সংগীত ভুবনে নতুন আকর্ষণ 'ইয়ামাহা মিউজিক' শো-রুম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
যমুনা ফিউচার পার্কের চতুর্থ তলার ইস্ট কোর্টে 'ইয়ামাহা মিউজিক' -এর উদ্বোধন করা হয়/ ছবি: বার্তা২৪

যমুনা ফিউচার পার্কের চতুর্থ তলার ইস্ট কোর্টে 'ইয়ামাহা মিউজিক' -এর উদ্বোধন করা হয়/ ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

সংগীত ভুবনে নতুন আকর্ষণ নিয়ে এলো 'ইয়ামাহা মিউজিক' শো-রুম, যার মূল আকর্ষণ গ্রান্ড পিয়ানো ডিসপ্লে জোন, সাউন্ডপ্রুফ স্টুডিও এবং এক্সপেরিয়েন্স জোন।

 

এই প্রথম বাংলাদেশে মিউজিক্যাল শো-রুম গ্রাহকদের জন্য এই সুবিধাগুলোর ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এছাড়া, কেনার আগে গ্রাহকরা বিশ্বসেরা ইয়ামাহা কোয়ালিটি সাউন্ডের অভিজ্ঞতা নিতে পারবেন এই শো-রুমে।

এর মধ্য দিয়ে প্রথমবারের মত সংগীতের ভুবনে পদার্পণ করল এসিআই মটরস্।

সম্প্রতি সংগীতপ্রেমী এবং সংগীতজ্ঞদের জন্য এসিআই মটরস্ যমুনা ফিউচার পার্কের চতুর্থ তলার ইস্ট কোর্টে উদ্বোধন করা হয় এক্সক্লুসিভ ‌'ইয়ামাহা মিউজিক' শো-রুম। এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) ও শুক্রবার (৫ জুলাই) আয়োজন করা হয় 'ইয়ামাহা মিউজিক' -এর শো-রুম ‘লঞ্চ ফেস্টিভাল’।

আয়োজনের প্রথম দিন ছিল মিউজিশিয়ান রায়েফ আল হাসান রাফা, আন্তর্জাতিক ইয়ামাহা প্রশিক্ষক ইউকি শিমাদা এবং ইয়ামাহা মিউজিক বাংলাদেশ টিমের চমক।

শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে 'ইয়ামাহা মিউজিক' শো-রুমের পর্দা উন্মোচন করা হয়। এরপর ক্রেতা ও দর্শনার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে শো-রুমটি। অনেকেই ঘুরে দেখেন সংগীত জগতের এই নতুনত্বকে।

এসিআই মটরস্ -এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. এফ এইচ আনসারি
এসিআই মটরস্ -এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. এফ এইচ আনসারি

 

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসিআই মটরস্ -এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. এফ এইচ আনসারি বলেন, আমরা এসিআই -এর মিশনে বলেছি যে- মানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নয়নের জন্য দায়িত্বশীলভাবে প্রযুক্তি প্রয়োগ করি। তারই অংশ হিসাবে শুক্রবার মিউজিক্যাল শো-রুম চালু করলাম। অনেক বড় স্বপ্ন মাথায় নিয়ে কাজটি শুরু হয়েছে। আমাদের দেশের ছেলে-মেয়েরা স্কুল থেকে বাসায় ফিরে তেমন কিছু করার থাকে না। জন্মদিনের পার্টি হলে হয় একটি মোবাইল ফোন নয়তো প্লাস্টিকের একটি বন্দুক তার হাতে তুলে দেওয়া হয়। আজ আমরা একটা অপশন তৈরি করলাম। যার ফলে বাচ্চারা জন্মদিনের পার্টিতে বাবা-মায়ের কাছ থেকে একটি মিউজিক্যাল ইন্সট্রুমেন্ট পাবে। যে বাচ্চারা কিনতে পারবে না, তারা আমাদের শো-রুমে আসতে পারবে, ইন্সট্রুমেন্ট ধরতে পারবে, দেখতে পারবে। সেখান থেকেই বাচ্চাদের এক্সট্রা কারিকুলাম একটিভিটিজ ও সোশ্যাল ক্যাপিটাল গ্রো করবে। এটা একটা বিরাট উদ্যোগ। আমরা এর জন্য সরকারি, সামাজিক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সাপোর্ট চাই।

ইয়ামাহা করপোরেশনের গ্রুপ ম্যানেজার তাকাও সুজুকি বলেন, এই শো-রুমটি উদ্বোধনের ফলে দেশের সংগীতের নতুন একটি প্রযুক্তি সংযুক্ত হলো। আমি বিশ্বাস করি, এই শো-রুমটি ক্রেতাদের মন জয় করে প্রথম অবস্থানে থাকবে। ইয়ামাহা এ ধরনের নতুন নতুন প্রযুক্তিগত বিষয় বাংলাদেশের বাজারে আনতে চায়। আমাদের এ ধরনের আরো নতুন নতুন উদ্যোগ নেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে।

Yamaha
'ইয়ামাহা মিউজিক' শো-রুমের প্রথম ক্রেতা এই শিশুটির হাতে ইন্সট্রুমেন্ট তুলে দেওয়া হয়

 

এসিআই মটরস্ -এর নির্বাহী পরিচালক সুব্রত রঞ্জন দাস বলেন, আমরা এসিআই গ্রুপ মূলত খাদ্য নিরাপত্তা ও খাদ্য উৎপাদন নিয়ে কাজ করি। মিউজিকও এখন সামাজিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হয়ে উঠেছে। সৃজনশীল জাতি গঠনে এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সে বিষয়টি মাথায় রেখেই আমরা এই বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা বিশ্বমানের মিউজিক ইন্সট্রুমেন্ট ক্রেতাদের হাতে তুলে দিচ্ছি। আমাদের শো-রুমে কর্মরত দক্ষ বিক্রয়প্রতিনিধিরা ক্রেতাদের সব প্রকার সহযোগিতা ও ট্রেনিং সার্ভিসও দেবে। আশা করি, ভবিষ্যতে এ ধরনের বিশ্বমানের আরও নতুন নতুন উদ্যোগ নিয়ে আসতে পারব।

উল্লেখ্য, এসিআই মটরস্ ইয়ামাহা করপোরেশন প্রস্তুতকৃত মিউজিক্যাল সামগ্রীর একমাত্র ডিস্ট্রিবিউটর।

আপনার মতামত লিখুন :