loader
Foto

পবিত্র শবেকদর পাওয়ার উপায়

আজ দিবাগত রাতটি ২৭ রমজানের বেজোড় রাত। এ রাতে লাইলাতুল কদর হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা রয়েছে। সুতরাং এ রাতে ইবাদত-বন্দেগি অধিক হারে আদায় করা প্রত্যেক মুসলমানের একান্ত কর্তব্য।

কোরআনে কারিমে আল্লাহতায়ালা ইরশাদ করেছেন, ‘নিশ্চয়ই আমি এটি লাইলাতুল কদরে নাজিল করেছি। তোমাকে কি জানাব লাইলাতুল কদর কি? লাইলাতুল কদর হাজার মাস অপেক্ষা উত্তম।

সে রাতে ফেরেশতারা ও রূহ (জিবরাইল) তাদের রবের অনুমতিক্রমে সকল সিদ্ধান্ত নিয়ে অবতরণ করে। শান্তিময় সেই রাত ফজরের সূচনা পর্যন্ত।’ -সূরা কদর: ১-৫

সাহাবি হজরত আবু হুরায়রা রাযিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, হজরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, লাইলাতুল কদরে যে ব্যক্তি ঈমান ও সওয়াবের নিয়তে কিয়াম (নামাজ) করবে, তার পূর্বের সকল পাপ মোচন করা হবে। -সহিহ বোখারি: ১৮০২

হজরত আবু হুরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.) লাইলাতুল কদর সম্পর্কে বলেছেন, লাইলাতুল কদর সাতাশ অথবা উনত্রিশ রাত, সে রাতে পৃথিবীতে ফেরেশতাদের সংখ্যা কঙ্করের চাইতে অধিক হয়। -মুসনাদে আহমাদ: ২/৫১৯

মির ইবনে হুবাইশ (রা.) বলেন, আমি উবাই ইবনে কাবকে জিজ্ঞাসা করে বলি, তোমার ভাই ইবনে মাসউদ (রা.) বলেন, যে ব্যক্তি সারা বছর রাতে কিয়াম করবে, সে লাইলাতুল কদর লাভ করবে। তিনি বললেন, আল্লাহ তার ওপর রহম করুন। তার উদ্দেশ্য হলো- মানুষ যেন অলস না হয়। অন্যথায় তিনি ভালো করে জানেন যে, লাইলাতুল কদর রমজানের বিশেষ করে শেষ দশকে বরং সাতাশে। অতঃপর তিনি শপথ করে বলেন, এতে সন্দেহ নেই লাইলাতুল কদর সাতাশের রাতে। আমি বললাম, আপনি তা কিভাবে বলেন, হে আবদুর রহমান? তিনি বললেন, নিদর্শন দেখে অথবা রাসূলের বাতলানো আলামত দেখে। সেদিন সূর্য উদিত হবে যে, তার কিরণ থাকবে না। -সহিহ মুসলিম: ৭৬২

ইমাম আহমাদ বিন হাম্বলের এক বর্ণনায় আছে, সেদিন সকালে সূর্য উদিত হবে, যেন তা গামলা। যার কোনো আলো নেই। -মুসনাদে আহমাদ: ৫/১৩০

তিরমিজির এক বর্ণনায় আছে, উবাই বলেছেন, আল্লাহর শপথ! আল্লাহর শপথ! আবদুল্লাহ ইবনে মাসউদ নিশ্চিত জানে যে, লাইলাতুল কদর রমজানে এবং তা সাতাশে। কিন্তু তিনি তোমাদেরকে সংবাদ দিতে চাননি, যেন তোমরা অলস হয়ে বসে না থাকো। -জামে তিরমিজি: ৭৯৩

হজরত আমিরে মুয়াবিয়া (রা.) থেকে বর্ণিত, হজরত রাসূলূল্লাহ (সা.) বলেছেন, লাইলাতুল কদর হচ্ছে সাতাশের রাত। -আবু দাউদ: ১৩৮৬

হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) বলেন, এক ব্যক্তি হজরত রাসূলুল্লাহ (সা.)-এর নিকট এসে জিজ্ঞেস করলো, হে আল্লাহর নবী! আমি খুব বৃদ্ধ ও অসুস্থ। আমার দ্বারা দাঁড়িয়ে থাকা খুবই কঠিন। সুতরাং আজকে আমাকে এমন এক রাতের কথা বলুন যেন সে রাতে আল্লাহ আমাকে লাইলাতুল কদর দান করেন। তিনি বললেন, তোমার উচিত সাতাশকে আঁকড়ে ধরা। -আহমাদ: ১/২৪০

আলেমদের বিশুদ্ধ মতামত হচ্ছে, লাইলাতুল কদর পরিবর্তনশীল। তবে রমজানের সাতাশের রাত অধিক সম্ভাবনাময়।

Author: ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম

ইসলাম

এ সম্পর্কিত আরও খবর

barta24.com is a digital news outlet

© 2018, Copyrights Barta24.com

Editor in Chief: Alamgir Hossain

Email: [email protected]

[email protected], [email protected]

+880 1707 082 000

8/1 New Eskaton Road, Gausnagar, Dhaka-1000, Bangladesh