Alexa

‘মুক্তিযুদ্ধে আলেমদেরও অবদান রয়েছে’

‘মুক্তিযুদ্ধে আলেমদেরও অবদান রয়েছে’

মহান মুক্তিযুদ্ধে আলেমসমাজের অবদান শীর্ষক আলোচনা সভা, ছবি: বার্তা২৪.কম

দেশের শীর্ষ আলেম-উলামা, লেখক-সাংবাদিক ও রাজনৈতিক নেতাদের উপস্থিতিতে ‘মহান মুক্তিযুদ্ধে আলেমসমাজের অবদান’ শীর্ষক আলোচনা সভা এবং ‘নবীজিকে চিঠি লিখে জিতে নাও পুরস্কার’ প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। আওয়ার ইসলাম টোয়েন্টিফোর ডটকম এ আলোচনা সভা ও প্রতিযোগিতার আয়োজন করে।

শনিবার (২৩ মার্চ) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আওয়ার ইসলাম টোয়েন্টিফোর ডটকমের প্রধান সম্পাদক মুফতি মুহাম্মদ আমিমুল ইহসান।

অনুষ্ঠানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপ-পরিচালক ড. মাওলানা মুশতাক আহমদ বলেন, নবীজিকে চিঠি লেখা একটি চমৎকার বিষয়। আমাদের মণীষীরাও নবীজিকে চিঠি লিখেছেন। সেসব চিঠির প্রতিটি লাইনে মিশে আছে তাদের হৃদয়ের ব্যাকুলতা। যখন আমরা সেই চিঠি হাতে নেই ভালোবাসায় আমাদের হৃদয় বিগলিত হয়।

মুক্তিযুদ্ধে আলেম সমোজের অবদানের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আলেমদের অনেক অবদান রয়েছে যা আলোচনা করার জন্য দীর্ঘ সময় দরকার। তিনি দুঃখ করে বলেন, আজ একশ্রেণির বামপন্থি মুক্তিযুদ্ধে আলেম সমাজের অবদানের কথা স্বীকার করতে চায় না। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পার্বত্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি র আ ম উবায়দুল মুক্তাদির চৌধুরী। তিনি বক্তব্যে বলেন, হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) মুক্তির জন্য প্রেরিত হয়েছেন। তিনি সকল মানুষের মুক্তির জন্য এসেছেন। তিনি রাহমাতুল্লিল আলামিন।

তিনি বলেন, আমি শুরু থেকেই আওয়ার ইসলাম পরিবারের সঙ্গে আছি। ইনশাল্লাহ আগামীতেও থাকবো। আওয়ার ইসলাম এর আগেও নবিজীকে চিঠি লেখা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে। এটি একটি ভালো উদ্যোগ। এতে করে আমাদের যুবসমাজের তরুণদের নবীজিকে পড়ার এবং জানার আগ্রহ সৃষ্টি হবে। বস্তুত নবী করিম (সা.)-এর অনুসরণ আমাদের যুবসমাজকে মাদকমুক্ত করবে।

অনুষ্ঠানে প্রসিদ্ধ লেখক মাওলানা মুহাম্মদ যাইনুল আবিদীন তার বক্তব্যে আশ্চর্য প্রকাশ করে বলেন, আলেমদের ব্যতীত মুক্তিযোদ্ধার ইতিহাস হয় কীভাবে! তিনি বলেন, আজ আলেমসমাজ অনেক এগিয়ে আছেন। মুক্তিযুদ্ধে আলেমসমাজের অবদান শীর্ষক আলোচনা সময়ের দাবি। মানুষের জানা উচিৎ মুক্তিযুদ্ধে আলেমসমাজের অবদান কী?

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন আওয়ার ইসলাম টোয়েন্টিফোর ডটকমের সম্পাদক হুমায়ুন আইয়ুব।

আরও বক্তব্য রাখেন শিক্ষাবিদ আলেম মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভি, প্রকৌশলী আলী আবদুল মুনতাকিম, মাকতাবাতুল আখতারের কর্ণধার মাওলানা আহমদ আলী, কওমি কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুস সামাদ, এক্সিম ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট একিউএম ছফিউল্লাহ আরিফ, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের সহ-সভাপতি মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের ঢাকা দক্ষিণের সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, বার্তা২৪.কম এর ইসলাম বিভাগের প্রধান মুফতি এনায়েতুল্লাহ, বাংলাদেশ ইসলামী লেখক ফোরামের সভাপতি জহির উদ্দিন বাবর ও শীলন বাংলার সম্পাদক মাসউদুল কাদির।