Barta24

মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাইলেন ফেরদৌস

ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চাইলেন ফেরদৌস
ফেরদৌস আহমেদ
বিনোদন ডেস্ক


  • Font increase
  • Font Decrease

অভিনয়ের কাজে ওয়ার্কিং ভিসা নিয়ে ভারতে গিয়ে দেশটির চলমান লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রচারণায় অংশগ্রহণের অভিযোগে বাংলাদেশি অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদের ভিসা বাতিল করা হয়। বাংলাদেশ হাইকমিশনের নির্দেশের পর মঙ্গলবার (১৬ এপ্রিল) দেশে ফিরেছেন ফেরদৌস। এই ঘটনায় দুই বাংলায় তুমুল সমলোচনার মুখে পড়েছেন এই জনপ্রিয় অভিনেতা। বিষয়টি নিয়ে ক’দিন চুপ থাকলেও এবার মুখ খুললেন তিনি। চাইলেন ক্ষমাও।

ক্ষমা চেয়ে ফেরদৌস বলেন- আমি চিত্রনায়ক ফেরদৌস। অভিনয় শিল্প আমার একমাত্র নেশা ও পেশা। অভিনয় শিল্পের মাধ্যমে বাংলা ভাষাভাষী সকলের মধ্যে মেলবন্ধন তৈরিতে সর্বদা কাজ করার চেষ্টা করেছি। আমার ভাবতে ভাল লাগে আমি দুই বাংলায় সমানভাবে জনপ্রিয়। দুই বঙ্গের মানুষের সংস্কৃতি ও জীবনাচারে অনেক সাদৃশ্য রয়েছে। আবার ভারত বহু কৃষ্টি-কালচারের সমন্বয়ে সমৃদ্ধ একটি দেশ। ১৯৭১ সালে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধে প্রতিবেশী দেশ হিসাবে ভারতের অবদান আমরা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করি। পাশাপাশি ভারতের জনগণের ত্যাগ-তিতিক্ষা আমাদের চিরঋণী করে রেখেছে। পশ্চিমবঙ্গের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সাথে আমার সম্পর্ক বহুদিনের। এখানের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের অনেক শিল্পী, সাহিত্যিক আমার বন্ধু। যাদের সাথে আমি সবসময়ে হৃদ্যতা অনুভব করি। এজন্য বিভিন্ন সময় কারণে অকারণে আমি এখানে চলে আসি।

ভারতে জাতীয় নির্বাচন হচ্ছে। বিশ্বের সর্ববৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশের এই নির্বাচন পূর্বের মতো সারা বিশ্বে সাড়া ফেলেছে। এই সময়ে আমি ভারতে অবস্থান করছিলাম। সকলের মতো আমারও আগ্রহের জায়াগায় ছিল এই নির্বাচন। ফলে ভাবাবাগে তাড়িত হয়ে পশ্চিমবঙ্গের একটি নির্বাচনী প্রচারণায় আমি আমার সহকর্মীদের সাথে অংশগ্রহণ করি। এটা পূর্বপরিকল্পনার কোন অংশ ছিল না। শুধুমাত্র আবেগের বশবর্তী হয়ে আমি অংশগ্রহণ করেছি। কারো প্রতি বিশেষ আনুগত্য প্রদর্শন বা কোন বিশেষ দলের প্রচারণার লক্ষ্যে নয়, আবার কারো প্রতি অসম্মান প্রদর্শন করাও আমার উদ্দেশ্য নয়। ভারতের সকল রাজনৈতিক দল এবং নেতার প্রতি আমার সম্মান রয়েছে। আমি ভারতের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।

আমি আগেও বলেছি পশ্চিমবঙ্গের মানুষের প্রতি আমার ভালোবাসা অগাধ। সেই ভালোবাসা আমাকে আবেগ তাড়িত করেছে। আমি বুঝতে পেরেছি, আবেগের বশবর্তী হয়ে সহকর্মীদের সাথে এই নির্বাচনী প্রচারণায় অংশগ্রহণ করাটা আমার ভুল ছিল। যেটা থেকে অনেক ভ্রান্তি তৈরি হয়েছে এবং অনেকে ভুলভাবে নিয়েছেন। আমি স্বাধীন বাংলাদেশের একজন নাগরিক। একটি স্বধীন দেশের নাগরিক হিসেবে অন্য একটি দেশের নির্বাচনী প্রচারণায় অংশগ্রহণ কোনভাবেই ঔচিত্য নয়। আমার অনিচ্ছাকৃত ভুলের জন্য আমি ক্ষমা প্রর্থনা করছি। আশা করি, সংশ্লিষ্ট সকলে আমার অনিচ্ছাকৃত ভুলকে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

আপনার মতামত লিখুন :

বিয়ের পর শপথ

বিয়ের পর শপথ
নুসরাত জাহান ও মিমি চক্রবর্তী

শপথগ্রহণ করলেন টালিউডের জনপ্রিয় দুই অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী ও নুসরাত জাহান। মঙ্গলবার (২৫ জুন) সংসদে গিয়ে শপথগ্রহণ করেন তারা।

শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানের জন্য সাদা সালোয়ার-কামিজ বেছে নিয়েছিলেন যাদবপুরের সাংসদ মিমি চক্রবর্তী। তবে বসিরহাটের সাংসদ নুসরাত জাহানের সাজ ছিল চোখে পড়ার মতো। সাদা-বেগুনি পাড়ের শাড়ি পরেছিলেন নুসরাত। সিঁথিতে ছিল চওড়া করে সিঁদুর দেওয়া। দুই হাত ভর্তি ছিল চূড়া। এমনকি সুন্দর নকশা করে দেওয়া মেহেদীও দেখা গেছে তার হাতে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/25/1561464341200.jpgজানা গেছে- বাংলায় শপথগ্রহণ করেছেন নুসরাত জাহান ও মিমি চক্রবর্তী। শপথগ্রহণ শেষে দু’জনের গলাতেই ছিল বাংলা ও ভারতের নামে জয়ধ্বনি।

গত ১৭ জুন শপথগ্রহণ করার কথা ছিল জনপ্রিয় এই দুই অভিনেত্রীর। এদিন সাংসদ হিসেবে বাকিরা শপথ নিলেও এই দুই নবনির্বাচিত তৃণমূল সাংসদের পক্ষে তা সম্ভব হয়নি। কারণ দু’জনেই তখন ছিলেন দেশের বাইরে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/25/1561464362289.jpgগত ১৯ জুন প্রেমিক নিখিল জৈনের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন নুসরাত জাহান। তাই ১৬ জুন তুরস্ক রওনা দিয়েছিলেন তিনি। মিমিও প্রিয় বান্ধবীর বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পাড়ি দিয়েছিলেন সেই মুলুকে। এ কারণে তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ জানানো হয়, আগামী ২৫ জুন শপথ নেবেন দুই তারকা সাংসদ। সেই মতো আজ যাদবপুর ও বসিরহাটের সাংসদ অধিবেশনের আগে শপথ নেন এই দুই তরকা।

প্যারিসে নৌকায় প্রিয়াঙ্কা-নিকের পার্টি

প্যারিসে নৌকায় প্রিয়াঙ্কা-নিকের পার্টি
প্যারিসে নৌকায় বন্ধুদের নিয়ে পার্টি করছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, নিক জোনাস, সোফি টার্নার ও জো জোনাস

সময়টা ভালোই কাটছে বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার। এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। এইতো ক’দিন আগে লন্ডনের মাদাম তুসো জাদুঘরে উন্মোচন করা হয়েছে প্রিয়াঙ্কার মোমের মূর্তি। এবার দেবরের বিয়ের প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন পিসি।

মাস খানের আগে দীর্ঘদিনের প্রেমিকা সোফি টার্নারের সঙ্গে বিয়ের বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছেন প্রিয়াঙ্কার দেবর জো জোনাস। কিন্তু সেসময় ঘরোয়াভাবে সম্পন্ন হয়েছিলো তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা। তবে এবার ধুমধাম আয়োজনের মধ্য দিয়ে আরও একবার বিয়ে করতে যাচ্ছেন জো-সোফি।

বিয়ের সকল আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করার জন্য এরইমধ্যে স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে নিয়ে প্যারিসে উড়াল দিয়েছেন নিক জোনাস। কারণ সেখানেই বাজবে জো-সোফির বিয়ের সানাই।

এদিকে, জো-সোফির বিয়ের অনুষ্ঠানের আগে বন্ধুদের নিয়ে একটু আড্ডা দিয়েছেন নিক জোনাস ও প্রিয়াঙ্কা চোপড়া দম্পতি।

প্যারিসে বন্ধুদের নিয়ে ইয়টে পার্টি করার বেশ কয়েকটি ছবি এরইমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে জোনাস ব্রাদার্স ও তাদের স্ত্রীদের বেশ ফুরফুরে মেজাজে দেখা গেছে।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/25/1561462522287.jpgছড়িয়ে পড়া ছবিগুলোতে দেখা যাচ্ছে- পার্টির জন্য রোস্ট কালারের একটি স্লিভলেস পোশাক বেছে নিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। তার স্বামী নিক জোনাসের পরনে ছিলো হলুদ রঙের শার্ট ও নীল জিন্স।

তবে বন্ধুদের সঙ্গে পার্টি করার জন্য সাদামাটা পোশাক পরেছিলেন সোফি টার্নার। তার পরনে দেখা গেছে সাদা টি-শার্ট। আর তার স্বামী জো পরেছিলেন কালো ছাপার শার্ট।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র