Alexa

হালাল পর্যটনে ইন্দোনেশিয়া শীর্ষে

হালাল পর্যটনে ইন্দোনেশিয়া শীর্ষে

ইন্দোনেশিয়ার পর্যটনমন্ত্রী আরিফ ইয়াহিয়া জানাচ্ছেন, হালাল পর্যটনে ইন্দোনেশিয়া শীর্ষে, ছবি: সংগৃহীত

ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য নির্বিঘ্নে ছুটি কাটানোর ব্যবস্থা করতে বিশ্বব্যাপী হালাল পর্যটন জনপ্রিয় হচ্ছে। ২০১৮ সালে হালাল পর্যটনে ইন্দোনেশিয়া শীর্ষে রয়েছে। সম্প্রতি ইসলামি ওয়ার্ল্ড ট্যুরিজম ইনডেক্স এমন তথ্য প্রকাশ করেছে।

ইন্দোনেশিয়ার পর্যটনমন্ত্রী আরিফ ইয়াহিয়া বলেন, হালাল পর্যটন উন্নয়নে পাঁচ বছর প্রচেষ্টা এবং একাগ্রতার পর অবশেষে বিশ্বের হালাল পর্যটন জন্য সেরা গন্তব্য হিসাবে ইন্দোনেশিয়া শীর্ষ স্থান দখল করতে সক্ষম হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ইসলামিক পর্যটন বিশ্বব্যাপী সূচক ভিত্তিতে মালয়েশিয়াসহ মোট ৭৮ পয়েন্ট নিয়ে ইন্দোনেশিয়া হালাল ওয়ার্ল্ড ট্যুরিজমে প্রথম স্থানে উত্তীর্ণ হয়েছে। আর এ জন্য আমাদের গর্বিত হওয়া উচিত।

ইন্দোনেশিয়ায় অবস্থিত ইরানের কালচারাল অ্যাটাশে জানিয়েছেন, ইন্দোনেশিয়ার পর ৭৫ পয়েন্ট পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে অবস্থান করছে তুরস্ক। এছাড়া পর্যায়ক্রমে সৌদি আরব ৭২ পয়েন্ট, সংযুক্ত আরব আমিরাত ৭১ পয়েন্ট, কাতার ৬৮ পয়েন্ট, মরক্কো ৬৭ পয়েন্ট, বাহরাইন ও ওমান ৬৬ পয়েন্ট, ব্রুনেই দারুসসালাম ও অস্ট্রেলিয়া ৬৫ পয়েন্ট পেয়েছে।

হালাল পর্যটনের আওতায় মুসলমানদের জন্য হোটেল ও রিসোর্টে বিশেষ কিছু সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা হয়। এর মধ্যে আছে, নারী ও পুরুষদের জন্য আলাদা সুইমিংপুল ও সৈকতের ব্যবস্থা, প্রতিটি হোটেল রুমে জায়নামাজ আর কোরআনে কারিম রাখা হয়। নামাজের সময় জানিয়ে দেওয়া হয়। থাকে হালাল খাবারের ব্যবস্থা। এসব হোটেলে কোনো অ্যালকোহল পাওয়া যাবে না। নারী গ্রাহকদের জন্য বরাদ্দ থাকে নারী কর্মী। ফলে যারা ধর্মীয় নিয়ম পুরোপুরি মেনে জীবন কাটান তাদের জন্য এসব ব্যবস্থা অনেকটা স্বস্তিদায়ক।

আপনার মতামত লিখুন :