আরও ১১ কোম্পানির দুধ উৎপাদনে বাধা কাটলো

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

আরও ১১ ব্র্যান্ডের পাস্তুরিত দুধ উৎপাদন ও বিপণনে আইনগত বাধা নেই। বিএসটিআই অনুমোদিত আড়ং, প্রাণ ও ফার্ম ফ্রেশসহ ১৪ ব্যান্ডের পাস্তুরিত দুধ উৎপাদন ও বিপণন পাঁচ সপ্তাহ বন্ধ রাখার হাইকোর্টের আদেশ ৮ সপ্তাহ স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত।

এর আগে মিল্ক ভিটা, প্রাণ মিল্ক ও ফার্ম ফ্রেশ মিল্কের ক্ষেত্রেও হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেছিলেন চেম্বার জজ আদালত। ফলে ১৪ ব্র্যান্ডই যথারীতি দুধ উৎপাদন ও বিপণন করতে পারবে।

হাইকোর্টের আদশ স্থগিত চেয়ে ১১ কোম্পানির করা আবেদনের শুনানি শেষে বুধবার (৩১ জুলাই) আপিল বিভাগের চেম্বার জজ বিচারপতি মো. নুরুজ্জামান এ আদেশ দেন।

আদালতে ১১ কোম্পানির পক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

সোমবার বাংলাদেশ দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় ইউনিয়ন লিমিটেডের (মিল্ক ভিটার) আবেদনে প্রথম স্থগিতাদেশ দেন চেম্বার জজ আদালত। এরপর মঙ্গলবার প্রাণ মিল্ক ও ফার্ম ফ্রেশ মিল্কের ক্ষেত্রে স্থগিতাদেশ দেন আদালত।

রোববার (২৮ জুলাই) বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ড অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউট (বিএসটিআই) অনুমোদিত আড়ং, প্রাণ ও ফার্ম ফ্রেশসহ ১৪ ব্যান্ডের পাস্তুরিত দুধ উৎপাদন ও বিপনন পাঁচ সপ্তাহ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। পাশাপাশি পাস্তুরিত দুধ কেনা ও বিক্রিতে সতর্ক থাকতে বলেন। এ ১৪ ব্যান্ডের উৎপাদিত দুধে মানবদেহের জন্য ক্ষতির অ্যান্টিবায়োটিক ও ধাতব উপাদানের (সিসা) উপস্থিতি থাকায় আদালত এ নিষেধাজ্ঞা দেন।

১৪টি ব্যান্ড হলো—আফতাব মিল্ক অ্যান্ড মিল্ক প্রোডাক্ট লিমিটেডের ‘আফতাব’, আকিজ ফুড অ্যান্ড বেভারেজ লিমিটেডের ‘ফার্ম ফ্রেশ মিল্ক’, আমেরিকান ডেইরি লিমিটেডের ‘মো’, বাংলাদেশ মিল্ক প্রোডিউসার কো অপারেটিভ ইউনিয়ন লিমিটেডের ‘মিল্ক ভিটা’, বারো আউলিয়া ডেইরি মিল্ক অ্যান্ড ফুডস লিমিটেডের ‘ডেইরি ফ্রেশ’, ব্র্যাক ডেইরি অ্যান্ড ফুড প্রোডাক্টের ‘আড়ং ডেইরি’, ডেনিশ ডেইরি ফার্ম লিমিটেডের ‘আয়রান’, ইছামতি ডেইরি ফার্ম অ্যান্ড ফুড প্রোডাক্টসের ‘পিউরা’, ঈগলু ডেইরি লিমিটেডের ‘ঈগলু; , প্রাণ ডেইরি লিমিটেডের ‘প্রাণ মিল্ক’, উত্তরবঙ্গ ডেইরি লিমিটেডের ‘মিল্ক ফ্রেশ’, শিলাইদহ ডেইরির ‘আল্ট্রা’, পূর্ববাংলা ডেইরি ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ এবং তানিয়া ডেইরি অ্যান্ড ফুড প্রোডাক্টসের ‘তানিয়া’।

আদালতের নির্দেশে চারটি গবেষণা প্রতিবেদনের পর শুনানি শেষে বিচারপতি সৈয়দ রেফাত আহমেদ ও বিচারপতি মো. ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এ আদেশ দেন। হাইকোর্টের এ আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করে মিল্ক ভিটা।

আপনার মতামত লিখুন :