মওদুদের দুর্নীতির মামলায় সাক্ষ্য চলবে



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম,ঢাকা
মওদুদ আহমদ

মওদুদ আহমদ

  • Font increase
  • Font Decrease

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলার কার্যক্রম স্থগিত চেয়ে করা পুর্নবিবেচনা (রিভিউ) আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আপিল বিভাগ। ফলে এই মামলায় বিচারিক আদালতে সাক্ষ্য নেওয়া যাবে বলে জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী।

রোববার (২৫ আগস্ট) প্রধান বিচারপতির সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ নিজের পক্ষে শুনানি করেন।

পরে আইনজীবী খুরশীদ আলম খান জানান, এ মামলা ঢাকার একটি আদালতে সাক্ষ্যগ্রহণ পর্যায়ে রয়েছে। অনেকগুলো সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণও হয়ে গেছে। এর মধ্যে ৩১ মার্চ তার (মওদুদ আহমদ) একটি পিটিশনের অনুলিপি পেয়েছি। যেখানে তিনি বলছেন- হাইকোর্টে তার আয়কর বিষয়ে মামলা আছে। সেগুলো নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এ মামলার কার্যক্রম বন্ধ রাখার কথা বলেছেন।

বিচারিক আদালতে এ আবেদন গত ৪ মার্চ নাকচ হলে তিনি হাইকোর্টে আবেদন করেন। যা গত ৮ এপ্রিল সরাসরি খারিজ করেন হাইকোর্ট। এর বিরুদ্ধে তিনি আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে আবেদন করেন। চেম্বার জজ আদালত কোনো স্থগিতাদেশ না দিয়ে পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন।’

গত ১৪ মে আপিল বিভাগ মওদুদ আহমদের লিভ টু আপিল খারিজ করে দেন। এছাড়া তার আয়কর রিটগুলো নিষ্পত্তি করতে বলা হয়। ১৪ মে’র ওই আদেশ পুর্নবিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে আবেদন করেন মওদুদ আহমদ। এ আবেদন খারিজ হয়েছে রোববার।

জরুরি অবস্থার আমলে ২০০৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর জ্ঞাত আয়বহির্ভূত ৭ কোটি ৩৮ লাখ ৪৮ হাজার ২৮৭ টাকার সম্পদ অর্জন এবং ৪ কোটি ৪০ লাখ ৩৭ হাজার ৩৭৫ টাকার তথ্য গোপনের অভিযোগে মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা করে দুদক।

গত বছরের ২১ জুন মওদুদ আহমদের বিরুদ্ধে মামলাটিতে অভিযোগ গঠন করা হয়। এরমধ্যে ৪৫টি সাক্ষীর সাক্ষ্য নেওয়া হয়েছে।