Alexa
independent day 2019

চুক্তি ছাড়াই শেষ হলো ট্রাম্প-কিমের বৈঠক

চুক্তি ছাড়াই শেষ হলো ট্রাম্প-কিমের বৈঠক

ছবি: সংগৃহীত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম

ভিয়েতনামে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উনের ঐতিহাসিক আরেকটি বৈঠক। তবে কোনো চুক্তি, সমঝোতা কিংবা সিদ্ধান্ত হয়নি তাদের আলোচিত এই বৈঠকে।

বৃহস্পতিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে দেশটির রাজধানী হ্যানয়ে এই দুই নেতা বৈঠকে মিলিত হন। বৈঠক শেষে দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হন তারা।

এ সময় কিম জং উন বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত অনেক কাজ করেছি। এবার হ্যানয়ে বসে চমৎকার এই সংলাপ শুর করেছি। আমি আশ্বস্ত করতে চাই যে, আজ ভালো কোনও ফলাফলে আমি সর্বচ্চো চেষ্টা করব।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, আমি বিশ্বাস করি, চুক্তি হয়ে যাওয়ার পরও আমাদের দেখা হবে। গত রাতের নৈশভোজে আমাদের দারুণ কথা হয়েছে। অনেক পরিকল্পনার প্রস্তাব এসেছে। আমি মনে করি, দুই দেশের সম্পর্ক এখন খুবই মজবুত।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/28/1551344624965.jpg

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, উত্তর কোরিয়া ও চেয়ারম্যান কিমের প্রতি সম্মান আছে এবং আমি জানি আমরা সাফল্য পাব। তারাও অর্থনৈতিক পরাশক্তি হিসেবে গড়ে উঠবে। আমি বারবারই একথা বলছি।

বৈঠকে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ কিংবা অন্য কোনো চুক্তি, সমঝোতা কিংবা সিদ্ধান্ত না হলেও এক প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, ক্ষেপণাস্ত্র এবং পারমাণবিক অস্ত্রের পরীক্ষা করবে না বলে সে কিম কথা দিয়েছেন। আমি তাকে বিশ্বাস করি।

ট্রাম্প ও কিমের তৃতীয় বৈঠক নিয়ে আপাতত কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানান তারা। তবে এর মাধ্যমে উভয় দেশই ভবিষ্যতে আরো ফলপ্রসু আলোচনা সম্পৃক্ত হতে পারবে বলে প্রত্যাশা তাদের।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/28/1551344579941.jpg

এক প্রশ্নের জবাবে ট্রাম্প বলেন, আমাদের মধ্যে সম্পর্ক খুব উষ্ণ এবং আমরা একে অপরকে খুব পছন্দ করেছি।

সংবাদ সম্মেলনে, উত্তর কোরিয়াকে উদীয়মান অর্থনৈতিক শক্তি বলে ‍মন্তব্য করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। একই সাথে কোরীয় উপদ্বীপকে পারমাণবিক অস্ত্রমুক্ত করতে নিজের ইচ্ছার কথাও জানান তিনি। ট্রাম্প বলেন, আমরা উত্তর কোরিয়াকে আরো ছাড় দিতে চাই, আমাদের মধ্যকার সম্পর্ক শীতল করার জন্য।

উত্তর কোরিয়ায় আটক এবং নির্যাতিত মার্কিন নাগরিক ওত্তো ওয়ার্মবিয়ারের দেশে ফেরা এবং চীন ও রাশিয়ার সাথে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কসহ বিভিন্ন ইস্যুতেও কথা বলেন দুই নেতা।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Feb/28/1551344256473.jpg

তাদের এই বৈঠক সম্পর্কে এ সময় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন, এই বৈঠকের মাধ্যমে দুই দেশের আলোচনার জন্য আরও দ্বার উন্মুক্ত হলো।

উল্লেখ্য, গত বছরের জুনে সিঙ্গাপুরে প্রথমবারের মত বৈঠকে মিলিত হন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন। ওই বৈঠকে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ বিষয়ে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন তারা।

আন্তর্জাতিক এর আরও খবর