তুরস্কের প্রধান তিন শহরেই এরদোয়ানের পরাজয়

কাওসার আহমেদ
তুরস্কের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান, ছবি: সংগৃহীত

তুরস্কের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

তুরস্ক, ইজমির থেকে: তুরস্কের বহুল প্রতীক্ষিত স্থানীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে গতকাল রোববার (৩১ মার্চ)। এই নির্বাচনে সারাদেশে দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের প্রত্যাশিত জয় হলেও হাতছাড়া হয়েছে রাজধানী আনকারা সহ তুরস্কের সবচেয়ে বড় শহর ইস্তানবুল ও তৃতীয় বৃহত্তম শহর ইজমির।

সবশেষ পাওয়া নির্বাচনের সামগ্রিক ফলাফলে, রাজনৈতিক দলগুলোর প্রাপ্ত ভোট হলো- ক্ষমতাসীন আক পার্টি (আকেপে)- ৪৪.৩২%, সিএইচপি (জেহেপে)- ৩০.১%, ইয়ি পার্টি- ৭.৪৫%, এমএইচপি (মেহেপে)-৭.৩১% এইচডিপি (হেদেপে)- ৪.২৪%,, সাদাত পার্টি- ২.৭১%, ডিএসপি (দেসেপে)-০.৯৮%, বায়ামসিজ-০.৯৭%, ডিপি (দেপে)- ০.৭৩%, বিবিপি (বেবেপে)-০.৪১%, বিটিপি (বেতেপে)-.০.৩৬%, বাতান পার্টিসি-০.২৬%, টিকেপি (তেকেপে)- ০.১৬। সূত্রঃ হুররিয়াত

তুরস্কের স্থানীয় নির্বাচনে ইস্তাম্বুল, আনকারা, ইজমির এই তিনটি বড় শহরকে সবসময়ই প্রাধান্য দেয়া হয়। কারণ তুরস্কের মোট ভোটের সংখ্যা ৫৭ মিলিয়ন। তার মধ্যে এই তিন শহরের ভোটার সংখ্যা প্রায় ১৭ মিলিয়ন।

ইস্তানবুলে এখন পর্যন্ত (প্রায় ৯৮-৯৯% গণনা থেকে) পাওয়া তথ্য অনুযায়ী-প্রধান বিরোধী দল সিএইচপির (জেহেপে) প্রার্থী ৪১ লক্ষ ৫৯ হাজার ৬৫০ ভোট পেয়েছে এবং আক পার্টির (আকেপে) প্রার্থী ৪১ লক্ষ ৩১ হাজার ৭৬১ টি ভোট পেয়েছেন। সূত্রঃ- তার্কিশ নির্বাচন কমিশন।

আনকারায় বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী প্রধান বিরোধী দল সিএইচপির (জেহেপে) প্রার্থী ৫০.৯% ভোট পেয়েছেন। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন দল আক পার্টি (আকেপে) এর প্রার্থী ৪৭.০৬% পেয়েছেন।

ইজমির তুরস্কের তৃতীয় বৃহত্তম শহর। শহরটির মানুষ সবচেয়ে প্রো-ইউরোপীয়ান এবং সেকুলারদের ঘাঁটি, সেই কারণেই এখানে বরাবরই ধর্মনিরপেক্ষ (সেকুলার) সিএইচপি পার্টি জয়লাভ করে থাকে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এই শহরে ক্ষমতাসীন দল আক পার্টির (আকেপে) প্রার্থী মাত্র ৩৮.৬% পেয়েছেন। অপর দিকে প্রধান বিরোধী দল সিএইচপির (জেহেপে) প্রার্থী ৫৮.০২% ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন।

রোববারের ভোটাভুটি স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও জাতীয় নির্বাচনে এটি অনেক বেশি গুরুত্ব বহন করে। সরকারি জোট এই নির্বাচনকে তুরস্কের অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই বলে ঘোষণা দিয়েছিল। পর্যবেক্ষকদের মতে তুরস্কের সরকারি দল আক পার্টি (আকেপে) যদি শেষ পর্যন্ত ইস্তানবুলেও হারে তাহলে তা সরকারের জন্য এক অশনি সংকেত। কারণ এই তিন বড় শহরের ভোটার সংখ্যা তুরস্কের মোট ভোটারের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ।

আপনার মতামত লিখুন :