Alexa

ইলিয়াস আলী একটি প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর: ফখরুল

ইলিয়াস আলী একটি প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর: ফখরুল

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর / ছবি: বার্তা২৪

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী একটি প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর, সাহসী মানুষ। যিনি কখনো নতি স্বীকার করেননি, তাকে ক্ষমতাসীনরা সরিয়ে দিয়েছে।’

বুধবার (১৭ এপ্রিল) রাতে নিখোঁজ নেতা ইলিয়াস আলীর বনানীর ২ নম্বর রোডের বাসায় গিয়ে পরিবারের সদস্যদের খোঁজ-খবর নেওয়ার পর সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ একের পর এক নির্যাতনের নতুন নতুন কৌশল উদ্ভাবন করছে বিরোধী পক্ষকে দমিয়ে দেওয়ার জন্যে। ইলিয়াস আলী একজন প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর, সাহসী মানুষ যিনি কখনো নতি স্বীকার করেননি তাকে তারা সরিয়ে দিয়েছে। এই যে ভয়ের রাজত্ব সৃষ্টি করা, ভয়ের একটা ফোবিয়া তৈরি করা। আমরা এই অবস্থার অবসান চাই। জনগণের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মধ্য দিয়ে এই ধরনের নির্যাতনকারী, নিপীড়নকারী সরকারের পতন হতে বাধ্য।’

ক্ষোভ প্রকাশ করে ফখরুল বলেন, ‘গুম আমাদের কাছে খুব একটা পরিচিত ব্যাপার ছিল না। এনফোর্স ডিজ এপিয়ারেন্স আমরা বইয়ে পড়তাম, ল্যাটিন আমেরিকায় এসব ঘটনা ঘটতো জানতাম। বাংলাদেশে এটা শুরু হলো এই সরকার আসার পর থেকেই। যা ২০১১-১২ সাল থেকে শুরু হয়েছে। এরপর আমরা জানি যে, আমাদের অনেক নেতাকর্মী, বিরোধী দলের নেতাকর্মী, ট্রেড ইউনিয়নের নেতা গুম হয়ে গেছেন। এদের এখনো কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।’

এর আগে ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা, বড় ছেলে আরবার ইলিয়াস, ছোট মেয়ে সাইয়ারা নাওয়ালসহ পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের খোঁজ-খবর নেন মির্জা ফখরুল।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আমান উল্লাহ আমান, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, নির্বাহী সদস্য আয়েশা সিদ্দিকা মানি, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শায়রুল কবির খান প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল বনানীর বাসা থেকে বের হওয়ার পর, মহাখালীর সাউথ পয়েন্ট স্কুলের সামনে থেকে ইলিয়াস আলী ও তার গাড়ি চালক গুম হন। এখন পর্যন্ত তাদের খোঁজ পাওয়া যায়নি।

আপনার মতামত লিখুন :