জরাজীর্ণ ভবনে চলছে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাঠদান

এই জরাজীর্ণ ভবনটিতেই চলছে ২৯০ জন শিক্ষার্থীর পাঠদান, ছবি: বার্তা২৪

মাজেদুল হক মানিক, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, মেহেরপুর, বার্তা২৪.কম

জারজীর্ণ ভবনেই চলছে মেহেরপুরের গাংনীর ভোমরদহ-ধর্মচাকী (বিডি) মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রম। গ্রামাঞ্চলে শিক্ষার আলো ছড়ানোর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা প্রতিষ্ঠানটি এখনো এমপিওভুক্তি হয়নি। নতুন ভবন না হওয়ায় পুরাতন জরাজীর্ণ ভবনই এ স্কুলের একমাত্র ভরসা।

জানা গেছে, ২০০১ সালে ধর্মচাকী ও ভোমরদহ দুই গ্রামের মধ্যবর্তী স্থানে বিদ্যালয়টি স্থাপন করেন ধর্মচাকী গ্রামের এখলাছুর রহমানসহ এলাকার কিছু শিক্ষানুরাগী। এখলাছুর রহমান প্রধান শিক্ষক হিসেবে রয়েছেন। বিদ্যালয়টিতে বর্তমানে ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা ২৯০ জন। শিক্ষক ও কর্মচারী মিলে ১৮ জন। শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত স্থানীয় বিভিন্ন ব্যক্তির আর্থিক সহায়তায় নির্মাণ করা হয় একটি আধাপাকা ভবন। কক্ষ রয়েছে ৮টি। যার ছাউনি বাঁশ ও টিনের। দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের জন্য সরকারি কোন প্রতিষ্ঠানের আর্থিক সহায়তা না পাওয়ায় বিদ্যালয় ভবনটি জরাজীর্ণ হয়ে পড়েছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/14/1550117552770.jpg

প্রধান শিক্ষক এখলাছুর রহমান বলেন, 'ছাউনির টিন গত বছর কালবৈশাখী ঝড়ে ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ভেঙেচুরে যাওয়া টিন মেরামত ও শিক্ষকদের পকেটের টাকায় ছাউনি তোলা হয়। কিন্তু নিচ থেকেই আসমান দেখা যায়। রোদ ও বৃষ্টি উপেক্ষা করে ছাত্রছাত্রীরা শ্রেণি কক্ষে পাঠগ্রহণ করে। শিক্ষকদের জন্যও কোন নির্দিষ্ট কক্ষ নেই। মেয়েদের জন্য নেই কমন রুম। স্বল্প ভবন সুবিধা নিয়েই আমরা লেখাপড়া চালিয়ে যাচ্ছি। এখনো পর্যন্ত কোন শিক্ষক ও প্রতিষ্ঠানটি এমপিওভুক্ত হয়নি। দীর্ঘ এই সময় ধরে আমরা মানবেতর জীবন যাপন করলেও পাঠদানে ভাটা পড়েনি।'

জানা গেছে, প্রতিষ্ঠানটি এলাকার মধ্যে লেখাপড়ার মানের দিক থেকে অন্যতম। এখানে বেশিরভাগ ছাত্রছাত্রী দরিদ্র পরিবারের। ফলে নামকাওয়াস্তে বেতন দিয়েই তারা লেখাপড়া করে। এতে শিক্ষকদের পারিশ্রমিকতাতো দূরের কথা প্রতিষ্ঠান পরিচালনার খরচই চলে না।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/14/1550117609994.jpg

প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা গেছে, বিগত তিন বছরে জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষায় শতভাগ উত্তীর্ণ হয় বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে। এছাড়াও উপজেলা পর্যায়ে খেলাধুলা ও অন্যান্য প্রতিযোগিতায় উল্লেখযোগ্য সফলতা অর্জন করে এই বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। সম্প্রতি সম্পন্ন হওয়ায় উপজেলা পর্যায়ের জাতীয় সঙ্গীত প্রতিযোগিতায় বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয় দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে।

এতো কিছুর পরেও প্রতিষ্ঠানটির ভবন ও এমপিও না হওয়ায় শিক্ষক ও এলাকাবাসীর মাঝে কষ্টের সীমা নেই। তাই অবহেলিত এই প্রতিষ্ঠানটির ভবন সংস্কারসহ প্রয়োজনীয় উন্নয়ন করার জন্য জেলা পরিষদ, জেলা প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকল দফতরের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী, অভিভাবক, পরিচালনা পর্ষদ ও এলাকার শিক্ষানুরাগীরা।

তবে প্রতিষ্ঠানটির ভবন সংস্কারের বিষয়ে নজর দেবেন বলে জানালেন মেহেরপুর জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গোলাম রসুল ও গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিষ্ণুপদ পাল।

জেলা এর আরও খবর