Barta24

সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬

English

দেশজুড়ে প্রচারের পর নিজের কেন্দ্রে ঝাঁপাবেন মোদি

দেশজুড়ে প্রচারের পর নিজের কেন্দ্রে ঝাঁপাবেন মোদি
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদর মোদি/ ছবি: সংগৃহীত
কলকাতা ডেস্ক
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র দামোদর মোদি, বিজেপির সবেধর নীলমণি তিনিই। তিনিই বিজেপির সেনাপতি। তাঁর উত্থান বিজেপির বাড়ন্ত, তাঁর জনপ্রিয়তা কমলে এবারে বিজেপিও শেষ! 

সুতরাং ৫৪৩টি লোকসভা আসনে তাঁর দল ও জোটের প্রতিটি প্রার্থীই চাইছেন তিনি যেন একবার অন্তত তাদের কেন্দ্রে প্রচারে যান। তাই বিজেপির অন্দরে বাছাইপর্ব চলছে তারকা প্রচারকদের তালিকা। কবে কোথায় ভিভিআইপিরা ক্যাম্পেনে যাবেন।

কিন্তু এই ক্যাম্পেইনের তালিকা নামেই। পাঁচ বছর পর আজও দলের মধ্যমনি একজনই। নরেন্দ্র দামোদর মোদি। তাঁকে সামনে রেখেই ভোটের তরী সাজাচ্ছে বিজেপি। তাই যতো বেশি সম্ভব কেন্দ্রে তাঁকেই নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা চলছে। 

এবার মোদির নিজের কেন্দ্র বারাণসীতে সর্বশেষ অর্থাৎ সপ্তম দফায় ভোটগ্রহণ হওয়ায় বিজেপি অনেকটাই স্বস্তিতে। কারণ, প্রধানমন্ত্রীকে শুরুতেই নিজের কেন্দ্রে আটকে থাকতে হবে না। মার্চ, এপ্রিল ও মে মাসের প্রথমার্ধ- প্রায় আড়াই মাস ধরে মোদি দেশের সর্বত্র প্রচারের পর শেষ পর্যায়ে বারাণসীতে নিজের লোকসভা আসনে প্রচারে নামবেন।  

অন্যদিকে উত্তরপ্রদেশের ১৩টি গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্রেই ভোটগ্রহণ হবে একেবারে শেষ দফায়। অর্থাৎ ১৯ মে। গোটা দেশ তো বটেই, বিশেষ করে উত্তরপ্রদেশ এবার বিজেপির কাছে ‘প্রেস্টিজ ফাইট’। কারণ মোদির নিজের কেন্দ্রে জয় ধরে রাখার পাশাপাশি এই ১৩টি আসনের সিংহভাগই জিততে হবে।

সাম্প্রতিক একের পর এক উপনির্বাচনে উত্তরপ্রদেশ থেকে যথেষ্ট উদ্বেগজনক বার্তাই এসেছে বিজেপির জন্য। গোরক্ষপুরে ৩০ বছর পর হেরে গিয়েছে বিজেপি। পাশাপাশি এই উদ্বেগ আরও বাড়িয়েছে প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। কারণ উত্তরপ্রদেশের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে।

সুতরাং, একদিকে মোদিকে যেমন গোটা দেশে দলীয় প্রার্থীদের জেতানোর জন্য কয়েকশো সভায় ছুটতে হবে, তেমনই তাঁকে চিন্তায় রাখবে, ঐ আড়াই মাস তাঁর নিজের কেন্দ্র বারাণসীসহ উত্তরপ্রদেশ। কারণ, এখানে যে প্রিয়াঙ্কা ঝড় তুলবেন তা জানেন মোদি। 

একদিকে জাতীয় স্তরে যেমন মোদিকে লড়তে হবে রাহুলের সঙ্গে, পরোক্ষেভাবে নিজের কেন্দ্রে তাঁর লড়াই হবে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সঙ্গে। যদি বারাণসীতে মোদির জয়ের মার্জিন কমে যায় কিংবা পূর্ব উত্তরপ্রদেশের কেন্দ্রগুলোতে গতবারের তুলনায় ফলাফল খারাপ হয়, তাহলে সেটা হবে প্রিয়াঙ্কার পক্ষে ইতিবাচক। আর তা ঠেকাতেই শেষ দফার জোর কদমে নির্বাচনী প্রচারে নিজ কেন্দ্রে ঝড় তুলতে চান মোদি। 

উত্তরপ্রদেশের ৮০টি আসনের মধ্যে ২০১৪ সালে ৭৩টি আসনেই জয়ী হয়েছিল বিজেপি জোট। কিন্তু সেবার অখিলেশ যাদব ও মায়াবতীর জোট হয়নি। এবার জোটের কারণে বিজেপির পক্ষে ঐ আসন ধরে রাখা আদৌ কতটা সম্ভব, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।

বস্তুত, রাজনৈতিক মহল মনে করছে, এবার বিজেপির আসন সংখ্যা সামগ্রিকভাবে অনেক কমে যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। আর তাই সেই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে এবারও বিজেপির সব থেকে বড় আশা-ভরসা একমাত্র নরেন্দ্র মোদি। বিজেপি মনে করছে একমাত্র মোদিই পারেন পরিস্থিতি ঘোরাতে। তাই প্রতিটা কেন্দ্রেই যাওয়ার আবদার এসেছে মোদিজীর কাছে।

আপনার মতামত লিখুন :

অ্যামাজনের আগুন নেভাতে মাঠে ব্রাজিলের সামরিক বাহিনী

অ্যামাজনের আগুন নেভাতে মাঠে ব্রাজিলের সামরিক বাহিনী
অ্যামাজনের আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ব্রাজিলের সামরিক বাহিনী/ ছবি: সংগৃহীত

পৃথিবীর ফুসফুস খ্যাত অ্যামাজন জঙ্গলে ছড়িয়ে পড়া আগুন নেভাতে সামরিক আকাশযানসহ মাঠে নেমেছে ব্রাজিলের সামরিক বাহিনী। অ্যামজনে আগুন লাগার ঘটনায় সংশ্লিষ্ট এলাকায় সরকারবিরোধী আন্দোলনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক সংকটও দেখা দিয়েছে।

ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জায়ের বলসোনারো অবশ্য বৈশ্বিক উদ্বেগ কমাতে বলেছিলেন যে, অ্যামাজনের যেখানে আগুন লেগেছে, সেখানে আরও আগেই বন ধ্বংস করা হয়েছে। গভীর জঙ্গল এখনো অক্ষত রয়েছে। এ বিষয়ে চলতি সপ্তাহের শেষে ফ্রান্সে অনুষ্ঠিতব্য জি-৭ এর সভায় আলোচনারও কথা রয়েছে।

ব্রাজিলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ফার্নান্দো আজেবাদো জানান, দেশটির প্রায় ৪৪ হাজার সেনা এই অনাকাঙ্ক্ষিত আগুন নেভাতে অ্যামাজন এলাকার ছয়টি রাজ্যে যাচ্ছেন। রাজ্যগুলো হলো- রুরাইমা, রন্দনিয়া, টোকানটিনস, প্যারা, অ্যাকর ও মাতো গ্রসো।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/25/1566749928367.gif

রন্দনিয়ার রাজধানী পোর্তো ভেলোতে প্রথম অভিযানে অংশ নেবেন সাতশরও বেশি সেনা। অভিযানে তারা দুটি সি-১৩০ উড়োজাহাজ ব্যবহার করবেন পাটি ছিটানোর জন্য, যার প্রতিটি ১২ হাজার লিটার পানি ধারন করতে পারে।

অ্যামাজন সংকটের প্রেসিডেন্ট বলসোনারোর ভূমিকা ব্যাপকভাবে সমালোচিত হওয়ার পরই মাঠে নামছে দেশটির সামরিক বাহিনী। শুক্রবার বলসোনারো তাঁর সামরিক বাহিনীকে আগুন নেভানোর কাজে নামার অনুমতি দেয়। এ সময় তিনি দাবি করেন যে, অ্যামাজনকে রক্ষা করতে তিনি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

আন্তর্জাতিক উদ্বেগের মধ্যে শনিবার প্রেসিডেন্ট বলসোনারো গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আগুন স্বাভাবিক হওয়ার পথে।’ এমনকি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানসেজ সহ ল্যাটিন আমেরিকার একাধিক দেশের নেতাদের সাথে কথা বলছেন বলেও জানান তিনি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/25/1566749945974.gif

বরাবরই বলসোনারো অ্যামাজন জঙ্গল রক্ষা করাকে ব্রাজিলের অর্থনৈতিক উন্নয়নের বাধা হিসেবে উল্লেখ করছিলেন এবং যারা মনে করেন অ্যামাজন বন বিশাল আকারের গ্রীনহাউজ গ্যাস হজম করে জলবায়ু পরিবর্তন প্রতিরোধে ভূমিকা পালন করে, তাদের কড়া জবাবও দিয়ে আসছিলেন।

অ্যামাজনের অগ্নিকাণ্ড বর্তমানে একটি বৈশ্বিক ইস্যু হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে ব্রাজিল ও ইউরোপিয়ান দেশগুলোর মধ্যে উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে। ইউরোপিয়ানরা বলছেন, বলসোনারো জীববৈচিত্র্য রক্ষায় তাঁর ওয়াদা ভঙ্গ করেছেন। ইউরোপ ও ল্যাটিন আমেরিকার বিভিন্ন দেশে ব্রাজিল দূতাবাসের সামনে শুক্রবার বিক্ষোভ করে উত্তেজিত জনতা। এমনকি ব্রাজিলেও আন্দোলনে নামেন প্রতিবাদকারীরা।

কাশ্মীরিদের অধিকার খর্ব করা হচ্ছে: প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

কাশ্মীরিদের অধিকার খর্ব করা হচ্ছে: প্রিয়াঙ্কা গান্ধী
প্রিয়াঙ্কা গান্ধী, ছবি: সংগৃহীত

জম্মু কাশ্মীরের শ্রীনগর বিমানবন্দর থেকে শনিবার (২৪ আগস্ট) দিল্লিতে ফেরত পাঠানো হয় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীসহ ১১ বিরোধী দলের নেতাদের। রাহুল গান্ধী ও বিরোধী দলের নেতাদের প্রতি প্রশাসনের এমন ভূমিকায় ক্ষুব্ধ হয়েছেন কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। এরই পরিপ্রেক্ষিতে তিনি রোববার (২৫ আগস্ট) কড়া ভাষায় টুইট করেন।

টুইটে তিনি লিখেছেন, ‘কাশ্মীরিদের অধিকার খর্ব করা হচ্ছে। এর থেকে বেশি রাজনৈতিক ও দেশবিরোধী কিছু হতে পারে না।’

এদিকে, টুইটে একটি ভিডিও দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। সেখানে দেখা যাচ্ছে, বিমানের মধ্যে এক নারী রাহুল গান্ধিকে কেন্দ্রীয় পদক্ষেপের ফলে সৃষ্ট নানা সমস্যার কথা জানাচ্ছেন।

দেশটির সংবাদ মাধ্যমে বলা হয়েছে, কাশ্মীরে বিধি নিষেধ জারি অবস্থায় সেখানকার আইনশৃঙ্খলা ভেঙে পড়েছে বলে অভিযোগ করেছিলেন রাহুল গান্ধী। সেই সময়ই তাকে কাশ্মীরে যাওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানান রাজ্যপাল সত্যাপাল মালিক। তিনি জানান, গান্ধীর জন্য বিমানও পাঠিয়ে দেওয়া হবে। রাজ্যপাল ও রাহুলে টুইট ঘিরে রাজনীতি আবর্তিত হয়।

আরও পড়ুন: কাশ্মীর থেকে ফেরত পাঠালো রাহুল গান্ধীকে

শনিবারের ঘটনার বিষয়ে রাহুল গান্ধী বলছেন, ‘এটা প্রমাণ হয়ে গেল কাশ্মীরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়। দিন কয়েক আগেই রাজ্যপাল আমাকে কাশ্মীরে যাওয়ার জন্য আমন্ত্রণ করে। এজন্য আমি ও দলের অন্য নেতারা এসেছিলাম। অথচ আমাদের প্রবেশ করতে দেওয়া হল না। অবাক করা বিষয়।’

জম্মু-কাশ্মীরের সরকারের পক্ষ থেকে এক টুইটে জানানো হয়, বিরোধী নেতাদের রাজ্যে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। তারা এলে পরিবেশ অন্যরকম হয়ে উঠতে পারে। সীমান্ত সুরক্ষা ও হিংসা রুখতেই নিয়ন্ত্রণের জারি করছে প্রশাসন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র