Barta24

মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯, ১ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বৈধ ভবনে আসা বিজিএমই’র বড় সফলতা

বৈধ ভবনে আসা বিজিএমই’র বড় সফলতা
বক্তব্য রাখছেন বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, ছবি: বার্তা২৪
সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট
ঢাকা
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

হাতিরঝিলের অবৈধ ভবন থেকে বৈধ ভবনে আসতে পেরেছি এটা আমার বড় সফলতা বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রফতানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) রাজধানীর উত্তরায় বিজিএমইএ'র নবনির্মিত কমপ্লেক্সে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার অর্থনৈতিক রিপোর্টারদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমি বিজিএমইএর সভাপতি হিসেবে ৩ বছর ৭ মাস দায়িত্ব পালন করেছি। এ সময়ে সব চেয়ে বড় সফলতা হলো হাতিরঝিলের অবৈধ ভবন থেকে রাজধানীর উত্তরায় বিজিএমইএ’র বৈধ ভবনে আসতে পেরেছি। নতুন ভবনে আর কোনো আইনি ত্রুটি নেই। নতুন ভবনের জায়গা নিয়ে আগামীতে আর কেউ প্রশ্ন করতে পারবে না। সব ধরনের আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করে ভবন করা হচ্ছে।’

হাতিরঝিল ভবন নিয়ে দুঃখ করে বলেন, ‘ভবনটি নিয়ে সব চেয়ে বড় ভুল করেছে ইপিবি। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা থাকা সত্ত্বেও তারা আমাদেরকে সঠিক জায়গায় জমি বুঝিয়ে দেননি। এটা ভালোভাবে বুঝে নিতে না পারাটাও আমাদের ব্যর্থতা ছিল।’

সভায় বিজিএমইএ এর সিনিয়র সহ-সভাপতি ফারুক হাসান, সহ-সভাপতি এস.এস. মান্নান (কচি), সহ-সভাপতি (অর্থ) মোহাম্মদ নাছির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত লিখুন :

ব্যাংক এশিয়ার ৫০০ কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন

ব্যাংক এশিয়ার ৫০০ কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন
ছবি: সংগৃহীত

পুঁজিবাজারের তালিকাভুক্ত ব্যাংক এশিয়ার ৫০০ কোটি টাকার নন-কনভার্টেবল সাবঅর্ডিনেটেড বন্ডের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) কমিশনের ৬৯৩তম সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমান সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, সাত বছর মেয়াদী এই বন্ডের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে নন-কনভার্টেবল, আনলিস্টেড, ফুল্লি রিডেম্বল, ফ্লাটিং রেটেড এবং সাবঅর্ডিনেটেড বন্ড। সাত বছরে বন্ডটি পূর্ণ অবসায়ন হবে। যা শুধুমাত্র স্থানীয় আর্থিক প্রতিষ্ঠান, বিমা কোম্পানি, করপোরেট বডি এবং যোগ্য বিনিয়োগকারীদের মধ্যে প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে ইস্যু করা হবে।

উল্লেখ্য, এই বন্ড ইস্যুর মাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে অর্থ উত্তোলন করে ব্যাংক এশিয়ার টায়ার-টু মূলধন ভিত্তি শক্তিশালী করবে। এই বন্ডের প্রতিটি ইউনিটির অভিহিত মূল্য এক কোটি টাকা। এই বন্ডের ম্যানডেটেড লিড অ্যারেঞ্জার এবং ট্রাস্টি হিসাবে যথাক্রমে স্ট্যান্ডার্ড চাটার্ড ব্যাংক এবং গ্রিন ডেল্টা ইনস্যুরেন্স কাজ করছে।

ক্যাপটেক পপুলার ইউনিট ফান্ডের খসড়া অনুমোদন

ক্যাপটেক পপুলার ইউনিট ফান্ডের খসড়া অনুমোদন
ছবি: সংগৃহীত

ক্যাপটেক পপুলার লাইফ ইউনিট ফান্ডের খসড়া প্রসপেক্টাস অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) কমিশনের ৬৯৩ তম সভায় এ অনুমোদন নেওয়া হয়েছে। বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমান সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, বে-মেয়াদী মিউচুয়াল ফান্ডটির প্রাথমিক লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ২৫ কোটি টাকা। ফান্ডটির উদ্যোক্তার অংশ পাঁচ কোটি টাকা এবং সকল বিনিয়োগকারীদের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে ২০ কোটি টাকা। যা ইউনিট আকারে বিক্রির মাধ্যমে উত্তোলন করা হবে।

ফান্ডটির প্রতিটি ইউনিটের অভিহিত মূল্য ১০ টাকা। ফান্ডটির উদ্যোক্তা পপুলার লাইফ ইনস্যুরেন্স এবং সম্পদ ব্যবস্থাপক ক্যাপটেক অ্যাসেট ম্যানেজমেন্ট। এছাড়াও ফান্ডটির ট্রাস্টি ও কাস্টডিয়ান হিসেবে কাজ করছে ইনভেস্টমেন্ট কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র