্রবার একশ রানের আগেই যে শেষ তাদের প্রথম ইনিংস। আরেকটু হলে অজিদের বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসের সর্বনিম্ম রানের লজ্জায় পড়তে যাচ্ছিল তারা।

১৯৪৮ সালে ওভালে মাত্র ৫২ রানে অলআউট হয়েছিল ইংল্যান্ড। যা কীনা টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে তাদের সর্বনিম্ন ইনিংস। এবার ২৭.৫ ওভার খেলে দল তুলল ৬৭ রান। বিস্ময়কর হলেও সত্য দুই অঙ্ক ছুঁয়েছেন শুধু জো ডেনলি (১২)।

সেই দুঃস্বপ্নের পথেই যাত্রা হয়েছিল ইংলিশদের। জশ হেইজেলউড বোলিং তোপে তছনছ ব্যাটিং লাইন আপ। এই পেসার শিকার করেন ৫ উইকেট। গতির ঝড় তুলে কম যান নি প্যাট কামিন্সও। তিনি নেন ৩ উইকেট। দুটি উইকেট শিকার করেন জেমস প্যাটিনসন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ১৭৯/১০
ইংল্যান্ড ১ম ইনিংস: ২৭.৫ ওভারে ৬৭/১০ (বার্নস ৯, রয় ৯, রুট ০, ডেনলি ১২, স্টোকস ৮, বেয়ারস্টো ৪, বাটলার ৫, ওকস ৫, আর্চার ৭, ব্রড ৪*, লিচ ১; কামিন্স ৩/২৩, হেইজেলউড ৫/৩০, প্যাটিনসন ২/৯)।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র