Alexa

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভক্ষণে বার্তা২৪.কম

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভক্ষণে বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪

দীপ্ত-যৌবনের তুঙ্গ-তরঙ্গে দ্বিতীয় বছর স্পর্শ করলো বাঙালির সংবাদ সারথি, বাংলাদেশের প্রথম অনলাইন-মাল্টিমিডিয়া নিউজপোর্টাল, বার্তা২৪.কম। মাত্র এক বছরেই বাংলা ভাষায় প্রতি মুহূর্তের সংবাদসূত্র রূপে বাংলাদেশের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধনশীল মিডিয়া প্রতিষ্ঠানের মর্যাদায় অভিসিক্ত হয়েছে বার্তা২৪.কম। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শুভক্ষণে অর্জনের আলোকমালায় বার্তা২৪.কম প্রজ্জ্বলিত করছে প্রতিনিয়ত নিজেকে অতিক্রম করে সামনে এগিয়ে চলার প্রতীতিতে পূর্ণ অনির্বাণ মশাল।


সর্বক্ষণের সংবাদ সরবরাহ, পেশাগত বিশুদ্ধতা, নৈব্যক্তিক দায়িত্বশীলতা এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদপ্রবাহের প্রতি সত্যনিষ্ঠায় নিবেদিত বাংলাদেশের প্রধানতম ও একমাত্র মাল্টিমিডিয়া-নিউজপোর্টাল বার্তা২৪.কম ঘটনাবহুল একটি বছর অতিক্রম করে অযুত সম্ভাবনাময় দ্বিতীয় বছরে পদার্পণের শুভদিনে বিশ্বব্যাপী অগণিত পাঠক, শুভানুধ্যায়ী, স্বজনদের জানাচ্ছে প্রীতি ও শুভেচ্ছা।


বিশ্বব্যাপী লক্ষ-কোটি পাঠকের অকৃত্রিম ভালোবাসায় সিক্ত বার্তা২৪.কম-এর ত্যাগী ও আত্মনিবেদিত সংবাদকর্মীগণ উচ্চারণ করেছেন পেশাগত নৈপূণ্য ও দায়িত্বশীলতার দীপ্ত শপথ এবং চলমান সময়ের প্রতিটি স্পন্দনের ঘটমানতাকে পাঠকের সামনে তুলে ধরার চ্যালেঞ্জিং প্রত্যয়। প্রাজ্ঞ নেতৃত্বের সঙ্গে তারুণ্য-যৌবনের লেলিহান জনশক্তির বার্তা২৪.কম আরেকটি নতুন বছরের শুরুতে পুনরুচ্চারণ করছে ‘বাঙালির সংবাদ সারথি’ মর্মে বিঘোষিত শপথের শাশ্বত প্রায়োগিক প্রত্যয়; ‘বাসি খবরের মৃত্যুঘণ্টা বাজানো’র নিনাদ; সময়ের ভগ্নাংশকে অঙ্কন করার পেশাগত উচ্চাশা এবং অক্ষরে ও সচল ছবিতে চলমান ঘটনাকে একনিষ্ঠ দ্রুততায় ধারণ ও পরিবেশনের সাহসিক চ্যালেঞ্জ।

পাঠক মাত্রই অবগত আছেন যে, বাংলাদেশে ও সমগ্র বিশ্বে চলমান সঙ্কুল আর্থ-সামাজিক-রাজনৈতিক প্রতিকূলতায় ভরা বিরূপ পরিস্থিতির মধ্যে সত্যান্বেষণের নিত্য লড়াইরত বার্তা২৪.কম জাতীয় স্বার্থ আর গণমানুষের ন্যায়সঙ্গত অধিকারের পক্ষে সোচ্চার রয়েছে অতিক্রান্ত বিগত বছরে। অচলাবস্থার অন্ধ-অন্ধকারের মধ্যেও পাঠকের কাঙ্ক্ষিত তথ্য ও সংবাদের অগ্রণী ও অনিবার্য সংযোগ সূত্র হিসাবে নিত্য-সচল থেকেছে ওয়েভ পেজের মলাটে।  বার্তা২৪.কমের পেরিয়ে আসা দিনগুলোতে চিন্তায়, চেতনায়, কর্মে পরিবর্তিত বিশ্ব ও বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে যা কিছু সত্য, সুন্দর, ভালো, মানবিক, গণতান্ত্রিক, মহৎ ও কল্যাণকর এবং  দেশ ও জনগণের জন্য ইতিবাচক, সেসবের সঙ্গে সামঞ্জস্য ও সমন্বয় বিধানের কঠিন কাজটিই সফলভাবে করেছে দ্বন্দ্ব-সংঘাতমুখর তীব্র বিরূপ পরিস্থিতিতেও। সত্যনিষ্ঠা ও দ্রুততার বিঘোষিত নীতিকে ঊর্ধ্বে তুলে ধরতে শত চাপ ও বিরোধিতার মধ্যে সাদাকে সাদা আর কালো কালো বলার সত্য-সুন্দর ধ্বনি উচ্চকিত করেছে।

বাংলাদেশের প্রধান ও একমাত্র মাল্টিমিডিয়া-নিউজপোর্টাল হিসাবে আত্মপ্রকাশের পর থেকেই দায় ও দায়িত্বের প্রতি নিষ্ঠায় এই সংবাদক্ষেত্রের গতিময়-অকুতোভয় সংবাদকর্মীগণ ভয়হীনতায় দাঁড়িয়েছেন সত্যের সপক্ষে; নিজেকে বিছিয়ে দিয়েছে সাগর-মিথিলা-কিরিট-কুন্তলা-হাওর-বাওর-বন-বনানী আর গ্রাম-গঞ্জ-শহর-নগরের সম্মিলিত সমগ্র বাংলাদেশের মা-মাটি-মানুষের স্বার্থের মানসপটে। বার্তা২৪.কম নিজেকে সম্পূর্ণভাবে মেলে ধরেছে বিশ্বব্যাপী ৪০ কোটি বাংলাভাষী মানুষের আন্তর্জাতিক তথ্যবলয়ে।  রাজনীতি, অর্থনীতি, সংস্কৃতি, খেলাধুলা, নারী, প্রযুক্তি, লাইফস্টাইল, ধর্ম, দর্শন, ফ্যাশন, শিল্প, সাহিত্য, আন্তর্জাতিক বিষয়সহ জীবনের সকল অঙ্গনকে স্পর্শ করেছে নিজস্ব বিশিষ্টতায় এবং অবশ্যই বাংলাদেশের সমসময়ের কঠিন সঙ্কুলতার প্রেক্ষাপটকে প্রাধান্য দিয়ে পাঠক আর সংবাদের মধ্যে আশাবাদী সংযোগসূত্র হয়ে নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছে। প্রকৃত সংবাদ আর সংবাদের পেছনের অর্ন্তনিহিত সত্যই লেখায় আর ছবিতে পূর্ণ করেছে বার্তা২৪.কমের তিনশ পয়ষট্টি দিনের প্রতিটি দিন; দিনের চব্বিশ ঘণ্টার প্রতিটি ক্ষণ ও মুহূর্ত।

বাংলাদেশের ব্যক্তিগত ও সামাজিক ক্ষেত্রে মানুষের যাপিত জীবনের আশা ও দুঃখের কোনও বিষয়কেই উপেক্ষা করে নি বার্তা২৪.কম। এড়িয়ে যায় নি জাতীয় ও মানবিক স্বার্থে একটিও বিষয়।  বাংলাদেশের কেন্দ্র থেকে দূরপ্রান্তে বসবাসরত পাঠকের জানার অধিকারকে পরিপুষ্ট করার ব্রত থেকে এক মুহূর্তের জন্যেও বিচ্যুত হয় নি। বিশ্বায়নের ক্রম-পরিবর্তনশীল প্রেক্ষাপটের এই বিশ্বে, এই দেশে ঘটমান সংবাদপ্রবাহের সঙ্গে বৃহত্তর পাঠকের প্রথম সংযোগ স্থাপনের কাজটি বার্তা২৪.কম প্রাযুক্তিক শ্রেষ্ঠত্ব, পেশাগত দায়বদ্ধতা, চৌকস দক্ষতা, নিষ্ঠা, কমিটমেন্ট ও প্রাগ্রসরতার সঙ্গে দায়িত্বরূপে গ্রহণ করেছে। বার্তা২৪.কম-এর খোলা চোখে পাঠক দেখেছে নিজস্ব ভূগোল, সমাজ, সুশাসন, সারা বাংলাদেশ ও পৃথিবীর প্রসারিত রূপ এবং সেখানকার আলো ও অন্ধকারকে, ভালো ও মন্দকে, আশা ও হতাশার দিকগুলোকে। সত্য যত কঠিনই হোক, সেই কঠিনেরে ভালোবেসে নিজেকে উপস্থাপিত করেছে  মানুষের চেতনা ও বিবেকের পাটাতনে। পাঠককে প্রণোদিত করেছেন বহুমুখী তথ্য ও সংবাদের ভিত্তিতে নিজের স্বাধীন ও স্বনির্ভর মতামত পরিগঠনের মাধ্যমে ব্যক্তিসত্তার বিকাশে। পাঠকের মুক্তচিন্তা-মুক্তমত-যুক্তিতর্ক ও বাধাহীন-বিবেচনার ক্ষমতায়নকে বার্তা২৪.কম সব সময় শ্রদ্ধা করেছে বলেই কোনও বিশেষ দল-মত-গোষ্ঠী নয়, বার্তা২৪.কম হয়েছে সর্বস্থরের পাঠকের নিজস্ব ও সাবক্ষণিক পোর্টাল: আস্থা, নির্ভরযোগ্যতা ও বিশ্বাসের সংবাদমাধ্যম; বাঙালির সংবাদ তথা চিন্তা ও বোধের নান্দনিক সারথি; তথ্যের নির্ভরশীল সঙ্গী এবং বৈশ্বিক বাংলাভাষী মানবম-লীর অপরিহার্য্য তথ্যবান্ধব।

চলার পথের বাঁকে বাঁকে বার্তা২৪.কম চ্যালেঞ্জিং ও  গতিময় ঐতিহ্যকে সতত-মান্য করে স্থবিরতাকে কখনওই প্রশ্রয় দেয় নি। জগৎ ও জীবনে প্রতিমুহূর্তে যে পরিবর্তন ঘটছে, জন্মকাল থেকে আজ পর্যন্ত বার্তা২৪.কম সেটাকে ইতিবাচকভাবে আত্মস্থ করেছে আঞ্চলিক-জাতীয়-আন্তর্জাতিক দৃষ্টিকোণের পৃথক পৃথক মাত্রা ও বিন্যাসে। বার্তা২৪.কম বিশ্বাস করেছে  গুণগত পরিবর্তনই প্রকৃতির অলঙ্ঘণীয় নিয়ম; অগ্রসরতাই জীবনের ধর্ম; চরৈবেতিই প্রকৃতির বিধান। তাই বিশ্বভুবনের পরিবর্তনধর্মী মূলস্রোতের ভিত্তিতে বাংলাদেশের সমাজ, সংস্কৃতি, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, বিনোদন, লাইফস্টাইল তথা সামগ্রিক মানবজীবনের লাইভিহুড বা সর্বব্যাপী জীবনচর্চার জন্য প্রয়োজনীয়-কাঙ্ক্ষিত রূপান্তর বার্তা২৪.কম-এর প্রতিটি অক্ষরে-ভিডিওতে আঁকা হয়েছে। বিনাশে, সঙ্কটে, সমস্যায় বাতা২৪.কম আশা-জাগানিয়া তথ্যপ্রবাহের নিত্যতা ও স্পন্দনে মানুষকে দিতে চেয়েছে পথের দিশা। প্রতিদিন প্রতিটি মুহূর্তে পাঠকের সামনে তথ্যের অধিকার নিয়ে চিন্তার সহযাত্রী হয়ে এসে দাঁড়িয়েছে।

কুসংস্কার ও কূপমণ্ডূকতামুক্ত বহুত্ববাদী সমাজের ধর্ম-বর্ণ-ভাষা-নৃতাত্ত্বিক-রাজনৈতিক-সাংস্কৃতিক পরিচিতি, গণতান্ত্রিক সুশাসন ও স্বাতন্ত্র্যকে সম্মান ও স্বীকৃতি জানিয়ে অকুতোভয়ে এগিয়ে এসেছে বার্তা২৪.কম। গণতান্ত্রিক সহনশীলতা, পরমতসহিষ্ণুতা, শান্তি, সৌহার্দ্য, সংলাপ, সমঝোতা,  উন্নয়ন ও পারস্পরিক শ্রদ্ধায় সমাজের জন্য অতি জরুরি সুশাসন, অংশগ্রহণ, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা ও দায়বদ্ধতার ভিত রচনা করতে একটি পরিপূর্ণ মিডিয়ার দায় ও দায়িত্ব থেকে নিরন্তর কাজ করে চলেছে বার্তা২৪.কম। 

মুক্তিযুদ্ধের মহান চেতনায় নির্মিত বাংলাদেশের অপার অর্থনৈতিক সুযোগ ও সম্ভাবনা, প্রাকৃতিক বৈচিত্র এবং জনজীবনের বিশালতাকে অনুঘটকের মতো প্রতিনিয়ত উৎসাহিত করেছে ইতিবাচকতার অভিমুখে। নিয়ত প্রচেষ্টা চালিয়েছে বাংলাদেশের অবক্ষয়দগ্ধ রাজনৈতিক সংস্কৃতির কাঠামোকে সাংবিধানিক-গণতান্ত্রিক অবয়বে জনমানুষের সক্ষমতার আলোয় উদ্ভাসিত করতে এবং সে আলোয় আলোয় প্রিয় জনপদ বাংলাদেশকে আত্মমর্যাদায় ঋদ্ধ ও আলোকিত করতে। এবং সংঘাতের রক্তাপ্লূত রণাঙ্গণকে শান্তির সহাবস্থানের সুমৃত্তিকায় রূপান্তরিত করতে। বাংলাদেশের সৎ, দায়িত্বশীল, জনবান্ধব ও প্রযুক্তির প্রাগ্রসরতাময় সাংবাদিকতায় সর্বাধুনিক জ্ঞান-প্রযুক্তির সামর্থ্যে বার্তা২৪.কম অঙ্কন করেছে নিজস্বতার অগ্রণী অবস্থান ও স্বাধীন অস্তিত্ব।

ইতিহাসের আলোকে নবীন ও ভবিষ্যত পাঠকদের এ কথা জানা থাকা দরকার যে, বাংলাদেশের সংবাদপত্রের ইতিহাসে, বিশেষত সঙ্ঘাত-সঙ্কুল-পালাবদলে আকীর্ণ একটি প্রকৃত সন্ধিক্ষণে বার্তা২৪.কম-এর আত্মপ্রকাশ এবং পথচলা। প্রথাগত ও পক্ষপাতদুষ্ট সংবাদ-প্রবাহের দুর্বলতা, নতজানু মনোভাব ও মনোপলি ভেঙে বার্তা২৪.কম স্বাধীন সাংবাদিকতার প্রকৃত পথ-প্রদর্শকের মতো উপস্থিত হয়েছে।


একই সঙ্গে নিয়ে এসেছে সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ও  প্রকাশভঙ্গি, লেখা ও ভিডিও কনটেন্ট, নিরপেক্ষ সংবাদ চয়নের নৈব্যক্তিক অভিলাষ এবং দেশ ও জাতির বৃহত্তর স্বার্থকে জাগরণের চিরন্তন-ধ্বনিপুঞ্জ। অভিজ্ঞ, সৎ, নির্লোভ, পেশাদার নেতৃত্বে এক ঝাঁক তরুণ-মেধাবী কর্মীকে নিয়ে স্বাপ্নিক-প্রতিষ্ঠাতা আলমগীর হোসেনের উদ্যোগে গতানুগতিক, শ্লথ ও ধীরগতির মিডিয়া পরিস্থিতির পরিবর্তন সাধনের মাধ্যমে সার্বক্ষণিক-জীবন্ত তথ্যের ভিত্তিতে বিকল্প-মূলস্রোতের টোটাল সংবাদশক্তির উন্মেষের সেই রোমাঞ্চকর ঘটনা আজ ইতিহাসের অংশ। বার্তা২৪.কম নামের মিডিয়া জ্যোতিষ্কের উদ্ভাসনের পূর্বে বাংলাদেশের অনলাইন সাংবাদিকতার পথিকৃৎ-পুরুষ আলমগীর হোসেন পেছনে ফেলে এসেছেন সাফল্য কাহিনির বহু আখ্যান এবং সৃষ্টি করেছেন বাংলাদেশের অনলাইন মিডিয়ার একাধিক পোর্টাল। বাস্তব ও প্রায়োগিক অভিজ্ঞতায় মহীরুহসম ব্যক্তিত্বের প্রতিষ্ঠাতা-সম্পাদক আলমগীর হোসেনের আদি ও অকৃত্রিম সহযাত্রী প্রাজ্ঞ-প্রবীণ ও নবীন-তুকী-তরুণেরা বার্তা২৪.কম-এর দীপ্ত প্রথম-প্রকাশের মাধ্যমে কাঁপিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের সংবাদপত্র ও গণমাধ্যমের গতানুগতিক পাটাতন।

অভিজ্ঞতা ও অর্জনের স্বর্ণালী সংযোগ-সূত্রে অচীরেই আরও পরিশীলিত ও দৃষ্টিনন্দন সৌন্দর্যে প্রকাশ পায় বার্তা২৪.কম। চ্যালেঞ্জ পেরিয়ে ও নিজেকে প্রতিনিয়ত উত্তরণ ঘটিয়ে দ্বিতীয় বর্ষের সম্ভাবনাময় পথে অনলাইন ও মাল্টিমিডিয়া পোর্টাল বার্তা২৪.কম চলমান ও লাইভ কনটেন্টে জাতীয় তো বটেই, আন্তর্জাতিক বাংলাভাষী পাঠক সমাজে অন্যতম জনপ্রিয়-শীর্ষ নিউজ পোর্টাল; প্রতিদিনের এবং প্রতিমূর্হুতের সংবাদ মাধ্যম। তথ্য, সংবাদ, প্রবন্ধ, নিবন্ধ, ফিচার, সরেজমিন রিপোর্ট, মতামত দিয়ে সমাজ, সংস্কৃতি, রাজনীতি, অর্থনীতি, বিনোদনসহ মানবজীবন ও মানবমনের সকল অনুসঙ্গকে বাংলাদেশ ও পৃথিবীর লক্ষ-কোটি বাংলাভাষীদের সামনে তুলে ধরছে বার্তা২৪.কম স্বকীয় যোগ্যতায়, দ্রুততায়, দক্ষতায়, নিরপেক্ষতায়, অগ্রগণ্যতায় ও প্রাযুক্তিক কৃতিত্বে।

একটি সংবাদ মাধ্যমের জন্য একটি বছর খুব বেশি সময় নয়। কিন্তু এই সময়ের নিরিখে পাঠকের আস্থা ও বিশ্বাসের জায়গাটিতে পৌঁছে যাওয়া এবং বাংলাদেশের সমাজ প্রগতি ও জাতীয় উন্নয়নের নানা অঙ্গনে ইতিবাচক-প্রায়োগিক-ব্যবহারিকভাবে ভূমিকা রাখা  খুব সামান্য বিষয়ও নয়। মানুষের সিক্ত-ভালোবাসা তথা পাঠকের এই আস্থা ও বিশ্বাসের শক্তিই বার্তা২৪.কম-এর অন্তহীন কর্মপ্রচেষ্টাময়-পদযাত্রার সাহসিক প্রেরণা। মুক্তিযুদ্ধের অনির্বাণ চেতনা, স্বাধীনতার অবিরাম প্রেরণা এবং বাংলা ভাষা ও সংস্কৃতির মহান স্তম্ভ একুশের অন্তঃহীন প্রেষণায় বার্তা২৪.কম এ যাবত অর্জিত স্বর্ণালী-অভিজ্ঞতায় সর্বদা গতি, সত্য ও সাহসের প্রতীক হয়ে ভবিষ্যতের পথে প্রত্যয়দীপ্ত আলোবাহী প্রগতিশীল অভিযাত্রীরূপে পুনরুচ্চারণ করছে মাটি ও মানুষের প্রতি অঙ্গীকারের দীপ্ত শপথ: বাংলাদেশের সুমৃত্তিকার মুক্তইশতেহার রূপে বিশ্বব্যাপী বাংলাভাষার অপ্রতিরোধ্য মুক্তকণ্ঠী-তথ্য-সংযোগ-সেতু বিনির্মাণে প্রতীতি।


পেশাগত দায়িত্বের সঙ্গে প্রযুক্তির উৎকর্ষতা ও মানবিক বিবেচনাবোধের রাখিবন্ধনে বাংলাদেশের প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়া এবং সংবাদপত্রের গৌরবময় ইতিহাসের মুকুটে বার্তা২৪.কম নিজেকে একটি স্বর্ণালী পালকের মতো প্রতিস্থাপন করেছে পাঠকের ভালোবাসা আর আত্মপ্রত্যয়ের মিলিত শক্তিতে। প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর মাহেন্দ্রক্ষণে বার্তা২৪.কম দুর্নিবার তথ্য ও প্রযুক্তির গানে গানে মানুষের জয়গান গাইতে চায় কাল-কালান্তরে, বর্তমান এবং অনাগত ভবিষ্যতের প্রতিটি ক্ষণে, সঙ্কটে, সমস্যায়, অচলাবস্থায়, আশাবাদে। বাংলাদেশের মানব-অস্তিত্বের ঐতিহাসিক পথচলায় বার্তা২৪.কম সর্বাবস্থায় মৃত্তিকা ও মানুষের প্রকৃত জয়যাত্রার দিশারী; তথ্যময় বিশ্বায়নের দুনিয়ায় বার্তা২৪.কম বাংলাভাষি বাঙালির প্রধানতম-দ্রুততম সংবাদ-সঙ্গী; জ্ঞান, তথ্যময়তা ও অগ্রসরতার বিশ্বস্ত সারথি।

আপনার মতামত লিখুন :