Alexa

সূচক কমে চলছে উভয় পুঁজিবাজারের লেনদেন

সূচক কমে চলছে উভয় পুঁজিবাজারের লেনদেন

ছবি: সংগৃহীত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবার সূচক কমে চলছে এদিনের কার্যক্রম। বেলা পৌনে ১২টা পর্যন্ত ডিএসই’র প্রধান সূচক ডিএসইএক্স বেড়েছে ১৭ পয়েন্ট। তবে সিএসসিএক্স বেড়েছে ৩ পয়েন্ট। ডিএসই ও সিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

ডিএসই

এদিন ডিএসইতে লেনদেনের শুরুতে সূচক কমে। লেনদেনের শুরুতেই বেলা ১০টা ৪০ মিনিটে ডিএসইএক্স সূচক কমে ৩৩ পয়েন্ট। বেলা ১০টা ৫০ মিনিটে সূচক কমার প্রবণতা কমতে থাকে। বেলা পৌনে ১১টায় সূচক ২৫ পয়েন্ট কমলেও এরপর ধীরে ধীরে আবারও কমতে থাকে। তবে বেলা পৌনে ১২টায় ডিএসই’র প্রধান সূচক ডিএসইএক্স গত কার্যদিবসের চেয়ে ২৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়ায় ৫ হাজার ৭৩৫ পয়েন্টে।

অন্যদিকে, ডিএসই-৩০ সূচক ১৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে ২ হাজার ৮ পয়েন্টে এবং ডিএসই শরিয়াহসূচক ৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করছে এক হাজার ৩১৩ পয়েন্টে।

এদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৬৬ কোটি ৭৩ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ড।

বেলা পৌনে ১২টা পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৪০টির, কমেছে ১৪১টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫১টি কোম্পানির শেয়ারের দাম।

এদিন বেলা পৌনে ১২টা পর্যন্ত ডিএসইতে দাম বৃদ্ধি পাওয়া শীর্ষ দশ কোম্পানির তালিকায় আছে- ইউনাইটেড পাওয়ার, ডোরিন পাওয়ার, ফরচুনা সু, মুন্নু সিরামিকস, স্টাইল ক্রাফট, জেএমআই সিরিঞ্জ, বাংলাদেশ সাবমেরিন কেবল, লিগ্যাসি ফুটওয়্যার, গ্রামীণ ফোন এবং জেনেক্সিল।

সিএসই

অন্যদিকে, একই সময়ে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ সূচক (সিএসইএক্স) ১৪ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৬৩১ পয়েন্টে, সিএসই-৩০ সূচক ২৩ পয়েন্ট কমে ১৫ হাজার ৩২৪ পয়েন্টে এবং সিএএসপিআই সূচক ২৪ পয়েন্ট কমে ১৭ হাজার ৫৭১ পয়েন্টে অবস্থান করে।

এদিন বেলা পৌনে ১২টা পর্যন্ত সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪ কোটি ৮৬ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিট।

একই সময়ে দাম বাড়ার ভিত্তিতের সিএসই’র শীর্ষ কোম্পানিগুলো হলো- প্যারামউন্ট টেক্সটাইল, মার্কেন্টাইল ইন্স্যুরেন্স, মেঘনা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজ, সমতা লেদার, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, প্রিমিয়ার ইন্স্যুরেন্স, বাংলাদেশ জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, ইস্টল্যান্ড ইন্স্যুরেন্স এবং ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স।

অর্থনীতি এর আরও খবর