Alexa

বিসিএস-এর ফরম পূরণে প্রতারণায় ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বিসিএস-এর ফরম পূরণে প্রতারণায় ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা

ফরম পূরণে প্রতারণা শিকার আবেদনকারীদের হাতে তাদের প্রাপ্য টাকা তুলে দিচ্ছেন রাবি প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান (বামে) /ছবি: বার্তা২৪

৪০তম বিসিএস পরীক্ষার ফরম পূরণে প্রতারণার ঘটনায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) পরিবহন মার্কেটের স্পন্দন কম্পিউটার দোকানের মালিক মোস্তাক আহমেদ মামুনসহ (৩০) তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শনিবার (১৭ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য বিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী আ. মমিন বাদী হয়ে নগরীর মতিহার থানায় এ মামলা দায়ের করেন।

মামলার অন্য দুই আসামি হলেন মোস্তাকের সহযোগী রফিকুল ইসলাম আকাশ (১৯) ও আরিফ হোসেন (২৪)। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন মার্কেটের ভাই ভাই কম্পিউটার দোকানের মালিক।

মামলার এজাহারে মমিন উল্লেখ করেন, ‘আমি গত ৩১ অক্টোবর মোস্তাকের দোকান থেকে বিসিএস পরীক্ষার ফরম পূরণ করি। পরে গত বৃহস্পতিবার আমার ইউজার আইডি আর পাসওয়ার্ড দিয়ে পিএসসি’র ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে দেখতে পাই, আমি সুস্থ্য স্বাভাবিক হওয়ার পরও আমাকে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হিসেবে দেখানো হয়েছে। ঐদিনই আমি তার দোকানে যেয়ে জানতে পারি, সে আরও দুই শতাধিক শিক্ষার্থীর ফরম পূরণে প্রতারণা করে প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে ৬০০ করে টাকা আত্মসাৎ করেছেন।’

মতিহার থানার দায়িত্বরত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাদাত হোসেন খান বার্তা২৪কে বলেন, ‘মামলার আসামিদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।’

এদিকে মোস্তাকের কাছ থেকে আত্মসাৎকৃত টাকা উদ্ধার করে ভুক্তভোগীদের ফিরিয়ে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান।

অধ্যাপক লুৎফর রহমান বার্তা২৪কে বলেন, ‘মোস্তাকের কাছ থেকে এক লাখ ৪৫ হাজার টাকা উদ্ধার করেছি। এখন পর্যন্ত ২১৫ জনকে টাকা ফিরিয়ে দিয়েছি।’

বিসিএস ফরম পূরণের জন্য পিএসসি থেকে সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য আবেদন ফি ৭০০ টাকা এবং প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের জন্য ১০০ টাকা। মোস্তাক প্রায় ৩০০ সাধারণ শিক্ষার্থীর অজান্তে তাদেরকে প্রতিবন্ধী উল্লেখ করে ফরম পূরণ করে। পরে গত বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ঐ তিনজনকে আটক করে পুলিশে দেয়।

আপনার মতামত লিখুন :