Alexa

ভারতে সেনা হামলা, এক সুরে সব রাজনৈতিক দল

ভারতে সেনা হামলা, এক সুরে সব রাজনৈতিক দল

কাশ্মীরের পুলওয়ামায় গাড়িবোমা হামলায় ভারতীয় সিআরপিএফ-এর ৪৪ সদস্য নিহত হন/ ছবি: সংগৃহীত

সবেমাত্র ছুটি কাটিয়ে কর্মস্থলে যোগদানের জন্য ৭০টি বাস-ট্রাক এগিয়ে যাচ্ছিল কাশ্মীরের পুলওয়ামায় সেনা ছাউনির দিকে। একেকটি বাসে ছিল ৩৫ থেকে ৪০ জন সেনাবাহিনীর সিআরপিএফ সদস্য। আচমকা উল্টো দিক থেকে ছুটে আসে একটি মাহিন্দ্রা কোম্পানির গাড়ি। মুহূর্তেই সব ছারখার হয়ে যায়। প্রচণ্ড শব্দ আর তারপরই চারপাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে যায় মৃতদেহগুলো।

সেনা নিরাপত্তার ঘেরাটোপ পেরিয়ে ছুটে আসা ঐ গাড়িটাতেই ছিল জয়েশ-ই-মহম্মদের আত্মঘাতী জঙ্গি আর সঙ্গে ছিল ৩০০ কেজি বিস্ফোরক। স্বাভাবিকভাবেই বিস্ফোরণের ভয়াবহতা এতটাই ছিল যে ১০ কিলোমিটার দূর থেকেও শোনা গিয়েছিল শব্দ।

বিস্ফোরণে শহীদ হন সেনাবাহিনীর ৪৪ জন। আহত শতাধিক। এখনও পর্যন্ত ভারতে সেনাবাহিনীর ওপর সবচেয়ে বড় হামলা। বিস্ফোরণের পর এক ভিডিও বিবৃতে দায় স্বীকার করেছে জয়েশ-ই-মহম্মদের জঙ্গি আদিল আহমেদ। যে বর্তমানে পাকিস্তানে জেলে বন্দী।

পুলওয়ামায় ভয়ঙ্কর এই হামলার ঘটনায় গর্জে উঠেছে গোটা দেশ। প্রত্যুত্তর চায় ভারতবাসী। 

ঘটনার পর আগামীকাল শুক্রবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) কাশ্মীর যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। দুঃখপ্রকাশ জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। রাজনৈতিক বিরোধীতা থাকলেও গোটা দেশ আজ এক সুরে।

ভয়াবহ জঙ্গি হামলার কিছুক্ষণের মধ্যেই টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি টুইটে লেখেন, ‘পুলওয়ামায় সিআরপিএফের ওপর হামলা নিন্দনীয়। আমাদের সাহসী জওয়ানদের এই বলিদান ব্যর্থ হবে না। শহিদ পরিবারের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়াবে গোটা দেশ।’ আহত জওয়ানদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করেছেন তিনি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/15/1550171509789.gif

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘পুলওয়ামায় সিআরপিএফ জওয়ানদের শহীদ হওয়ার খবর অত্যন্ত দুঃখজনক। সাহসী জওয়ানদের কুর্নিশ জানাই। তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা। তাদের পাশে আছি আমরা। যারা আহত হয়েছেন, প্রার্থনা করছি তারা যেন দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠেন।‌’

কাশ্মীরের রাজনৈতিক দল পিডিপির প্রধান মেহবুবা মুফতি তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তাঁর টুইটারে লেখেন, ‘এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’ একই সঙ্গে জঙ্গিদের পাগল বলে তুলনা করেছেন তিনি। মুফতি জানিয়েছেন, সন্ত্রাসের নিন্দা করার কোনো ভাষা নেই। আর কতগুলো প্রাণ গেলে এই পাগলামির শেষ হবে।’

জম্মু–কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্যপাল মালিক বলেন, ‘উপত্যকার বিচ্ছিন্নতাবাদীরা নিজেদের উপস্থিতি জানান দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। জৈশের দায় স্বীকারেই প্রমাণিত, সীমান্তপারের মদত রয়েছে এতে।’

পাশাপাশি এই ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, কংগ্রেসের মুখপাত্র রণদীপ সুরজেওয়ালা সহ একাধিক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। এই দুঃসময়ে বিরোধিতা ভুলে সবাইকে একজোট হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সমবেদনা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক, রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট।

সমবেদনার সুর ও শহীদ জওয়ানদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা আসতে শুরু করেছে দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে বিদেশ থেকেও। এই জঙ্গি হামলার নিন্দা করে ভারতের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে রাশিয়া। টুইট করে গোটা ঘটনায় কড়া বার্তা দেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :