Alexa

পবিত্র মক্কা-মদিনায় রমজানের প্রস্তুতি

পবিত্র মক্কা-মদিনায় রমজানের প্রস্তুতি

রমজান উপলক্ষে মসজিদে নববীতে নতুন সবুজ কার্পেট বিছানো হয়েছে, ছবি: সংগৃহীত

পবিত্র রমজান মাস সমাগত। রমজান উপলক্ষে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন বিশ্বের মুসলমানরা। বিশেষ করে মসজিদগুলো প্রস্তুত করা হচ্ছে নামাজের জন্য। প্রয়োজনীয় সংস্কার কাজ থেকে শুরু করে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হচ্ছে। উদ্দেশ্য একটাই নির্বিঘ্নে ইবাদত-বন্দেগি করা। এ দৃশ্য শুধু বাংলাদেশের নয়, পুরো বিশ্বের।

রমজানের প্রস্তুতিতে পিছিয়ে নেই মক্কা-মদিনার মসজিদগুলো। সৌদি আরবে অসংখ্য মসজিদ থাকলেও মানুষের নজরে থাকে মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববী। সেই মসজিদে হারাম ও মসজিদে নববীতে চলছে রমজানের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।

মঙ্গলবার (২৩ এপ্রিল) মসজিদে হারামের নির্মাণকাজসহ অন্যান্য প্রস্তুতির কাজ দেখতে আসেন মক্কার ডেপুটি গভর্নর বদর বিন সুলতান। তিনি ঘুরে ঘুরে মসজিদে হারামে রমজানের প্রস্তুতির কাজ দেখেন ও প্রয়োজনীয় দিক-নির্দেশনা দেন। মসজিদে হারামের পাশাপাশি রমজান উপলক্ষে মসজিদে নববীতে নতুন সবুজ কার্পেট বিছানো হয়েছে। প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে ব্যাপক ইফতার আয়োজন ও তারাবির।

পবিত্র রমজান মাস এলে বিশ্বব্যাপী মুসলিমরা ইবাদত-বন্দেগিতে মশগুল হয়ে উঠেন। ইবাদতের অংশ হিসেবে পবিত্র ওমরা পালন ও পবিত্র দুই মসজিদে ইতেকাফে বসেন সামর্থ্যবানরা। এই দুই মসজিদ মুসলমানদের কাছে ইবাদতের প্রিয় স্থান। তাই সারাবিশ্ব থেকে দলে দলে মুসলমানরা ছুটে আসেন মক্কা-মদিনায়।

মসজিদে হারামের নির্মাণ কাজ পরিদশন করছেন মক্কার গভর্নর, ছবি: সংগৃহীত
মসজিদে হারামের নির্মাণ কাজ পরিদশন করছেন মক্কার গভর্নর, ছবি: সংগৃহীত

কেউ আসেন অল্প সময়ের জন্য, আবার কেউ আসেন পুরো রমজান মাসের জন্য। সারাবিশ্ব থেকে আসা লাখ লাখ ধর্মপ্রাণ মানুষের সেবা-সুবিধা দিতে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হয় মক্কা-মদিনায়। এবারও সেই লক্ষ্যে ব্যাপক প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

ওমরা পালন ও ইতেকাফে আসা মুসল্লিদের জন্য মানসম্মত সেবা ও সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। অবকাঠামোগত প্রস্তুতির পাশাপাশি ওমরা পালনে আসা মুসল্লিদের বিভিন্ন বিষয়ে ফতোয়া দেওয়ার জন্য আলাদা মুফতি নিয়োগ, মসজিদের ভেতরে ও বাইরে ইফতার বিতরণ, নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম যথাযথভাবে সচল রাখার জন্য অতিরিক্ত লোকবল নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তারা আগত মেহমানদের সেবায় কাজ করবেন।

রমজান উপলক্ষে বিভিন্ন ভাষায় কোরআন-হাদিসের মহিমান্বিত বাণী সম্বলিত হ্যান্ডবিল, লিফলেট, বই ও ছোট ছোট কার্ড ছাপিয়ে বিতরণ করা হয়। রমজানে বায়তুল্লাহ শরিফ ও মসজিদে নববীতে অপূর্ব আধ্যাত্মিক আবহের সৃষ্টি হয়।

আপনার মতামত লিখুন :