'বার্মার বিন লাদেন'কে গ্রেফতারের নির্দেশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
মিয়ানমারের আলোচিত বৌদ্ধ ভিক্ষু অশ্বিন উয়িরাথু, ছবি: সংগৃহীত

মিয়ানমারের আলোচিত বৌদ্ধ ভিক্ষু অশ্বিন উয়িরাথু, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দেশদ্রোহিতার এক মামলায় মিয়ানমারের বৌদ্ধ ভিক্ষু অশ্বিন উয়িরাথু’র বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। রোহিঙ্গা মুসলমানদের বিরুদ্ধে বিদ্বেষ ছড়ানোর জন্য আলোচিত কট্টর এই মুসলিম-বিদ্বেষী।

দেশটির রাজধানী ইয়াঙ্গুনের একটি আদালত বুধবার (২৯ মে) তাকে গ্রেফতারের আদেশ দেয়। দোষী সাব্যস্ত হলে অন্তত তিন বছরের কারাদণ্ড হতে পারে তার।

সম্প্রতি মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সুচির সরকারকে 'দুর্নীতিবাজ' বলে আখ্যায়িত করেন অশ্বিন উয়িরাথু। সুচি সেনাবাহিনীর ক্ষমতা খর্ব করতে চাইছেন বলেও মন্তব্য তার।

অশ্বিন উয়িরাথুর বিরুদ্ধে মুসলিম, বিশেষ করে রোহিঙ্গা মুসলিমদের নিয়ে বিদ্বেষপূর্ণ বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগ আছে। বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, বিশেষ করে ফেসবুক ও ইউটিউবে এবং বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেওয়া ভাষণে তিনি সরাসরি মুসলমানদের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক কথা বলতেন। এমনকি মুসলমানদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ত্যাগ করার আহবানও জানিয়েছিলেন তিনি।

বহু আগে থেকেই তার বিরুদ্ধে জাতিগত বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগ আছে। বিশেষ করে মুসলিমদের বিরুদ্ধে তিনি সর্বদাই সোচ্চার ছিলেন। ২০০১ সালে মুসলিম-বিরোধী এবং জাতীয়তাবাদী উগ্রপন্থী সংগঠন ‘৯৬৯ গ্রুপ’ গঠন করেন।

তার এহেন কর্মকাণ্ডের জেরে ২০০৩ সালে তাকে ২৫ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু অন্যান্য রাজবন্দীর সাথে ২০১০ সালে তাকে মুক্তি দেওয়া হয়।

২০১২ সালে রাখাইন রাজ্যে মুসলমান ও বৌদ্ধদের মধ্যে দাঙ্গা শুরু হলে তিনি জ্বালাময়ী বক্তব্য দিয়ে তা উস্কে দেন। তখন থেকেই আলোচনায় আসে আশ্বিন উয়িরাথু।

রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে উসকানিমূলক পোস্ট দেওয়ার কারণে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ২০১৮ সালে তাকে নিষিদ্ধ করে।

সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য হলো- এই বৌদ্ধ ভিক্ষু নিজেকে 'বার্মার বিন লাদেন' হিসেবে স্বীকার করেছিলেন! তাকে নিয়ে ২০১৩ সালের ১ জুলাই টাইম ম্যাগাজিন ‘একজন বৌদ্ধ সন্ত্রাসীর প্রতিমূর্তি’ শিরোনামে প্রচ্ছদ প্রতিবেদন করে।

সূত্র: বিবিসি।

আপনার মতামত লিখুন :