Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ৩১ আষাঢ় ১৪২৬

English Version

টেক্সটাইলে শ্রম পরিবেশ অশান্তের আশঙ্কা, নীরব মালিকপক্ষ

টেক্সটাইলে শ্রম পরিবেশ অশান্তের আশঙ্কা, নীরব মালিকপক্ষ
আন্দোলনরত শ্রমিকরা, ছবি: বার্তা২৪
ঊর্মি মাহবুব
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
ঢাকা
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বিভিন্ন এলাকায় টেক্সটাইল খাতের শ্রমিকরা আন্দোলনে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তার কিছুটা আভাস পাওয়া গেছে রোববার (১০ ফেব্রুয়ারি) গাজীপুরে মহাসড়ক অবরোধের ঘটনায়। কিন্তু এ বিষয়ে একেবারেই নীরব ভূমিকা পালন করছেন মালিকপক্ষ। এতে বিক্ষোভের আগুন আরও ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন এই খাতের সংশ্লিষ্টরাই।

রোববার সকালে গাজীপুরের মহাসড়ক প্রায় এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে টেক্সটাইল কারখানার শ্রমিকরা। তাদের দাবি, গত কয়েক বছর ধরে টেক্সটাইল শ্রমিকরা বেতন বৃদ্ধির দাবি করে আসছেন। কিন্তু মালিকপক্ষ শ্রমিকদের দাবি কর্ণপাত করেননি। ফলে বেতন বৃদ্ধির দাবিতে রাস্তায় নামতে বাধ্য হচ্ছেন তারা।

গাজীপুর গার্মেন্টস শিল্প ও টেক্সটাইল শিল্প অধ্যুষিত এলাকা হওয়ায় বাড়ি ভাড়া তুলনামূলক বেশি। তাছাড়া নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিষের দামও আগের থেকে বেড়েছে। বারবার মালিকপক্ষের কাছে বেতন বৃদ্ধির দাবি জানায় টেক্সটাইল শ্রমিকরা।

জবাবে মালিক কর্তৃপক্ষ তাদের জানান, গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি পেলে টেক্সটাইল শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধি পাবে। গার্মেন্টস শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধি পেলেও টেক্সটাইল শ্রমিকদের মজুরি বৃদ্ধি পায়নি। তাই নিজের অধিকার আদায়ে যে কোনো সময় শ্রমিকরা রাস্তায় নামবে বলে জানান গাজীপুরের কোনাবাড়ির যমুনা ডেনিমের শ্রমিক দিলীপ।

রোববার টেক্সটাইলের শ্রমিকরা রাজপথে নামলে টনক নড়ে মালিকপক্ষের। বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএমএ) উচ্চ পদস্থ নেতৃবৃন্দ এ বিষয়ে বৈঠকও করেছে বলে জানায় সংগঠনটির এক কর্মকর্তা।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে বিটিএমএ এর এক উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা বার্তা২৪.কমকে বলেন, আসলে গার্মেন্টস শিল্পের শ্রমিকদের বেতন কাঠামো যে পুনঃবিবেচনা করা হবে তা কেউ ভাবেনি। কিন্তু সরকারের হস্তক্ষেপে গার্মেন্টস শিল্পের শ্রমিকদের কিছু গ্রেডের বেতন বৃদ্ধি পেয়েছে। টেক্সটাইল শ্রমিকরা যখন দেখছেন তাদের নিম্নতম মজুরি ৬ হাজার ৩৫৪ টাকা। আর গার্মেন্টস শিল্পের শ্রমিকদের সর্বনিম্ন মজুরি ৮ হাজার ৩শ টাকা। সে কারণে তারা বেতন বৃদ্ধির দাবি জানাচ্ছে। কিন্তু টেক্সটাইল মালিকরা বেতন বৃদ্ধিতে রাজি নয়। এ বিষয়ে বিটিএমএ এর সভাপতি ম্যাকসন্স স্পিনিং মিলস লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আলী খোকন একাধিক বৈঠক করেছেন সদস্যদের সাথে।

তবে এসব বিষয়ে একেবারেই চুপ রয়েছেন মালিকপক্ষ। বিটিএমইএ এর সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকনের সাথে যোগাযোগ করা হলে তাঁর ব্যক্তিগত সহকারী বলেন, ‘স্যার এই বিষয়ে কোনো মন্তব্য করবেন না। তিনি মিটিংয়ে ব্যস্ত আছেন।’

অন্যদিকে, শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধির এই আন্দোলনে সব ধরণের সহায়তা করা হবে বলে জানিয়েছেন টেক্সটাইল গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স ফেডারেশন এর সাধারণ সম্পাদক তপন সাহা।

তিনি বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘টেক্সটাইল শ্রমিকদের বেতন বৃদ্ধির আন্দোলনটি প্রয়োজন ছিল। ৬ হাজার ৩৫৪ টাকায় কিছুতেই একজন মানুষ তার পরিবার পরিজন নিয়ে চলতে পারেন না। কিন্তু মালিকপক্ষের সে দিকে নজর নেই। শ্রমিকদের দিয়ে তারা মুনাফা আয় করবেন। কিন্তু শ্রমিকদের সময়োপযোগী নিম্নতম মজুরিও দিতে নারাজ তারা। এখনই এ সমস্যার সমাধান না করা গেলে এই আন্দোলন আরও বেড়ে যেতে পারে। এই আন্দোলনে আমরা শ্রমিকদের পাশে আছি। শ্রমিকদের প্রয়োজনীয় সকল সহায়তা দেওয়া হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

পিপলস লিজিংয়ের সঙ্গে ব্যাংকের লেনদেনে নিষেধাজ্ঞা

পিপলস লিজিংয়ের সঙ্গে ব্যাংকের লেনদেনে নিষেধাজ্ঞা
পিপলস লিজিং

পুঁজিবাজারে শেয়ার লেনদেন বন্ধের একদিন পর পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেডের (পিএলএফএসএল) সঙ্গে দেশের সব তফসিলি ব্যাংককে কোন ধরনের লেনদেন না করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

সোমবার (১৬ জুলাই) বাংলাদেশ ফিন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ) থেকে ‘গো এএমএল’ সফটওয়ারের মাধ্যমে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান ও বাজার বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক মো. আসাদুজ্জামান খান বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, বিএফআইইউ’র ‘গো এএমএল’ সফটওয়ারের মাধ্যমে পিপলস লিজিংয়ের সঙ্গে সব ধরনের লেনদেন বন্ধের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এখন প্রতিষ্ঠানটির সম্পদ বিষয়ক সব ধরনের সিদ্ধান্ত দেবেন আদালত।

পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেডের অবসায়ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে কত দিন সময় লাগতে পারে সে বিষয়ে সঠিক কোন তথ্য দিতে পারেননি তিনি।

পিপলস লিজিংয়ে ১ হাজার ১৩১ কোটি টাকা ঋণের মধ্যে খেলাপি ৭৪৮ কোটি টাকা, যা মোট ঋণের ৬৬ দশমিক ১৪ শতাংশ। ধারাবাহিক লোকসানের কারণে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এ প্রতিষ্ঠানটি ২০১৪ সালের পর থেকে কোন লভ্যাংশ দিতে পারেনি।

গত ২১ মে বাংলাদেশ ব্যাংক অর্থমন্ত্রণালয়ে পিপলস লিজিংয়ের অবসায়নের আবেদন করে। বাংলাদেশ ব্যাংকের আবেদনের প্রেক্ষিতে গত ২৬ জুন অর্থমন্ত্রণালয় তা অনুমোদন দেয়। গত ১০ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংক অবসায়নের বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে অবহিত করে।

এরই ধারাবাহিকতায় ১৪ জুলাই বাংলাদেশ ব্যাংক আদালতে অবসায়ক নিয়োগ দেওয়ার জন্য আবেদন করলে বাংলাদেশ ব্যাংকের উপ-মহাব্যাবস্থাপক মো. আসাদুজ্জামান খানকে সাময়িকভাবে অবসায়ক নিয়োগ দেন আদালত।

পিপলস লিজিংয়ের অবসায়নে দায়ের করা বাংলাদেশ ব্যাংকের এক আবেদনের প্রেক্ষিতে প্রতিষ্ঠানটির সাবেক ৯ পরিচালকসহ ১১ জনের হিসাব জব্দ করার নির্দেশ দেন হাইকোর্টের বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশিদ আলম সরকার।

যেসব ব্যক্তির ব্যাংক হিসাব ও স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে তারা হলেন- পিপলস লিজিংয়ের সাবেক পরিচালক এম মোয়াজ্জেম হোসেইন, নারগিস আলামিন, হোমাইরা আলামিন, আরেফিন সামসুল আলামিন, মোহাম্মদ ইউসুফ ইসমাইল, মতিউর রহমান, বিশ্বজিৎ কুমার রায়, খবিরুদ্দিন মিয়া, মোহাম্মদ সহিদুল হক এবং পিপলস লিজিংয়ের শীর্ষ দুই কর্মকর্তা কবির মুস্তাক আহমেদ ও নৃপেন্দ্র চন্দ্র পণ্ডিত। এ ১১ ব্যক্তির সম্পদ ও ব্যাংক হিসাবের ওপর কেন অন্তর্বর্তী নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হবে না, তা-ও জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

এমএফএস’র অপব্যবহার রোধে জয়পুরহাটে বিকাশের কর্মশালা

এমএফএস’র অপব্যবহার রোধে জয়পুরহাটে বিকাশের কর্মশালা
জয়পুরহাটে বিকাশের কর্মশালা, ছবি: সংগৃহীত

অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিসের (এমএফএস) মত গুরুত্বপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় সেবার ব্যবহার প্রতিরোধে করণীয় সম্পর্কে জয়পুরহাটে সমন্বয় কর্মশালা করেছে বিকাশ।

দেশের অন্যতম মোবাইল ফিনান্সিয়াল সার্ভিস দানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশের এ কর্মশালায় জয়পুরহাটের স্থানীয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতিনিধি, বিকাশের ডিস্ট্রিবিউটর ও এজেন্টরা অংশ নেন।

কর্মশালায় বিকাশের হেড অব এক্সটার্নাল অ্যাফেয়ার্স এ কে এম মনিরুল করিম, জয়পুরহাট জেলা পুলিশের এডিশনাল এসপি সাজ্জাদ হোসেন ও গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফরিদ হোসেইন উপস্থিত ছিলেন।

এমএফএস সেবার অপব্যবহার রোধ এবং এ বিষয়ে সচেতনতা তৈরিতে এজেন্টরা কি ধরনের পদক্ষেপ নিতে পারেন, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলো কীভাবে এমএফএস’র অপব্যবহার রোধে ভূমিকা পালন করতে পারে, সেসব বিষয়ে কর্মশালায় বিস্তারিত আলোকপাত করা হয়।

উল্লেখ্য, এমএফএস সেবার অপব্যবহার রোধে বিকাশ নিয়মিত দেশের বিভিন্ন জেলায় এজেন্ট ও ডিস্ট্রিবিউটরদের জন্য এ ধরনের কর্মশালা আয়োজন করে আসছে।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র