Barta24

বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ২ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

নুসরাত হত্যা মামলা নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে বদলি

নুসরাত হত্যা মামলা নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইব্যুনালে বদলি
নুসরাত জাহান রাফি / ছবি: সংগৃহীত
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ফেনীর সোনাগাজীর মাদরাসাছাত্রী নুসরাত হত্যা মামলাটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে বদলি করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) দুপুরে মামলার ধার্য তারিখে ফেনীর আমলি আদালতের বিচারিক হাকিম মো. জাকির হোসাইন মামলাটির বদলির আদেশ দেন। আদেশে আগামী ১০ জুন মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়েছে।

মামলায় অধ্যক্ষ এস এম সিরাজ উদদৌলাসহ ১৬ জনের মৃত্যুদণ্ড চেয়েছে পুলিশ।

চার্জশিটে থাকা মামলার অন্য আসামিরা হলেন, নুর উদ্দিন (২০), শাহাদাত হোসেন শামীম (২০) , সাইফুর রহমান মোহা্মাদ জোবায়ের (২১), মাকসুদ আলম (৫০), জাবেদ হোসেন (১৯), হাফেজ আব্দুল কাদের (২৫), আফছার উদ্দিন (৩৩), কামরুন নাহার মনি (১৯), উম্মে সুলতানা পপি (১৯), আব্দুর রহিম শরীফ (২০), ইফতেখার উদ্দিন রানা (২২), ইমরান হোসেন মামুন( ২২)

আদালত সূত্রে জানা যায়, এ সময় ওই মামলায় আদালতে দাখিল করা অভিযোগপত্রভুক্ত ১৬ জনসহ গ্রেফতার ২১ আসামির সবাই উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া মামলার বাদী নুসরাতের ভাই আবদুল্লাহ আল নোমানও আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন: নুসরাত হত্যা মামলা: আদালতে চার্জশিট দাখিল

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ২৭মার্চ সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদরাসার আলিম পরীক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফিকে যৌন নিপীড়নের দায়ে ওই মাদরাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলার নামে থানায় অভিযোগ করা হয়। পরে পুলিশ মাদরাসা অধ্যক্ষ সিরাজ উদ-দৌলাকে আটক করে। পরে ৬ এপ্রিল ওই মাদরাসা কেন্দ্রের সাইক্লোন শেল্টারের ছাদে নিয়ে অধ্যক্ষের সহযোগিরা তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। টানা ৫ দিন মুত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে মারা যায় নুসরাত জাহান রাফি।

আপনার মতামত লিখুন :

সিরাজগঞ্জে ট্রেন-মাইক্রোবাস সংঘর্ষ: নিহতদের ক্ষতিপূরণ দিতে নোটিশ

সিরাজগঞ্জে ট্রেন-মাইক্রোবাস সংঘর্ষ: নিহতদের ক্ষতিপূরণ দিতে নোটিশ
সিরাজগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় মাইক্রোবাসের ১১ যাত্রী নিহত, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় বর-কনেসহ নিহত ১১ জনের প্রত্যেকের পরিবারকে এক কোটি টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। এছাড়া আহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ১০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণও দিতে বলা হয়েছে নোটিশে।

নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করা না হলে উচ্চ আদালতে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে।

রেল সচিব, স্থানীয় সরকার সচিব, রেলওয়ের মহাপরিচালক, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) প্রধান প্রকৌশলীর প্রতি এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) মানবাধিকার সংগঠন ল অ্যান্ড লাইফ ফাউন্ডেশনের পক্ষে রেজিস্ট্রি ডাকযোগে নোটিশটি পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী হুমায়ুন কবির পল্লব।

নোটিশে গত ১৫ জুলাইয়ের ঘটনায় ক্ষতিপূরণ চাওয়া সহ নতুন করে রেলের লেভেল ক্রসিং নির্মাণ, অবৈধ লেভেল ক্রসিং বন্ধ, রেলের গেটম্যানদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা এবং ট্রেনের ছাদে যাত্রী তোলা বন্ধ করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৫ জুলাই সন্ধ্যায় সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় রাজশাহী থেকে ঢাকাগামী পদ্মা ট্রেনের সঙ্গে একটি বিয়ের মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে বর-কনেসহ ১১ জন নিহত এবং ৩ জন আহত হন।

আরও পড়ুন: সিরাজগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় মাইক্রোবাসের ৯ যাত্রী নিহত

মশা নিধনের ওষুধ ক্রয়ে দুর্নীতি, ব্যবস্থার নির্দেশ

মশা নিধনের ওষুধ ক্রয়ে দুর্নীতি, ব্যবস্থার নির্দেশ
ছবি: সংগৃহীত

ঢাকার দুই সিটিতে মশা নিধনে অকার্যকর ওষুধ কেনা দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া আগামী ২০ আগস্টের মধ্যে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বুধবার (১৭ জুলাই) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে ছিলেন, আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন- অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বি এম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

শুনানিতে আদালত বলেন, 'মশা মারতে যে ওষুধ কেনা হয়েছে, সে ওষুধে তো কাজ হয় না। ওখানে কি দুর্নীতি হয়েছে? দুর্নীতি হয়ে থাকলে কারা কারা দুর্নীতির জন্য দায়ী তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন।'

রাজধানীসহ সারাদেশে এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরে ২১-২২ জন মানুষ মারা গেছে উল্লেখ করে হাইকোর্ট বলেছেন, 'মহামারী হতে বাকি নেই।'

শুনানির একপর্যায়ে সিটি করপোরেশনের আইনজীবী নূরুন নাহার নূপুর আদালতকে বলেন, 'পত্রিকায় ডেঙ্গু নিয়ে প্রকাশিত খবরগুলো পড়লে খারাপ লাগে। কিন্তু দুর্নীতিবাজদের খারাপ লাগে না। তাদের ছেলেমেয়েরা বাইরে লেখাপড়া করে, সেখানে বাড়িঘর করে।'

আদেশের পরে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ বলেন, 'সিটি করপোরেশন মশা নিয়ন্ত্রণে যে ব্যবস্থা নিচ্ছে সেটা অকার্যকর। তারপরও সে ওষুধগুলো তারা দিচ্ছে। ওষুধ কিনতে ২০/২২ কোটি টাকার খরচ হচ্ছে। এগুলো দুর্নীতির মাধ্যমে নেওয়া হচ্ছে। যারা এ কাজ করছে তাদের বিরুদ্ধে সিটি করপোরশেন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না।'

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র