Alexa

গ্রাহকের অনুপস্থিতিতে অ্যাকাউন্ট খুলেছে সাউথ বাংলা ব্যাংক!

গ্রাহকের অনুপস্থিতিতে অ্যাকাউন্ট খুলেছে সাউথ বাংলা ব্যাংক!

সাউথ বাংলা ব্যাংক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য কোন ব্যাংকের শাখায় গেলে ওই ব্যাংকের অ্যাকাউন্টধারী কোন ব্যক্তিকে দিয়ে নতুন অ্যাকাউন্ট খোলার আবেদনপত্রে শনাক্তকারীর স্বাক্ষর করাতে হয়।

শুধু শনাক্তকারীর স্বাক্ষরই যথেষ্ট নয়। অ্যাকাউন্টে একজন নমিনী মনোনীত করতে আবেদনপত্রের সঙ্গে জাতীয় পরিচয়পত্র ও এক কপি পাসপোর্ট আকারের ছবি দিতে হয়।

এসব তথ্যের বাইরেও অর্থ পাচার ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে অর্থায়ন প্রতিরোধে মানতে হবে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী অ্যাকাউন্ট খোলার আগে গ্রাহক সর্ম্পকে বিস্তারিত তথ্য নির্ধারিত কেওয়াইসি ফর্মে দিতে হবে।

আর এসব বিধি নির্দেশ উপেক্ষা করে এনআরবি কমার্সিশিয়াল ব্যাংকের উদ্যোক্তা পরিচালক আমির হোসেনের ভুয়া স্বাক্ষরের মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট অ্যাকাউন্ট খুলেছে বেসরকারিখাতের সাউথ বাংলা এগ্রিকালচারাল অ্যান্ড কমার্স ব্যাংক লিমিটেডের গুলশান শাখা।

শুধু নির্দেশনা উপেক্ষা নয়। হিসাব খোলার সময় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি দেশে ছিলেন, নাকি বিদেশে অবস্থান করেছেন তার স্বপক্ষে উপযুক্ত কোন প্রমাণ দিতে পারেনি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। আমির হোসেনের অ্যাকাউন্ট খোলার আবেদনপত্রের শনাক্তকারী মো. সওকত হোসেনও চেনেন না।

এসব কারণে বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, অ্যাকাউন্টধারী আমির হোসেনের অনুপুস্থিতিতেই সাউথ বাংলা ব্যাংক অ্যাকাউন্ট খুলেছে। সেই অ্যাকাউন্টে মাধ্যমে একটি ঋণ আবেদন করা হয়েছে। তুলে নেওয়া হয়েঠে প্রায় ২৫ কোটি টাকা। এই ঋণকে বেনামী বলে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট বিভাগ মতামত দিয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সুত্র জানায়, আটলান্টিক রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান উল্লেখ করে যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী আমির হোসেনের নামে একটি অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে ব্যাকের গুলশান শাখায়। আমির হোসেন এনআরবি কমার্সিশিয়াল ব্যাংকের একজন উদ্যোক্তা পরিচালক।

আমির হোসেনের মালিকানাধীন আটলান্টিক রিসাইক্লিং ইন্ডাষ্ট্রিজ লিমিটেডের নামে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচার অ্যান্ড কর্মাস ব্যাংকের গুলশান শাখায় অ্যাকাউন্ট খোলার তিনদিনের মাথায় ২০ কোটি টাকার একটি ঋণ আবেদন করা হয়। মঞ্জুরিপত্রের শর্ত শিথিল করে একদিন পর ঋণের পরিমাণ আরও ৫ কোটি টাকা বাড়ানোর সুপারিশ করে পরিচালনা পর্ষদ।

অনুমোদনের পর মঞ্জুরিপত্রের শর্ত ভঙ্গ করে ক্রেডিট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন ডিভিশনের লিখিত অনুমতি ছাড়াই ঋণের ১০ কোটি ছাড় করা হয়েছে। ঋণের ২৫ কোটি টাকার মধ্যে মাত্র ৭ লাখ টাকা স্থানান্তর করা হয়েছে আটলান্টিক রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের অ্যাকাউন্টে।

বাকি ২৪ কোটি ৯৩ লাখ টাকা সাউথ বাংলা এগ্রিকালচা অ্যান্ড কমার্স ব্যাংকের পরিচালক মাকসুদুর রহমানের মালিকানাধীন রতনপুর গ্রুপের একাধিক কর্মকর্তা বিভিন্ন শাখা হতে নগদ উত্তোলন করেছেন। এর মধ্যে কিছু অর্থ আবার রতুনপুর গ্রুপের মালিকানাধীন রেক্স মটরস’র হিসাবে জমা করা হয়েছে।

রতনপুর গ্রুপের মালিক মাকসুদুর রহমানের কন্যা আটলান্টিক রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের একজন পরিচালক। আটলান্টিক রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের মালিক আমির হোসেনের নামে ঋণ নিয়ে বেনিফিশিয়ারী হয়েছেন রতনপুর গ্রুপের মালিক মাকসুদুর রহমান।

মাকসুদুর রহমান আমির হোসেনের অনুপুস্থিতিতে ব্যাংক হিসাব খুলে এনআরবি কর্মাসিশিয়াল ব্যাংকের বেনামী শেয়ার বিক্রি বন্ধকের নাম করে নিজের ব্যাংক থেকে ২৫ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে ভিন্নখাতে অর্থ স্থানান্তর করেছেন।

এসব তথ্য উঠে এসেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিদর্শনে।

মাকসুদুর রহমান নিজের ব্যাংকে প্রভাব খাটিয়ে বেনামী প্রতিষ্ঠান আটলান্টিক রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের নামে গ্রহণ করা ঋণের কোন টাকা ফেরত দেন নাই। কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, অবিলম্বে আদায় না হলে তা মন্দমানে পরিণত হবে।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলেছেন, সর্বশেষ অনুমোদন পাওয়া ব্যাংকগুলোর মধ্যে সাউথ বাংলা এগ্রিকালচারাল অ্যান্ড কর্মাস ব্যাংকের প্রিন্সিপাল শাখা ছাড়াও ঢাকা ও ঢাকার বাইরের বেশ কয়েকটি শাখায় ঋণ বিতরণে অনিয়ম হয়েছে। 

এবিষয়ে সাউথ বাংলা অ্যাগ্রিকালচারাল অ্যান্ড কর্মাস ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) গোলাম ফারুক বলেন, গুলশান শাখার ঋণ হিসাবই এখন নিয়মিত আছে। আটলান্টিক রিসাইক্লিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ঋণ পরিশোধ করা হয়েছে কিনা তা খোঁজ নিয়ে জানাতে হবে।

অর্থনীতি এর আরও খবর