বিজিএমইএ নির্বাচন শনিবার

ঊর্মি মাহবুব, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
বিজিএমইএ ভবন/ছবি: সংগৃহীত

বিজিএমইএ ভবন/ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) নির্বাচন হতে চলেছে প্রায় পাঁচ বছর পর। এ নিয়ে টান টান উত্তেজনা ছিল গত প্রায় এক বছর ধরে। ঘটেছে নানা ঘটনা-দুর্ঘটনাও। উঠেছে নানা গুজব।

এ সব কিছুর অবসান হতে চলেছে আর কয়েক ঘণ্টা পরেই। শনিবার (৬ এপ্রিল) সকাল ৮টায় বিজিএমইএ ভবনের নুরুল কাদের অডিটোরিয়ামে শুরু হবে ভোটগ্রহণ। চলবে টানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত।

অন্যদিকে, চট্টগ্রাম অঞ্চলের ভোটাররা বিজিএমইএ’র স্থানীয় কার্যালয়ে ভোট দিতে পারবেন একই সময়ে। বিজিএমইএ’র মোট ভোটার এক হাজার ৯৯৫ জন। এর মধ্যে ঢাকা অঞ্চলের ভোটার রয়েছেন এক হাজার ৫৯৭ জন। অন্যদিকে, চট্টগ্রাম অঞ্চলের ভোটার রয়েছেন ৩৫৯ জন।

বিজিএমইএ’র মোট পরিচালক পদ রয়েছে ৩৫টি। ঢাকা অঞ্চলের ২৬টি পরিচালক পদের বিপরীতে লড়াই করবেন ৪৪ জন প্রার্থী। এর মধ্যে সম্মিলিত পরিষদ-ফোরাম জোট প্রার্থী রয়েছেন ২৬ জন ও স্বাধীনতা পরিষদ প্রার্থী রয়েছেন ১৮ জন।

অন্যদিকে, চট্টগ্রাম অঞ্চলের নয় পরিচালক বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এই নয়জনই সম্মিলিত পরিষদ-ফোরাম প্যানেলের সদস্য। স্বাধীনতা পরিষদ থেকে চট্টগ্রামে কোনো প্রার্থী দেওয়া হয়নি।

সম্মিলিত পরিষদ-ফোরাম প্যানেলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন মোহাম্মাদী গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রুবানা হক। অন্যদিকে ডিএসএল গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জাহাঙ্গীর আলমে নেতৃত্বে চলছে স্বাধীনতা পরিষদ।

শেষ মুহূর্তে ভোটারদের হিসাব নিকাশ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন প্রার্থীরা। আনুষ্ঠানিক প্রচারণা বন্ধ থাকলেও ওয়ান টু ওয়ান যোগাযোগ করছেন ভোটারদের সঙ্গে। জয়ের মালা পড়তে মরিয়া উভয় পক্ষই।

সম্মিলিত পরিষদ-ফোরাম জোট থেকে নির্বাচন করছেন যারা তারা হলেন-রুবানা হক, আসিফ ইব্রাহিম, এস এম মান্নান, মোহাম্মদ নাছির, ফয়সাল সামাদ, মোশারফ হোসেন ঢালী, আরশাদ জামাল, এম এ রহিম, কে এম রফিকুল ইসলাম, মো. শহীদুল হক, মশিউল আজম, নজরুল ইসলাম, মোহাম্মদ আবদুল মোমেন, ইনামুল হক খান, মাসুদ কাদের, ইকবাল হামিদ কোরাইশী, নাছির উদ্দিন, কামাল উদ্দিন, শিহাব উদ্দোজা চৌধুরী সাজ্জাদুর রহমান মৃধা, রেজওয়ান সেলিম, মুনির হোসেন, এ কে এম বদিউল আলম, মিরান আলী, মহিউদ্দিন রুবেল ও শরীফ জহির।

স্বাধীনতা পরিষদ প্রার্থীরা হলেন- মো. জাহাঙ্গীর আলম, দেলোয়ার হোসেন, হুমায়ুন রশিদ, সাইফুল ইসলাম, ওমর নাজিম হেকমত, আয়েশা আক্তার, শওকত হোসেন, খন্দকার ফরিদুল আকবর, জাহাঙ্গীর কবির, জাহিদ হাসান, কাজী আবদুস সোবহান, জহিরুল ইসলাম, কাজী মাহয্যাবিন মমতাজ, মাহমুদ হোসাইন, শরিফুল আলম চৌধুরী, হোসেন সাব্বির মাহমুদ, রফিক হাসান ও মো. ওয়ালীউল্লাহ।

স্বাধীনতা পরিষদ প্যানেল নেতা মো. জাহাঙ্গীর আলম বার্তা২৪.কমকে বলেন, দেখুন যে যাই বলুক নির্বাচনের পরই বোঝা যাবে ভোটাররা কাদের চাইছে। আমরা চেয়েছিলাম, ভোটারদের ভোটের অধিকার ফিরিয়ে দিতে। সেটা আমরা পেরেছি। এটাই আমাদের সফলতা। জয় আমাদের হবেই।

আপনার মতামত লিখুন :