সিঙ্গাপুরে প্রকৃতির সান্নিধ্যে বাংলা নববর্ষ বরণ



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
সিঙ্গাপুরে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বাঙালিরা/ছবি: বাংলাদেশ হাই কমিশন, সিঙ্গাপুর

সিঙ্গাপুরে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে বাঙালিরা/ছবি: বাংলাদেশ হাই কমিশন, সিঙ্গাপুর

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রকৃতির সান্নিধ্যে ভিন্ন আবহে বাংলা নববর্ষকে বরণ করলেন সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাঙালিরা। পহেলা বৈশাখ সিঙ্গাপুরের বাংলাদেশ হাই কমিশনের আয়োজনে ল্যাবরাডর নেচার রিজার্ভ পার্কের উন্মুক্ত মঞ্চে বর্ষবরণ অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়।

নববর্ষকে স্বাগত জানাতে অনুষ্ঠানস্থল আলপনা ও নকশা আঁকা বোর্ড দিয়ে সাজানো হয়। সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাংলাদেশি নাগরিক এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা বর্ণিল পোশাকে সজ্জিত হয়ে অনুষ্ঠানে যোগ দেন। দুই শতাধিক অতিথির অংশগ্রহণ এবং উৎসবের আমেজ পার্কে ভ্রমণ করতে আসা বিদেশি দর্শকদের বাংলা সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে আগ্রহী করে তোলে। তারা এ আয়োজন নিয়ে নিজেদের ভালোলাগার কথা জানান।

হাই কমিশনার মো. মোস্তাফিজুর রহমান এবং তার স্ত্রী মিসেস তানজিনা বিনতে আলমগীর অতিথিদের স্বাগত জানান এবং নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। হাই কমিশনার তার সংক্ষিপ্ত শুভেচ্ছা বক্তব্যে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানকে বাঙালির অসাম্প্রদায়িক চেতনার উৎকৃষ্ট উদাহরণ হিসেবে উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ইউনেস্কো বাংলা নববর্ষ উদযাপনের অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’ কে বিশ্ব ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দিয়ে বাংলা সংস্কৃতিকে বিশ্ব দরবারে উঁচু স্থানে প্রতিষ্ঠিত করেছে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/15/1555306441978.gif
সিঙ্গাপুরে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে পিঠাপুলির সমাহার/ছবি: বাংলাদেশ হাই কমিশন, সিঙ্গাপুর

স্থানীয় শিল্পীদের অংশগ্রহণে এবং বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী বাদ্যযন্ত্রের ব্যবহার করে অনুষ্ঠানে লোকগীতি, দেশাত্ববোধক গান ও জাগরণী সঙ্গীত পরিবেশন করা হয়। বাংলাদেশি খাবারে অতিথিদের আপ্যায়ন করা হয়। খাবারের তালিকায় ছিল পান্তাভাত, খিচুড়ি, রুই মাছ, বিভিন্ন পদের মাংস, ভর্তা, ভাজি, রকমারি পিঠা, পায়েস, মিষ্টান্ন, খই, মোয়া, জিলাপী, পান-সুপারিসহ আরও অনেক কিছু।