Alexa

স্ট্যাচু অব ইউনিটি-র পাশ থেকে সরানো হচ্ছে কুমির

স্ট্যাচু অব ইউনিটি-র পাশ থেকে সরানো হচ্ছে কুমির

ভারতের গুজরাটে সরদার বল্লভভাই প্যাটেলের ভাস্কর্য/ ছবি: সংগৃহীত

দর্শনার্থীদের ‍নৌ ভ্রমণের সুবিধার্থে ভারতের গুজরাটে সরদার বল্লভভাই প্যাটেলের ভাস্কর্য সংলগ্ন জলাশয় থেকে সরানো হচ্ছে ৩০০ কুমির। বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু এই ভাস্কর্যের কাছ থেকে শনিবার (২৬ জানুয়ারি) কুমিরগুলো সরানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

গত অক্টোবরে রাজ্যটির প্রধান শহর আহমেদাবাদে ভাস্কর্যটির উদ্বোধন করা হয়। প্রায় ২০০ কিলোমিটারব্যাপী (১২৫ মাইল) বিস্তৃত এই ভাস্কর্যের উচ্চতা ১৮২ মিটার। ইতোমধ্যে এটি আকর্ষণীয় একটি পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে। পর্যটকদের কাছে এটি ‘স্ট্যাচু অব ইউনিটি’ নামে পরিচিতি পেয়েছে। তবে সেখানে যেতে সরাসরি কোনো রেলপথ নেই, পর্যটকদের যেতে হয় বাসে।

রাজ্যটির বন কর্মকর্তা অনুরাধা সাহু বিবিসিকে জানান, কুমির সরানোর নির্দেশনা পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার দিয়েছে।

এদিকে কুমির সরানোর এই পরিকল্পনার বিরোধিতা করে আসছে দেশটির সংরক্ষণবাদীরা। পরিবেশবাদী সংগঠন কমিউনিটি সার্ভিস সেন্টারের পরিচালক জিতেন্দ্র গাভালি বলেছেন, ‘এই উদ্যোগ দেশের বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনের লঙ্ঘন। সরকার কুমিরগুলোর আবাসস্থলে বিঘ্ন ঘটাচ্ছে এবং সেগুলোকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিচ্ছে।’

এই পরিকল্পনার আরেক কট্টর সমালোচক, ‘স্যাংচুয়ারি এশিয়া’ শীর্ষক বন্যপ্রাণী বিষয়ক ম্যাগাজিনের সম্পাদক বিতু সজল অভিযোগ করেন, ‘কুমিরগুলো ধরে কোথায় পুনর্বাসন করা হবে, সে ব্যাপারে সরকারের সুস্পষ্ট সিদ্ধান্ত নেই।’

উল্লেখ্য, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশটির ঐতিহাসিক নেতা বল্লভভাই প্যাটেলের একজন ভক্ত। ২০১০ সালে তিনি রাজ্যটির মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালে এই ভাস্কর্য নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছিলেন। তার দল ভারতীয় জনতা পার্টি (বিজেপি) বল্লভভাই প্যাটেলের আদর্শ নিয়ে রাজনীতি করার দাবি করে থাকে।

আপনার মতামত লিখুন :