Barta24

রোববার, ২১ জুলাই ২০১৯, ৬ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

সৌদি জোট আর ইয়েমেন যুদ্ধে নেই মরক্কো

সৌদি জোট আর ইয়েমেন যুদ্ধে নেই মরক্কো
মরক্কোর বাদশাহ চতুর্থ মোহাম্মদ, ছবি: সংগৃহীত
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

ইয়েমেন যুদ্ধে সৌদি আরবের নেতৃত্বাধীন যুদ্ধজোট থেকে বেরিয়ে গেছে উত্তর আফ্রিকার দেশ মরক্কো। ইয়েমেনে হুথি বিদ্রোহীদের সঙ্গে যুদ্ধে আর না জড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে দেশটি।

এমনকি, সৌদি আরবে নিযুক্ত মরক্কোর রাষ্ট্রদূতকে স্বদেশে ফেরারও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারি) এসব সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে মরক্কো।

দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী নাসের বৌরিতা বলেন, ইয়েমেনের যুদ্ধক্ষেত্রে চলতে থাকা ঘটনাপ্রবাহ, বিশেষ করে সেখানে দেখা দেওয়া মানবিক বিপর্যয় তাদের এই সিদ্ধান্ত গ্রহণকে প্রভাবিত করেছে। বস্তুত সৌদি নেতৃত্বাধীন বাহিনীর হামলায় ইয়েমেনের আনুমানিক ৮৫ হাজার শিশু খাদ্যাভাবে মৃত্যুবরণ করেছে। ২ কোটি ৯০ লাখ নাগরিকের মধ্যে এক কোটি ৪০ লাখই রয়েছে অনাহারে। খাদ্যের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে ৬৮ শতাংশ। জ্বালানির দাম বৃদ্ধি পেয়েছে প্রায় ২৫ শতাংশ। অথচ ইয়েমেন মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে দরিদ্র দেশ।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে ইয়েমেন যুদ্ধে জড়ায় সৌদি আরব। যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় দেশটির নেতৃত্বাধীন বাহিনী ইয়েমেনে হুথি বিদ্রোহীদের দমনে এ পর্যন্ত প্রায় ১৮ হাজার অভিযান পরিচালনা করেছে। বেসামরিক নাগরিকদের সমস্ত অবস্থানে তারা হামলা চালায়। তবে এখনও দেশটির রাজধানী সানাসহ গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে হুথি বিদ্রোহীরা।

সূত্র: আল জাজিরা

 

আপনার মতামত লিখুন :

এক ফ্যান এক লাইটের বিদ্যুৎ বিল ১২৮ কোটি

এক ফ্যান এক লাইটের বিদ্যুৎ বিল ১২৮ কোটি
বিদ্যুৎ বিল

ভারতের উত্তর প্রদেশের হাপুর শহরের কাছে চামরি নামে একটি গ্রামের এক গৃহস্থের বাড়িতে ১২৮ কোটিরও বেশি রুপির বিদ্যুৎ বিল এসেছে। বাড়িটির বাসিন্দা এক দম্পতি, যাদের ঘরে কেবল লাইট আর ফ্যান চলে।

শামীম নামে ওই বাড়ির কর্তা বিল সংশোধনের জন্য বিদ্যুৎ অফিসে বার বার ধর্না দিয়েও এর কোন সুরাহা করতে পারেননি। বিল পরিশোধ না করায় তার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে।

পুনরায় বিদ্যুৎ সংযোগের দাবি নিয়ে বিদ্যুৎ অফিসে গেলে শামীমকে কর্মকর্তারা বলেছেন, বিল পরিশোধ করলেই কেবল তার বাড়ির বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করে দেওয়া হবে।

বাড়িটির ২ কিলোওয়াটের বিদ্যুৎ সংযোগের বিলের কাগজে ছাপা বিলের মোট পরিমাণ ১২৮ কোটি ৪৫ লাখ ৯৫ হাজার ৪৪৪ রুপি। এই উদ্ভট পরিমাণ সংশোধন করতে গিয়ে বিদ্যুৎ অফিসের টেবিলে টেবিলে ঘুরেছেন বলে জানিয়েছেন শামীম।
https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/21/1563676901455.jpg
ভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই’কে তিনি বলেন, কেউ আমাদের কথা শুনছে না। এই অর্থ আমরা কিভাবে পরিশোধ করব? অভিযোগ নিয়ে গেলে কর্মকর্তারা বলছেন, পুরো বিল পরিশোধ করতে হবে। তারা আমার বাড়ির লাইন ইতোমধ্যেই কেটে দিয়েছেন।

অভিযোগ করে শামীম আরও বলেন, প্রতি মাসে আমার বিদ্যুৎ বিল ৭শ’ থেকে ৮শ’ রুপির মধ্যেই থাকে। কিন্তু এবার আমাকে পুরো হাপুর শহরের বিদ্যুৎ বিল ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে!

ভুক্তভোগী শামীমের স্ত্রী খাইরুন্নিসা বলেন, আমরা কেবল লাইট আর ফ্যান চালাই। আমরা গরিব মানুষ, আমরা কিভাবে এত বিল দেব?

রামশরণ নামে প্রদেশের বিদ্যুৎ বিভাগের এক প্রকৌশলী সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এটা বড় কোন ব্যাপার না, সামান্য যান্ত্রিক ত্রুটি। পরে সংশোধন করে দেওয়া হবে।
সূত্র: এনডিটিভি

দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন

দিল্লির সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন
শীলা দীক্ষিত, ছবি: সংগৃহীত

দিল্লির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা কংগ্রেস নেত্রী শীলা দীক্ষিত মারা গেছেন। মৃত্যুকালে তার ৮১ বছর বয়স হয়েছিল।

শনিবার (২০ জুলাই) দিল্লির ফর্টিস এসকর্ট হার্ট ইনস্টিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। 

দেশটির গণমাধ্যম জানায়, শীলা দীক্ষিত বেশ কিছু দিন ধরে অসুস্থ ছিলেন। শনিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে মৃত্যুর খবর জানায় তার পরিবার।

এবারের অনুষ্ঠিতব্য লোকসভা নির্বাচনেও উত্তর-পূর্ব দিল্লি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন শীলা দীক্ষিত। তবে পরাজিত হন বর্ষীয়ান এই কংগ্রেস নেত্রী।

১৯৯৮, ২০০৩ এবং ২০০৮ সালে পরপর তিন বার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হন শীলা দীক্ষিত। বর্তমানে তিনি দিল্লি কংগ্রেসের সভাপতি ছিলেন।

শীলা দীক্ষিতের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে কংগ্রেস পরিবারে। শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি কোবিন্দ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও। 

এদিকে, শোকপ্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং। 

অন্যদিকে, এক টুইট বার্তায় শোক প্রকাশ করেছেন জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র