Barta24

শনিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৯, ৯ ভাদ্র ১৪২৬

English

সাকিববিহীন ফাইনালে, ট্রফি জিততে মরিয়া বাংলাদেশ

সাকিববিহীন ফাইনালে, ট্রফি জিততে মরিয়া বাংলাদেশ
এবার কি ফাইনাল দুঃস্বপ্ন কাটবে বাংলাদেশের?
স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের খেলা তিনটি ম্যাচের কাহিনীতে কি ভীষণ মিল! তিন ম্যাচেই প্রতিদ্বন্দ্বিতার তেমন কোনো চিহ্নই নেই। বাংলাদেশের সহজ জয়। তিন ম্যাচেই রান তাড়া করে ম্যাচে জয়ের আনন্দ। এবং কি আশ্চর্য তিন ম্যাচে এক জায়গায় বাংলাদেশ হারলো-টস!

ক্ষতি কি, ম্যাচ জিতলে টস হারার শূন্যতা কে আর মনে রাখে? তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আজ শুক্রবারের ফাইনালে বাংলাদেশকে একাদশে একটি বড় শূন্যতা পুরুণ করতে হবে। সাকিব আল হাসান খেলছেন না এই ফাইনালে সেটা নিশ্চিত প্রায়। ফাইনালের আগের দিনে সংবাদ সম্মেলনে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার কথাতেই তা স্পষ্ঠ। সাকিবকে ছাড়াই ফাইনালের পরিকল্পনা স্থির করে ফেলেছে বাংলাদেশ।

অধিনায়ক বলছিলেন-‘সাকিবের থাকা বা না থাকাটাই ম্যাচের ডিসাইডিং ফ্যাক্টর, সেটা অধিনায়ক হিসেবে আমি মনে করি না। তবে হ্যাঁ, সাকিব যদি এই ম্যাচ খেলতে না পারে তবে তাকে মিস করাটা আমাদের জন্য ভালো খবর অবশ্যই নয়।’

দলের জন্য সাকিবের প্রয়োজনীয়তা এবং একই সঙ্গে সাকিবকে ছাড়াও কিভাবে জেতা যায়-সেই উদ্দীপনায় উজ্জ্বীবিত করলেন অধিনায়ক তার দলকে-‘সাকিবকে ছাড়াও  এই ম্যাচ জয়ের সামর্থ্য আমাদের আছে। সাকিব না খেললে তার জায়গা যে খেলবে, সেও পেশাদার, তারও সামর্থ্য আছে ভালো করার।’

ফাইনালে সাকিবের জায়গায় কে? সেই উত্তর খুঁজতে আপাতত খুব বেশি হন্যে হওয়ার প্রয়োজন পড়ছে না। আগের ম্যাচে লিটন দাসের হাফসেঞ্চুরিতে এই খোঁজ মিলে গেছে। সাকিবের তিন নম্বর ব্যাটিংয়ের শূন্যস্থান পুরুণ করছেন লিটন দাস। ওপেনিংয়ে তামিমের সঙ্গে থাকছেন সৌম্য।

প্রশ্ন হলো, সাকিব তো দলের বোলারও বটে। তার ১০ ওভারটা তাহলে কে করবে? এই শূন্যস্থান পূরুণ করতে সৌম্য ও সাব্বিরের কাছ থেকে ফাইনালে বোলিংয়েও অবদান দাবি করছেন অধিনায়ক। স্পিনার মেহেদি হাসান মিরাজ ফিরছেন একাদশে। এমনও হতে পারে  পেস বোলার সাইফুদ্দিনের পরিবর্তে এই ম্যাচে অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে খেলানো হতে পারে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ স্পিনের বিপক্ষে বরাবরই একটু পিছুহটা। মোসাদ্দেকের স্পিন উইন্ডিজের সেই সমস্যা আরো বাড়াতে পারে। আর হ্যাঁ, আগের ম্যাচে পাঁচ উইকেট নেয়া আবু জায়েদ রাহীরও আজকের ফাইনালের একাদশে জায়গা হচ্ছে না। মুস্তাফিজুর রহমান ফিরছেন যে তার নিজের জায়গায়!

টুর্নামেন্টের আগের দুই মোকাবেলায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ মোটেও বাংলাদেশের কাছে পাত্তা পায়নি। হেরেছে যথাক্রমে ৮ ও ৫ উইকেটে। তবে দলগতভাবে ব্যর্থ হলেও উইন্ডিজ ওপেনার শেই হোপের ব্যাটে রানের ফল্গুধারা। চলতি টুর্নামেন্টেই দুটো সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন তিনি। ৪ ম্যাচে তার রানই সর্বোচ্চ ৩৯৬। গড় ৯৯.০০! আর প্রতিপক্ষ হিসেবে বাংলাদেশের বোলিং ভীষণ পছন্দ করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের এই ডানহাতি ওপেনার। বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষ আট ইনিংসে তার সেঞ্চুরির সংখ্যা তিনটি! শেই হোপকে দ্রুত ফেরাতে না পারলে বাংলাদেশের ফাইনালের ‘হোপে’ খামতি পড়বে।

তিনজাতি কোনো টুর্নামেন্টে ফাইনাল মানেই তো বাংলাদেশের নুয়ে পড়া। ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি মিলিয়ে বহুজাতিক টুর্নামেন্টে এর আগে ছয়টি ফাইনাল খেলেছে বাংলাদেশ। কোনোবারই ট্রফি জিততে পারেনি। হ্যাঁ, ভালো ক্রিকেট খেলে হৃদয় ঠিকই জিতেছে। কিন্তু ট্রফি জেতা হয়নি।

আজ না হয় হৃদয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ জিতুক। ট্রফিটা মাশরাফি!

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: তামিম, সৌম্য, লিটন/সাকিব, মুশফিক, মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ, সাব্বির, সাইফুদ্দিন/ মোসাদ্দেক, মেহেদি, মাশরাফি ও মুস্তাফিজ।

আপনার মতামত লিখুন :

অ্যান্টিগা টেস্টের দ্বিতীয় দিন ইশান্ত শর্মার

অ্যান্টিগা টেস্টের দ্বিতীয় দিন ইশান্ত শর্মার
বল হাতে ইশান্তের দাপটে লিডের পথে ভারত

ব্যাট হাতে ৬১ বলে ১৯ রান। অষ্টম উইকেট জুটিতে রবিন্দু জাদেজার সঙ্গে ৬০ রান যোগ। তারপর বল হাতে দুর্দান্ত স্পেল। ৪২ রানে শিকার ৫ উইকেট। যার দুটো আবার কট এন্ড বোল্ড! শেষ স্পেলে ৮ রানে ৩ উইকেট তুলে নেয়া। অ্যান্টিগা টেস্টের দ্বিতীয় দিনের পুরোটাই নিজের করে নিলেন ইশান্ত শর্মা। ম্যাচেও এগিয়ে গেলো ভারত অনেক খানি। ২৯৭ রানে থামে ভারতের প্রথম ইনিংস। জবাব দিতে নামা ওয়েস্ট ইন্ডিজ দ্বিতীয় দিন শেষ করলো ৮ উইকেটে ১৮৯ রানে।

দ্বিতীয়দিন শেষে ভারত এগিয়ে ছিলো ১০৮ রানে। শেষের দুই উইকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এই ব্যবধান খুব বেশি কমিয়ে আনবে- তেমন আস্থা খুব বেশি নেই।

অ্যান্টিগায় দ্বিতীয়দিনের সকালটা অবশ্য ভারতের ভালো শুরু হয়নি। আগের দিনের অপরাজিত ব্যাটসম্যান রিসাভ পান্থ শুরুতেই উইকেট হারান। অফস্ট্যাম্পের বাইরের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে খেমার রোচের চতুর্থ শিকার হয়ে স্লিপে ক্যাচ তুলে ফিরেন পান্থ। অষ্টম উইকেট জুটিতে ইশান্ত শর্মাকে নিয়ে রবিন্দু জাদেজা ভালো প্রতিরোধ গড়ে তোলেন। একপাশ আঁকড়ে রাখেন ইশান্ত। অন্য প্রান্ত থেকে জাদেজা স্কোরবোর্ড সচল রাখেন। ঘন্টাখানেকের বেশি উইকেটে টিকে থেকে ১৯ রান করে ইশান্ত আউট হন। দলের শেষ ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫৮ রানে জাদেজা ফিরলেন। ভারতের ইনিংস গুটিয়ে গেলো ২৯৭ রানে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের ওপেনিং জুটি ৩৬ রানে ভাঙ্গতেই বিপর্যয়ের শুরু। ৮৮ রানে হারিয়ে ফেলে তারা ৪ উইকেট। মিডলঅর্ডারে রোস্টন চেজের ব্যাট থেকে আসে সর্বোচ্চ ৪৮ রান। প্রায় সব ব্যাটসম্যান শুরুটা ভালো করেও ইনিংস বড় করতে পারেননি।

ঈশান্ত শর্মার দুর্দান্ত স্পেলের কাছেই মুলত শক্ত অবস্থান থেকে ছিটকে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ৫ উইকেটে ১৭৪ রান থেকে হঠাৎ করে দিনের শেষবেলায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৭৯ রানে ৮ উইকেট হারানো দলে পরিণত হয়। ঈশান্ত শর্মা দিনের নিজের শেষ স্পেলে ৮ রানে ৩ উইকেট শিকার করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ধসে পড়া আরেকটু ত্বরান্বিত করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: ভারত ১ম ইনিং: ২০৩/৬ (৬৮.৫ ওভারে, রাহুল ৪৪, আগরওয়াল ৫, পুজারা ২, কোহলি ৯, রাহানে ৮১, বিহারি ৩২, পান্থ ২০*, জাদেজা ৩*, রোচ ৩/৩৪, গ্যাব্রিয়েল ২/৪৯, চেজ ১/৪২)।
ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনি: ১৮৯/৮ (৫৯ ওভারে, ব্রাভো ১৮, চেজ ৪৮, হোপ ২৪, হেটমায়ার ৩৫, ইশান্ত ৫/৪২)।
*দ্বিতীয়দিন শেষে

টানা তিন ম্যাচে হারল বাংলাদেশের মেয়েরা

টানা তিন ম্যাচে হারল বাংলাদেশের মেয়েরা
বল দখলেও পিছিয়ে থাকল বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ২১ নারী দল

সেই একই গল্প! হারের বৃত্তেই বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব ২১ নারী হকি দল। তবে আগের দুই ম্যাচে ৬টি করে গোল হজম করলেও এবার কিছুটা উন্নতিও হয়েছে। ভারতের সাই ন্যাশনাল হকি একাডেমি নারী দল সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে তুলে নিয়েছে ৩-০ গোলের জয়।

রাজধানীর মওলানা ভাসানী স্টেডিয়ামে শুক্রবার বাংলাদেশের মেয়েরা প্রথমার্ধ শেষ করে ০-২ গোলে পিছিয়ে থেকে। এরপর তৃতীয় কোয়ার্টারে আরেকটি গোল হজম করে। স্বস্তি এটাই এবার কম গোল হজম করেছে তারা।

ম্যাচে ভারতীয় দলটির হয়ে গোল তিনটি করেন সাক্ষী, লালওয়ান পুই ও লালরুতাফেলি মেসাবি।

৯ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ সেপ্টেম্বর সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত হবে ওমেন্স জুনিয়র এএইচএফ কাপ। এই লড়াইয়ের আগে ঘরের মাঠে প্রস্তুতি পর্বে ভারতের সাই জাতীয় হকি একাডেমির নারী দলের সঙ্গে লড়ছে মেয়েরা। ৬ ম্যাচের সিরিজ খেলছে দুই দল।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/23/1566577980346.jpg

শুক্রবার ম্যাচের আগে দুই দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে সৌজন্য স্বাক্ষাৎ করেন বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের সভাপতি এয়ার চীফ মার্শাল মাসিহুজ্জামান সেরনিয়াবাত বিবিপি, ওএসপি, এনডিইউ, পিএসসি।

এসময় উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রনালয়ের সচিব ড. মোহাম্মদ জাফর উদ্দীন, ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ওয়াসেক মোহাম্মদ আলী, গ্রীন ডেল্টা ইন্সুরেন্স কোম্পানী লিমিটেডের সিনিয়র কনসালটেন্ট এ এস এ মুইজ ও ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ইকবাল বিন আনোয়ার ডন।

সিরিজের শেষ তিনটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ২৫, ২৬ ও ২৭ আগস্ট।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র