সামা‌জিক সুরক্ষায় বরাদ্দ বেড়েছে যেসব খাতে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪

ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

২০১৯-২০২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে সামাজিক সুরক্ষায় বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৭৪ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা। যা মোট বাজেটের ১৪ দশমিক ২১ শতাংশ এবং মোট জিডিপির ২ দশমিক ৫৮ শতাংশ। গেল বাজেটে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ৬৪ হাজার ৬৫৬ কোটি টাকা। যা গত বছরের তুলনায় বেড়েছে ৯ হাজার ৭১১ কোটি টাকা।

এছাড়া প্রস্তাবিত বাজেটে বেড়েছে বিভিন্ন ভাতার হার। একই সঙ্গে বেড়েছে ভাতাভোগীর সংখ্যাও। মুক্তিযোদ্ধাদের বিদ্যমান সম্মানী ভাতা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। সামাজিক সুরক্ষার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধীদের উন্নয়নে বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) বিকেলে জাতীয় সংসদ ভবনে বাজেট বক্তৃতায় এসব প্রস্তাব পেশ করা হয়।

সামাজিক সুরক্ষায় প্রস্তাবিত বরাদ্দের মধ্যে মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২ হাজার টাকা বৃদ্ধি করে ১০ হাজার থেকে ১২ হাজার টাকা করা হয়েছে, বয়স্ক ভাতাভোগীর সংখ্যা ৪০ লাখ থেকে উন্নিত করে ৪৪ লাখ টাকা করা হয়েছে।

অন্যদিকে, বিধবা ও স্বামী নিগৃহীতা ভাতাভোগী জনগোষ্ঠির সংখ্যা ১৪ লাখ থেকে ১৭ লাখ, অস্বচ্ছল প্রতিবন্ধী গোষ্ঠীদের ভাতা দেওয়ার লক্ষ্যে ১০ লাখ থেকে ১৫ দশমিক ৪৫ লাখ, উপকার ভোগী হিজড়া গোষ্ঠির সংখ্যা ৬ হাজার, বেদে ও অনগ্রসর গোষ্ঠীর সংখ্যা ৬৪ হাজার থেকে ৮৪ হাজার, চা শ্রমিক উপকার ভোগীর সংখ্যা ৪০ হাজর থেকে ৫০ হাজার, দরিদ্র মায়ের জন্য মাতৃকালীন ভাতাভোগীর সংখ্যা ৭ লাখ থেকে ৭ লাখ ৭০ হাজার, কর্মজীবী ল্যাকরটটিং মাদার সহায়তার আওতায় উপকারভোগীর সংখ্যা ২ লাখ ৫০ হাজার থেকে ২ লাখ ৭৫ হাজারে উন্নীত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: প্রতিবন্ধীসহ পিছিয়ে পড়াদের জন্য বাজেট

এছাড়া ক্যান্সার, কিডনি, লিভার, সিয়সিস, স্ট্রক প্যারালাইজড ও জন্মগত হৃদরোগী উপকারভোগীর সংখ্যা ১৫ হাজার থেকে ৩০ হাজারে উন্নীত করা হয়েছে।

বাড়ানো হয়েছে উপকারভোগী প্রতিবন্ধীদের সংখ্যা। প্রতিবন্ধী উপবৃত্তি পাওয়া উপকারভোগীর সংখ্যা ৯০ হাজার হতে ১ লাখে বৃদ্ধি করে তাদের উপবৃত্তির হার নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। যেখানে প্রথমিক স্তরে ৭০০ থেকে ৭৫০ টাকা, মাধ্যমিকে ৭০০ থেকে ৮০০ টাকা, উচ্চ মাধ্যমিকে ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকা করা হয়েছে।

বিগত বাজেট থেকে জানা যায়, ২০০৫-৬ অর্থবছরে সামাজিক নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ ছিল মাত্র ৩৭৩ কোটি ২০ লাখ টাকা। ২০০৫ সালে ১৩ শতাংশ পরিবার সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির সুবিধা ভোগ করত, ২০১৬ সালে এ হার ২৮ দশমিক ৭ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। গত ২০১৬-১৭ সালে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ১৯ হাজার ২৯১ কোটি টাকা, যা ছিল মোট বাজেটের ৫ দশমিক ২ শতাংশ। এর আগে ২০১৫-১৬ অর্থবছরে এ খাতে বরাদ্দ ছিল ১৭ হাজার ৮০ কোটি টাকা।

আপনার মতামত লিখুন :