Alexa

বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে দাওয়াত পাননি জাবির সিনেট সদস্যরা

বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে দাওয়াত পাননি জাবির সিনেট সদস্যরা

ছবি: সংগৃহীত

জাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) প্রতিষ্ঠা দিবসে নিয়ম ভেঙ্গে নির্বাচিত সিনেট সদস্যদের দাওয়াত না দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের বিরুদ্ধে। এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাচিত সিনেট সদস্যরা।

এছাড়াও উপার্যের বিরুদ্ধে অভিযোগ রয়েছে, নির্বাচিত সিনেট সদস্যদের সাথে সৌজন্যমূলক আচরণ না করা ও সিনেট সদস্যদের মতামতকে অগ্রাহ্য করার।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত সিনেট সদস্যের জন্য রেজিস্টার্ড গ্রাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম সমর্থিত প্যানেল আওয়ামী পন্থী অপর একটি অংশের কাছে পরাজিত হন। এ ভরাডুবির পর উপাচার্য সিনেট সদস্যদের নিয়ে বিশেষ তলবি সভাও ডাকেননি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেওয়াজ অনুযায়ী সিনেট সদস্যদের বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা দিবসে দাওয়াত পাওয়ার কথা। কিন্তু দলীয় কোন্দলগত কারণ ও বেশিরভাগ সিনেট সদস্য বর্তমান উপাচার্যের পক্ষের না হওয়ায় এবারের বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে তারা দাওয়াত পাননি বলে অভিযোগ করেছেন কয়েকজন নির্বাচিত সিনেট সদস্য।

এ বিষয়ে সিনেট সদস্য ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক শরীফ এনামুল কবীর বার্তা২৪কে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের মত একটা বড় অনুষ্ঠানে একজন নির্বাচিত সিনেট সদস্য হিসেবে এখনো দাওয়াত পাইনি।’

সিনেট সদস্য শেখ মনোয়ার হোসেন বার্তা২৪কে বলেন, 'বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য সাবেক ছাত্রদের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচিত হয়েছি। আমরা কোনো পক্ষের তল্পিবাহক নই। কিন্তু বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আমাদেরকে একটি পক্ষের মধ্যে ফেলার চেষ্টা করছে এবং বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্ট কোনো কাজে অংশ নিতে দিচ্ছেন না।’

আরেক সিনেট সদস্য ব্যারিস্টার শিহাব উদ্দিন বলেন, ‘গতবারও চিঠির মাধ্যমে দাওয়াত পেয়েছিলাম। এবার কেন পেলাম না জানিনা। তবে এটা যদি বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো ভুল হয়ে থাকে সেটা আলাদা কথা, আর যদি উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে করে থাকে তাহলে সেটা দুঃখজনক।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) রহিমা কানিজ দাওয়াত দেওয়ার রেওয়াজের কথা অস্বীকার করে বার্তা২৪কে বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে কখনো দাওয়াত দেওয়া হয় না। তবে গত বছর সম্মানসূচক নির্বাচিত সদস্যদের দাওয়াত দেওয়া হয়েছিলো। কিন্তু এটা কোনো নিয়মিত ঘটনা নয়।’

ক্যাম্পাস এর আরও খবর