Barta24

সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯, ৭ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাবির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

বর্ণাঢ্য আয়োজনে জাবির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত
ছবি: বার্তা২৪
জাবি করেসপন্ডেন্ট
বার্তা ২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উপলক্ষ্যে দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি)। এ উপলক্ষ্য বর্ণিল সাজে সেজেছে পুরো ক্যাম্পাস।

শনিবার (১২ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ চত্ত্বরে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে দিবসটির উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম। পরে উপাচার্য বেলুন উড়িয়ে দিবসের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করেন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/12/1547286282589.jpg

উদ্বোধনী ভাষণে বিশ্ববিদ্যালয় দিবসের শুভেচ্ছা জানিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বলেন, ‘প্রতিষ্ঠার ৪৮ বছরে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা দেশ-বিদেশে যে সম্মান অর্জন করেছেন তাতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের গৌরব বৃদ্ধি পেয়েছে। আগামীতে ৫০বছরে পা রাখবে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়। আমাদের এখন ভাবতে হবে ৫০বছর পূর্তিতে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়কে কিরকম দেখতে চাই? ইতোমধ্যে জাবির অধিকতর উন্নয়নের জন্য প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভৌত ও অবকাঠামোগত উন্নয়ন হবে। আমরা আশা করছি ৫০বছরে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠানে রুপ দিতে পারব।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/12/1547285384052.jpg

উদ্বোধন শেষে বিজনেস স্ট্যাডিজ অনুষদের সামনে থেকে একটি শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে মুক্তমঞ্চে এসে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন), কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক শেখ মো. মঞ্জুরুল হক, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভিন্ন হলের প্রাধ্যক্ষ, বিভাগীয় সভাপতি ও শিক্ষকমন্ডলী, প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা, শিক্ষক সমিতি, সিন্ডিকেট ও সিনেট সদস্য, অফিসার সমিতি, কর্মকর্তা-কর্মচারী সমিতি, জাবি স্কুল ও কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

শোভাযাত্রার পরে বেলা ১২টায় সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ ও পরামর্শদান কেন্দ্রের আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে ক্ষুদে ও তরুণ শিল্পিরা নাচ ও গান পরিবেশন করেন।

এছাড়া বেলা আড়াইটায় পুতুল নাট্য, বিকেল পাঁচটায় ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের উদ্যোগে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করা হবে। সন্ধ্যা সাতটায় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে লোকসঙ্গীত সম্রাজ্ঞী মমতাজ বেগম লোকসঙ্গীত পরিবেশন করবেন।

আপনার মতামত লিখুন :

ঢাবিতে বন্ধ সব ধরণের কার্যক্রম

ঢাবিতে বন্ধ সব ধরণের কার্যক্রম
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন ও গুরুত্বপূর্ণ ভবনে তালা দিয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা, ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম

অধিভুক্ত সাত কলেজ বাতিলের দাবিতে গতকাল রোববার (২১ জুলাই) তালা ঝুলানোর পর আবারও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন ও গুরুত্বপূর্ণ ভবনে তালা দিয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এতে প্রায় বন্ধ রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরণের কার্যক্রম।

সোমবার (২২ জুলাই) ভোর ছয়টার দিকে শিক্ষার্থীরা তালা লাগিয়ে দেয় সব ধরণের গুরুত্বপূর্ণ ভবনে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবন, এফবিএস, রেজিস্টার বিল্ডিংয়ের গেইট, আইইয়ার ভবনের গেইট, গণিত ভবন সব জায়গায় শিক্ষার্থীরা তালা দিয়ে  কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে।

আন্দোলনকারীদের কয়েকটি গ্রুপ ভাগ হয়ে এই কাজ করছে। তাদের এক দফা এক দাবি অধিভুক্ত বাতিল না করলে আমাদের আন্দোলন চলমান থাকবে। প্রশাসন যেমন আশ্বাস দিলেও আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব।

তবে আন্দোলনকারীদের অভিযোগ, হলের আবাসিক শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি খুবই কম। তাদেরকে ছাত্রলীগ বিভিন্নভাবে বাধা প্রদান করেছে।

সোমবারও ঢাবিতে ঝুলতে পারে তালা!

সোমবারও ঢাবিতে ঝুলতে পারে তালা!
রোববার আন্দোলনকারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ভবনের ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাত কলেজ বাতিলের দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মতো সোমবারও (২২ জুলাই) প্রশাসনিক ও গুরুত্বপূর্ণ ভবনে তালা ঝুলতে পারে। বন্ধ থাকতে পারে প্রশাসনিক ও একাডেমিক কার্যক্রম।

রোববার (২১ জুলাই) রাতে আন্দোলনকারী একাধিক শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য জানা গেছে।

রোববার আন্দোলনকারীদের অবরোধে বন্ধ থাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কার্যক্রম। বিকেলে শিক্ষার্থীদের লাগানো তালাগুলো ভেঙে ফেলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ সামাদ শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবিতে তাদের সহানুভূতি রয়েছে দাবি করে তাদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার অনুরোধ করেন।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা জানান, সোমবার সকাল ৬টার দিকে তাদের সবার ডাকসু ভবনের সামনে একত্রিত হওয়ার কথা রয়েছে। সেখান থেকে তালা লাগানোর কর্মসূচি পালন করা হবে।

কলাভবন, এফবিএস, আইইআর, রেজিস্ট্রার বিল্ডিং ও ভিসির কার্যালয়ে এ কর্মসূচি পালন করা হবে বলে জানান আন্দোলনকারীরা।

এদিকে ডাকসু নেতাদের সঙ্গে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের বৈঠক হওয়ার কথা থাকলেও সে সম্পর্কে গণমাধ্যমকে কিছু জানানো হয়নি। তবে বৈঠকে যাই হোক আন্দোলনকারীরা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র