Alexa

ভারতের লোকসভা নির্বাচন

রাত শেষ হলেই ভোটের গণনা শুরু

রাত শেষ হলেই ভোটের গণনা শুরু

ভোট গণনাকে কেন্দ্র করে ভারত জুড়ে নিরাপত্তা/ছবি: বার্তা২৪.কম

রাত পোহালেই ভারতের সপ্তদশ লোকসভার ভোটের গণনা শুরু হবে। এবারের ভোট গণনার জন্য কড়া ব্যবস্থা নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। পর্যবেক্ষকের সংখ্যাও বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। লোকসভার গণনায় রাজ্যের জন্য ১৪৭ জন পর্যবেক্ষক থাকবেন।

স্ট্রং রুমসহ গণনা কেন্দ্রের জন্য ৮২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে। আর ভোট পরবর্তী সহিংসতা মোকাবিলায় পশ্চিমবঙ্গে আরও ২০০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকছে। ফলে রাজ্যে এই মুহূর্তে মোট ২৮২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে।

ভোট গণনার কাজ যাতে নির্বিঘ্নে শেষ হয়, তার জন্য প্রত্যেক জেলা শাসককে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাব।

রাজ্যের ৪২টি লোকসভা কেন্দ্রের ৫৮টি গণনাকেন্দ্রে ২৩মে স্থানীয় সময় সকাল ৮টা থেকে গণনার কাজ শুরু হবে। এরজন্য মোট ৩৭৯টি হল নেওয়া হয়েছে। টেবিল খোলা হবে ৪ হজার ৬৬৮টি। প্রতিটি কাউন্টিং হলেই ভিডিও রেকডিং করা হবে।

সব থেকে বেশি রাউন্ড হবে কলকাতা দক্ষিণে। সেখানে ২৫ রাউন্ড গণনা হবে। এছাড়াও ঝাড়গ্রামে ২৫ রাউন্ড গণনা হবে। সব থেকে কম রাউন্ড হবে রায়গঞ্জ ও বালুরঘাটে। ওই দুটি কেন্দ্রে ১০ রাউন্ড করে গণনা হবে। বাকি জায়গায় ১৭ থেকে ২০ রাউন্ড গণনা হবে। ২৫ হাজার গণনাকর্মী এই কাজে যুক্ত থাকবেন।

গণনাকেন্দ্রগুলো জুড়ে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা থাকছে। গণনাকেন্দ্র ঘিরে তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা করা হয়েছে। স্ট্রং রুম, কাউন্টিং হলে থাকবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। কাউন্টিং হলের বাইরে থাকবে রাজ্য পুলিশ। কলকাতার গণনা কেন্দ্রে চার হাজার পুলিশ থাকবে।

১০০ মিটার পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি থাকবে। মোবাইল নিয়ে কেউ কাউন্টিং হলে ঢুকতে পারবে না বলে কমিশনের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ব্যারাকপুর লোকসভায় ভাটপাড়া অঞ্চলসহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা থেকে ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনা ঘটায় রাজ্যে ২০০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, দক্ষিণ দিনাজপুর, আসানসোল-দুর্গাপুর, পূর্ব মেদিনীপুর, সুন্দরবন জেলাগুলোয় রাজ্য পুলিশসহ পাঁচ কোম্পানি করে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, মালদহ, বীরভূম, ঝাড়গ্রামের জন্য আট কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। ১০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে মুর্শিদাবাদ, নদীয়া ও কলকাতায়। পশ্চিম মেদিনীপুরের জন্য নয় কোম্পানি বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

সাত কোম্পানি রাজ্য পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে পূর্ব বর্ধমান, পুরুলিয়া, হুগলি গ্রামীণ, হাওড়া গ্রামীণে। বারাসত, বসিরহাট, বারুইপুর, ডায়মন্ডহারবার জেলার জন্য বাড়তি পুলিশ রাখা হয়েছ। এছাড়া অন্যান্য জেলায় পুলিশসহ কালিম্পং জেলায় দুই কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

ভারতে ৫৪৩টি আসনে সরকার গঠন করতে দরকার ২৭৩টি আসন। দুপুরের পর থেকে গণনার ফল ধারণা করা যাবে। অর্থাৎ পশ্চিমবঙ্গসহ ভারতে কোন দল ক্ষমতায় আসছে। সম্পূর্ণ ফল প্রকাশিত হতে মধ্যরাত পার হবে।

 

আপনার মতামত লিখুন :