পাকিস্তানের জন্য আইএমএফ’র ৬০০ কোটি ডলারের ঋণ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
পাকিস্তানের ফুটপাতে একটি সবজির দোকান/ ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের ফুটপাতে একটি সবজির দোকান/ ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তানের অর্থনীতি চাঙা করতে ৬০০ কোটি মার্কিন ডলারের (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৪৮ হাজার কোটি টাকা) ঋণ অনুমোদন করেছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)। তিন বছরের জন্য এ ঋণ দেওয়া হচ্ছে পাকিস্তানকে। অনুমোদনের পরপরই ১০০ কোটি ডলার ছাড় করতে পারবে পাকিস্তান।

এক বিবৃতিতে আইএমএফ জানিয়েছে, সরকারের অর্থনৈতিক সংস্কারের জন্য এই ঋণ দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও পাকিস্তানের অর্থনৈতিক দুর্বলতা কমানো ও টেকসই ও সুষম প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করা এই ঋণের উদ্দেশ্য।

আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থার খবরে বলা হয়, ৩৯ মাসের মধ্যে নির্দিষ্ট সময় পর পর আইএমএফ পাকিস্তানের সক্ষমতা পর্যবেক্ষণ করবে এবং বাকি অর্থ ছাড় করার অনুমোদন দেবে।

গত জুন মাসে পাকিস্তান সরকার আইএমএফের এ ঋণ অনুমোদন করে এবং পরিকল্পনা ঘোষণা করে যে সরকারি খরচ কর্তন করা হবে, সামরিক ব্যয় কমানো হবে। বার্ষিক ঘাটতি মেটাতে রাজস্ব আহরণ বাড়ানো হবে।

পাকিস্তানি রুপির অবমূল্যায়ন, মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধি ও দৈনন্দিন খরচ বৃদ্ধির কারণে দেশটিতে অসন্তুষ্টি বাড়ছে। এই অবস্থায় সরকারের কর আদায়ের চ্যালেঞ্জ হুমকির মুখে পড়েছে।

আইএমএফ প্রধান ডেভিড লিপ্টন এক বিবৃতিতে বলেন, ‘দুর্বল ও অসম প্রবৃদ্ধি বড় আকারের রাজস্ব ও অর্থনৈতিক প্রয়োজনের কারণে পাকিস্তান একটি গুরুত্বপূর্ণ সময় পার করছে।’

এই ঋণের উদ্দেশ্য হচ্ছে, পাকিস্তানের দীর্ঘদিনের নীতি ও কাঠামোগত দুর্বলতা কাটানো, ক্ষুদ্র অর্থনীতিতে স্থিতিশীলতা আনা, আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক সমর্থন জোগানো ও শক্তিশালী টেকসই প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করা।

লিপ্টন বলেন, ‘পাকিস্তানে দারিদ্র্যের হার প্রায় ৩০ শতাংশ। দেশটির অতিদরিদ্র অংশের উন্নতির জন্য সম্পদের উৎস বাড়াতে হবে। এ জন্য সরকারি খরচ কমাতে হবে এবং অর্থনীতিতে শৃঙ্খলা আনতে হবে।’

আপনার মতামত লিখুন :