থাইল্যান্ডে বৌদ্ধ ভিক্ষুর ১১৪ বছরের জেল

ঢাকা: আর্থিক প্রতারণা, অবৈধ লেনদেন থেকে সাইবার ক্রাইমের মতো অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় থাইল্যান্ডের সাবেক এক বৌদ্ধ ভিক্ষুকে ১১৪ বছরের জেল দিয়েছে দেশটির এক আদালত।

বৃহস্পতিবার (৯ আগস্ট) ব্যাংককের ক্রিমিনাল কোর্টে উইরাপোনকে এই সাজা দেন। তবে থাই আইন অনুযায়ী ২০ বছরের সাজা কাটিয়ে মুক্ত জীবনে ফিরতে পারবেন তিনি।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকার তাকে প্রায় দেড় বছর আগে থাইল্যান্ড সরকারের হাতে তুলে দিয়েছিল।

৩৯ বছর বয়সী উইরাপোন সুখপন লুয়াং পু নেনখাম নামেও পরিচিত। তিনি আমেরিকায় পালিয়ে গিয়েছিলেন। সেখানে পালিয়ে যাওয়ার পর তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও আর্থিক প্রতারণার অভিযোগ উঠে। আগামী অক্টোবরে তার বিরুদ্ধে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলার রায় হওয়ার কথা রয়েছে।

তদন্তকারী কর্মকর্তারা উইরাপোনের কাছ থেকে নগদ ৭ লাখ ৭০ হাজার ডলার, পোরশে ও মার্সিডিজ ব্র্যান্ডের গাড়ি জব্দ করেছে। এ ছাড়া তার কয়েকটি ব্যাংক অ্যাকউন্টও জব্দ করা হয়েছে।

উইরাপোন নিজেকে বিশেষ ক্ষমতার অধিকারী হিসেবে প্রচার করতেন।

কখনো কখনো বৌদ্ধের সবচেয়ে বড় মূর্তি নির্মাণের আশ্বাস দিয়ে অনেক ধনী ব্যক্তির কাছ থেকে তিনি অনুদান গ্রহণ করেছেন। এসব অর্থ অভিজাত জীবন যাপনের জন্য তিনি ব্যয় করতেন।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে ইউটিউবে একটি ভিডিও প্রকাশ হয় উইরাপোনের। তাতে দেখা যায় ব্যক্তিগত জেট বিমানে করে আমেরিকা ভ্রমণ করছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিল প্রচুর অর্থ, ডিজাইনার ব্যাগসহ আরো অনেককিছু। এরপর অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোরীর সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন থেকে সামাজিক মাধ্যমে আপত্তিজনক ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার পর তাকে মঠ থেকে বহিষ্কার করা হয়। ২০১৭ সালে তাকে থাইল্যান্ডের হাতে হস্তান্তর করে মার্কিন প্রশাসন।

আন্তর্জাতিক এর আরও খবর

//election count down