নিষিদ্ধ হওয়ার পরও থামছে না টিকটক ব্যাধি

টেক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টিকটক ভারতে নিষিদ্ধ হলেও দেশটির বেশিরভাগ মানুষ এখনো অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারছে।

এদিকে ভারতের তথ্য কমিশনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সম্প্রতি গুগল এবং অ্যাপেলের পক্ষ থেকে অ্যাপটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ফলে প্লে স্টোর কিংবা অ্যাপ স্টোরে সার্চ করে পাওয়া যাবে না টিকটক।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এ নিষিদ্ধের পরেও আশানুরূপ ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে না। কারণ যাদের ফোনে অ্যাপটি ইনস্টল করা আছে তারা চাইলে অন্যদের মাঝেও অ্যাপটি শেয়ার করতে পারে এবং থার্ড পার্টি অ্যাপ স্টোরগুলো থেকেও ডাউনলোড করা যাচ্ছে।

গবেষণা প্রতিষ্ঠান টেকআর্ক বলছে, বাজারে প্রযুক্তির এমন অনেক ফাঁক-ফোকর আছে যেখানে নিষিদ্ধ করা হলেও আরও অনেক উপায় আছে ব্যবহারের জন্য। তাই এরকম পদক্ষেপ কোনো আশানুরূপ ফলাফল দিতে পারবে না।

টেকআর্কের প্রতিষ্ঠাতা ফয়সাল কাওসা বলেন, ‘এ সমস্যা সমাধানে একটি টেকসই উদ্যোগ এবং বাস্তবায়নে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। একটি প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান তা একা চাইলেই বন্ধ করতে পারবে না।

গত ৩ এপ্রিল মাদ্রাজ হাইকোর্টে টিকটক নিষিদ্ধের জন্য একটি আদেশ জারি করা হয়। কিন্তু হাইকোর্ট এখনো রায় দেননি। পরবর্তী রায় শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে ২৪ এপ্রিল।

টিকটক কী

টিকটক একটি সংক্ষিপ্ত ভিডিও তৈরির অ্যাপ। আর এই সংক্ষিপ্ত ভিডিও কনটেন্টের বেশির ভাগই ছবির ক্লিপিংয়ের সঙ্গে অভিনয় করা, নিজের ব্যক্তিগত ভিডিও, চেহারা বিকৃত করে এবং অশ্লীল ভিডিও তৈরি করা। যা ব্যবহারে সমাজে কিশোর-কিশোরী, তরুণ তরুণীদের মাঝে একটা সামাজিক ব্যাধি হয়ে দাঁড়িয়েছে। ফলে সমাজে ঘটছে সাইবারবুলিং, সাইবার ক্রাইমের মতো সব অপরাধ।

খবর- হিন্দুস্তান টাইমস

আপনার মতামত লিখুন :