লটারির টাকায় মায়ের চিকিৎসা



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা: মাসে মাত্র ১ হাজার ২০০ দিরহাম বা বাংলাদেশি মুদ্রায় ২৭ হাজার টাকা আয় করেন দুবাইতে অবস্থানরত ৪০ বছর বয়সী বাংলাদেশি নিরাপত্তা কর্মী। স্বল্প আয়ে সংসারের খরচ মেটাতেই যেখানে হিমশিম খেতে হয় তাকে, সেখানে বজ্রপাতের মতো খবর আসে মায়ের ব্রেন স্ট্রোকের। মায়ের অসুস্থতার খবর পাওয়ার পর থেকে একটি রাতও ভালোভাবে ঘুমাতে পারেননি মোহাম্মদ হোসেন।

গত ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকেই তার অসুস্থ মা হাসপাতালে ভর্তি। স্বল্প বেতনের টাকায় নিজের ও পরিবারের খরচ মিটিয়ে মায়ের চিকিৎসার অর্থ জোগান দেয়া একপ্রকার অসম্ভব বিষয় হয়ে দাঁড়ায় হোসেনের জন্য।

তবে বাস্তব জীবনেও চলচ্চিত্রের গল্পের মতো ঘটনা যায় কারোর সাথে। পর্দার গল্পের মতোই ভাগ্য সুপ্রসন্ন হয় হোসেনের। একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দুবাই শপিং মল থেকে জ্যাকেট কেনেন হোসেন। এসময় একটি র‍্যাফেল ড্র'তে ৪০ হাজার দিরহাম বা ৯ লাখ ১৪ হাজার টাকা জিতে নেন তিনি। অবিশ্বাস্য এই ঘটনায় আনন্দে চোখে পানি চলে আসে তার। সবচে বড় দুশ্চিন্তা ছিল অসুস্থ মায়ের চিকিৎসা নিয়ে। এখন মায়ের চিকিৎসা নিয়ে আর দুশ্চিন্তা রইলো না হোসেনের। র‍্যাফেল ড্রয়ের টাকা থেকেই জোগাড় হয়ে গেছে মায়ের চিকিৎসার খরচ।

তিনি বলেন, আমার মা দেশে এক মাসেরও বেশি সময় ধরে হাসপাতালে ভর্তি আছেন। ভালো বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করানোর জন্যে আমার কাছে যথেষ্ট টাকা ছিল না। আশ্চর্যজনকভাবে আমি দুবাই শপিং মলের র‍্যাফেল ড্র থেকে ৪০ হাজার দিরহাম পুরষ্কার পেয়েছি। আল্লাহর কাছে আমি কৃতজ্ঞ। আমি আমার ভাইকে বলেছি চট্টগ্রামেই একটি ভাল বেসরকারি হাসপাতালে মাকে ভর্তি করার জন্যে। কারণ আমার কাছে মায়ের চেয়ে মূল্যবান আর কিছুই নেই।