Barta24

সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬

English

এনবিআরের কাছে প্রযুক্তিখাত সংশ্লিষ্টদের বাজেট প্রস্তাব

এনবিআরের কাছে  প্রযুক্তিখাত সংশ্লিষ্টদের বাজেট প্রস্তাব
ছবিঃ সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪ডটকম


  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছে  তথ্যপ্রযুক্তি খাতে  কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সহ খাত সংশ্লিষ্ট  নানা প্রস্তাবনা দিয়েছে  বেসিসসহ সংশ্লিষ্ট খাতের সংগঠনগুলো।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) এনবিআর এবং তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সংগঠনের প্রতিনিধিরা একটি প্রাক বাজেট  আলোচনা করেছে। সেখানেই এই প্রস্তাব দেয়া হয়েছে।

সভার সভাপতিত্ব করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া।

বেসিসের পক্ষে আনুষ্ঠানিকভাবে বাজেট প্রস্তাব পেশ করেন বেসিসের সহ-সভাপতি মুশফিকুর রহমান। প্রস্তাবনা পেশ করার শুরুতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে, ভ্যাট অটোমেশন প্রকল্পে দেশীয় ১১টি তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানকে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য ধন্যবাদ জানান।

বাজেট প্রস্তাবে বেসিসের সহ-সভাপতি বলেন, আইটি ও আইটিইএস-এর জন্য ২০২৪ সাল পর্যন্ত কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ রয়েছে। কিন্তু জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কাছ থেকে এই কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সনদ পেতে পেতে ২-৩ মাস সময় লেগে যায়। এতে বেশ ঝামেলায় পোহাতে হয়।

এজন্য বেসিস থেকে একেবারে আইটি ও আইটিইএস প্রতিষ্ঠানকে ২০২৪ পর্যন্ত কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সনদ দেয়ার প্রস্তাব করা হয়। সেক্ষেত্রে প্রতিবছর আইটি ও আইটিইএস প্রতিষ্ঠানসমূহের কার্যক্রম সচল রয়েছে কিনা তা যাচাই করে বেসিস প্রত্যয়নপত্র প্রদান করবে।

অগ্রসরমান তথ্যপ্রযুক্তি খাতের নিত্যনতুন সেবা ও নতুন নতুন উদ্ভাবন যুক্ত হচ্ছে। এজন্য তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সেবার পরিসর বাড়ছে। এজন্যে আইটিএস এর নতুন খাতসমূহ যেমন, সিস্টেম ইন্ট্রিগ্রেশন, প্লাটফর্ম অ্যাজ এ সার্ভিস, সফটওয়্যার অ্যাজ এ সার্ভিস, আইটি ট্রেনিং, এএমসি, ইনফরমেশন সিস্টেম, ইত্যাদি খাত আইটিএসের সংজ্ঞায় যুক্ত করার প্রস্তাব করা হয়। পাশাপাশি সফটওয়্যার ইম্পোর্ট দো ই-ডেলিভারির জন্য নতুন এইচএস কোড প্রবর্তনের জন্য বেসিস থেকে প্রস্তাব করা হয়।

বেসিস থেকে প্রস্তাব করা হয়, ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের ক্ষেত্রে ব্যাংক এবং পেমেন্ট নেটওয়ার্কের মাধ্যমে পুরো পেমেন্ট সিস্টেমকে আরও সহজ ও রেগুলার মনিটরিং এর আওতায় আনতে হবে। এতে সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব (বাৎসরিক প্রায় ৩০০-৪০০ কোটি টাকা) আয় করতে পারবে।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান বেসিসের প্রস্তাবনাগুলো শোনেন। আলোচনা শুরুতে, ভ্যাট অটোমেশন প্রকল্পকে আরও প্রতিষ্ঠান যাতে অংশ নেয় সেজন্য সেসব প্রতিষ্ঠানকে উৎসাহিত করতে বেসিসকে অনুরোধ করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান।

বেসিসের প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, আইটি ও আইটিইএসের এক বছর মেয়াদকালীন কর্পোরেট ট্যাক্স মওকুফ সনদ ৩ বছর মেয়াদকাল পর্যন্ত বর্ধিত করা হবে।

পাশাপাশি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, বেসিস কর্তৃক সুপারিশকৃত আইটিইএসের নতুন সংজ্ঞা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের অনুমোদনক্রমে সংযুক্ত করা হবে বলে জানান। বেসিস কর্তৃক প্রস্তাবিত ডিজিটাল মার্কেটিং পেম্যান্ট পলিসি মূল্যায়নক্রমে অতিস্বত্বর প্রণয়ন করা হবে বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

বাংলাদেশের পপআপ ক্যামেরার জগতে পা রাখল হুয়াওয়ে

বাংলাদেশের পপআপ ক্যামেরার জগতে পা রাখল হুয়াওয়ে
হুয়াওয়ের হ্যান্ডসেট ওয়াই৯ প্রাইম, ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের প্রথম অটো পপআপ ক্যামেরার মোবাইল ফোন ওয়াই৯ প্রাইম এখন বাংলাদেশের বাজারে।

রোববার (২৫ আগস্ট) থেকে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি। এতে থাকছে হাই-পারফরমেন্সের চিপসেট, ইএমইউআই ৯.০ অপারেটিং সিস্টেম, ট্রিপল এআই ক্যামেরা ফিচার, দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি।

মধ্যম বাজেটের এই মোবাইল ফোনটিতে আরও থাকছে ৬.৫৯ ইঞ্চি বিশিষ্ট ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে। নো হোল, নো নচ, নন-ডিউড্রপ ডিজাইনের ফোনটির ফুল স্ক্রিন ডিসপ্লের উপরে ব্যবহার করা হয়েছে ছোট ব্যাজেল। এতে কিরিন ৭১০এফ প্রসেসরের সঙ্গে ৪ জিবি র‌্যাম এবং ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ ব্যবহার করা হয়েছে, যা মাইক্রো এসডি কার্ড দিয়ে ৫১২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ফলে ফোনের স্টোরেজ নিয়ে বাড়তি চিন্তা থাকবে না গ্রাহকদের।

হুয়াওয়ের ওয়াই৯ প্রাইম হ্যান্ডসেটটির পেছনে থাকছে তিনটি ক্যামেরা। ১৬, ৮ ও ২ মেগাপিক্সেলের তিনটি ক্যামেরার জন্য ফোনটিতে ছবি পাওয়া যাবে নিখুঁত ও স্পষ্ট। ১৬ মেগাপিক্সেলের পপআপ ক্যামেরাটি ব্যবহারকারীদের ফুল ডিসপ্লে সুবিধা যেখানে কোনো নচ বা হোল থাকবে না।

পপআপ সেলফি ক্যামেরাটি ১৫ কিলোগ্রাম পর্যন্ত বাহ্যিক চাপ সহ্য করতে পারবে। এক লাখবারের চেয়ে বেশি ওঠানামা করবে এর পপআপ ক্যামেরা। ৪ হাজার মিলি অ্যাম্পায়ার ব্যাটারি থাকায় ব্যবহারকারীরা একবার চার্জে দীর্ঘসময় ব্যবহার করতে পারবেন।

অল্পসময়ে চার্জের জন্য ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে টাইপ-সি চার্জার। স্যাফায়ার ব্লু, অ্যামেরালড গ্রীন ও মিডনাইট ব্ল্যাক আকর্ষণীয় এই তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি।

প্রিমিয়াম ফিচারের এই ফোনটি পাওয়া যাবে ২৩ হাজার ৯৯৯ টাকায়।

বাংলাদেশের পপআপ ক্যামেরার জগতে পা রাখলো হুয়াওয়ে

বাংলাদেশের পপআপ ক্যামেরার জগতে পা রাখলো হুয়াওয়ে
হুয়াওয়ে পপআপ ক্যামেরার ফোন ওয়াই নাইন প্রাইম

হুয়াওয়ের প্রথম অটো পপআপ ক্যামেরা ফোন এখন বাংলাদেশে বাজারে। প্রথমবারের মতো সর্বশেষ প্রযুক্তির এই অটো পপআপ ক্যামেরার ফোন ওয়াই নাইন প্রাইম ২০১৯ নিয়ে এসেছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ে।

রোববার (২৫ আগস্ট) থেকে বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি।ফোনটিতে থাকছে হাই-পারফরমেন্সের চিপসেট, ইএমইউআই ৯.০ অপারেটিং সিস্টেম, ট্রিপল এআই ক্যামেরা ফিচার, দীর্ঘস্থায়ী ব্যাটারি।

মধ্যম বাজেটের এই ফোনটিতে আরও থাকছে  ৬.৫৯ ইঞ্চি বিশিষ্ট ফুল এইচডি প্লাস ডিসপ্লে। নো হোল, নো নচ, নন-ডিউড্রপ ডিজাইনের ফোনটির ফুল স্ক্রিন ডিসপ্লের উপরে ব্যবহার করা হয়েছে ছোট ব্যাজেল। এতে কিরিন ৭১০এফ প্রসেসরের সাথে ৪ জিবি র‌্যাম এবং ১২৮ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজ ব্যবহার করা হয়েছে। যা মাইক্রো এসডি কার্ড দিয়ে ৫১২ জিবি পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। ফলে ফোনের স্টোরেজ নিয়ে বাড়তি চিন্তা থাকবে না গ্রাহকদের। হুয়াওয়ের ওয়াই নাইন প্রাইম ২০১৯ হ্যান্ডসেটটির পিছনে থাকছে তিনটি ক্যামেরা। ১৬, ৮ ও ২ মেগাপিক্সেলের তিনটি ক্যামেরার জন্য ফোনটিতে ছবি পাওয়া যাবে নিখুঁত ও স্পষ্ট। ১৬ মেগাপিক্সেলের পপ আপ ক্যামেরাটি ব্যবহারকারীদের ফুল ডিসপ্লে সুবিধা যেখানে কোন নচ বা হোল থাকবে না।

পপ আপ সেলফি ক্যামেরাটি ১৫ কিলোগ্রাম পর্যন্ত বাহ্যিক চাপ সহ্য করতে পারবে। এক লাখ বারের চেয়ে বেশি উঠা নামা করবে এর পপ আপ ক্যামেরা। ৪ হাজার মিলিঅ্যাম্পায়ার ব্যাটারি থাকায় ব্যবহারকারীরা একবার চার্জে দীর্ঘসময় ব্যবহার করতে পারবেন।

অল্পসময়ে চার্জের জন্য ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে টাইপ-সি চার্জার। স্যাফায়ার ব্লু, অ্যামেরালড গ্রীন ও মিডনাইট ব্ল্যাক আকর্ষণীয় এই তিনটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে ফোনটি।

প্রিমিয়াম ফিচারের এই ফোনটি পাওয়া যাবে ২৩ হাজার ৯৯৯ টাকায়।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র