জমে উঠেছে দাদাগিরি সিজন আট

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, কলকাতা
জি বাংলার দাদাগিরি অনুষ্ঠানে সৌরভ গাঙ্গুলি ও তার টিম

জি বাংলার দাদাগিরি অনুষ্ঠানে সৌরভ গাঙ্গুলি ও তার টিম

  • Font increase
  • Font Decrease

২২ গজের রণাঙ্গন থেকে শুরু করে ছোটপর্দায় দাদাগিরির মত তুখোড় সঞ্চালনা একমাত্র করতে পারেন  দাদা। যিনি সাত থেকে সাতানব্বই আপামর বাঙালির দাদা। সেই সৌরভ গাঙ্গুলির সঞ্চালনায় টানা ১০ বছর ধরে পরপর সাতটি সিজন সুপার হিট। এবার চলতি বছরের ৩ আগষ্ট থেকে জি বাংলার পর্দায় প্রতিবারের মতোই শনি আর রোববার সময় রাত দশটায় হচ্ছে 'দাদাগিরি' সিজন আট।

সৌরভের কথায়, এবারের 'দাদাগিরি' বদলে দেবে আগামী দিনগুলো। তাই এবারের সিজনের ট্যাগলাইন 'দিন বদলের পালা'। মানুষ কীভাবে তার নিজের কাজ দিয়ে বদলে দিতে পারে নিজের এবং সবার জীবন, সেটাই দেখাবে এবারের 'দাদাগিরি'। যদিও ক্যামেরার পেছনে, পর্দার নেপথ্যে থাকেন আরেক দাদা। সফল রিয়েলিটি শো পরিচালক শুভঙ্কর চট্টোপাধ্যায়।

মাত্র দুটি এপিসোড হয়েছে। তাতেই জমে উঠেছে শো। দাদার কথায়, টানা ছয়মাস ধরে চলবে সিজন আট। এবারে দুটি নতুন বিভাগ থাকছে খেলায়। 'ক্যাপ্টেন স্কোয়াড' আর 'দুসরা'। দাদার কথায়, ক্রিকেটের মাঠে দুসরা খুব শক্ত হলেও দাদাগিরি মঞ্চে 'দুসরা' সহজ, 'গুগলি'র থেকে। অংশগ্রহণকারীদের কথা ভেবেই এই পরিবর্তন। তবে দাদার পছন্দ 'গুগলি'। একই সঙ্গে দাদার দাবি, 'শো-এর মধ্যে মজার উপকরণ প্রচুর।

এক মজার অভিজ্ঞতা শেয়ার করে দাদা বলেন, যারা এই শোতে একবার আসেন তারা এতটাই জনপ্রিয় হয়ে যান যে, গ্রামে বা পাড়ায় ফিরে রীতিমতো দাদাগিরি দেখান। এক শিক্ষক গতবারের সিজনে খেলতে এসেছিলেন। কলেজে পড়াতে গিয়ে তাজমহলের অবস্থান ভুল বলেছিলেন। তাই নিয়ে তাঁকে ভীষণ খ্যাপাত কলেজের ছাত্ররা। তিনি দাদাগিরিতে শো জিতে, শোতে দাড়িয়ে কলেজের ছাত্রদের উদ্দেশ্যে ঠাট্টার ছলে হুমকি দিয়ে বলেছিলেন, ‘এবার আসিস সামনে আর একটাও কথা বলবি না। কারণ, আমি কিন্তু দাদাগিরিতে সব প্রশ্নের ঠিক উত্তর দিয়ে জিতে ফিরছি।’

এই দাদাগিরি অনুষ্ঠানের সঞ্চালক হওয়ার পর শো যেমনি সুপার হিট তেমনি শো সঞ্চালনা করাটা বেশ উপভোগ করেন দাদা। সাংবাদিকদের সামনে এমটাই বললেন ভারতের সাবেক অধিনায়ক তথা কলকাতার মহারাজা সৌরভ গাঙ্গুলি।

আপনার মতামত লিখুন :