বর্ধিত রাজস্ব অর্জনই সরকারের বড় চ্যালেঞ্জ: এমসিসিআই

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) বর্ধিত ৩ লাখ ২৫ হাজার ৬০০ কোটি টাকার রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য অর্জনই সরকারের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হবে বলে মনে করেছে মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি।

শুক্রবার (১৪ জুন) গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বাজেট পরবর্তী আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এবারের রাজস্ব লক্ষ্য ২০১৮-১৯ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের (২ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা) চেয়ে ১৬ দশমিক ২৯ শতাংশ বেশি। এমসিসিআই উদ্বিগ্ন যে, এ রাজস্ব লক্ষ্য বর্তমান কর প্রদানকারীদের ওপর অতিরিক্ত চাপ প্রয়োগ করবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, বাংলাদেশের অর্থনীতি সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সেই অগ্রগতি সত্যিকার সম্ভাবনার থেকে অনেক নিচে। অপর্যাপ্ত অবকাঠামো, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি স্বল্পতা এবং আমলাতান্ত্রিক জটিলতা বর্তমানে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে বড় বাধা। একই সঙ্গে রাজস্ব সংগ্রহে ঘাটতি এবং বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) দুর্বল বাস্তবায়ন অর্থনীতির জন্য দুশ্চিন্তার বিষয়।

এমসিসিআই মনে করে, যদি বাংলাদেশ ২০২১ সাল নাগাদ মধ্য আয়ের দেশের অবস্থান নিশ্চিত করতে চায়, তাহলে বৈদেশিক বিনিয়োগসহ সব ধরনের বেসরকারি বিনিয়োগ বাড়ানোর কোনো বিকল্প নেই। উচ্চ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পূর্ব শর্তই হচ্ছে উচ্চমাত্রায় বিনিয়োগ।

পুঁজিবাজারকে চাঙা করার সরকারের ইচ্ছাকে এমসিসিআই সাধুবাদ জানাচ্ছে। কিন্তু স্টক ডিভিড্যান্টের উপর ১৫ শতাংশ কর আরোপ করায় এমসিসিআই উদ্বিগ্ন। যা তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোকে মূলধন তৈরি ও পুনবিনিয়োগে নিরুৎসাহিত করতে পারে।

কমপক্ষে ৫ শতাংশ মুদ্রাস্ফীতি সত্ত্বেও বিগত ৪ বছর যাবত করমুক্ত সর্বনিম্ন আয়সীমা অপরিবর্তিত রয়েছে। এই করমুক্ত সর্বনিম্ন আয়সীমা বাড়ানো উচিৎ বলেও মনে করে এমসিসিআই।

আপনার মতামত লিখুন :