Alexa

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর শিক্ষার্থীদের ১৭দফা দাবি

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর শিক্ষার্থীদের ১৭দফা দাবি

উপাচার্যের নিকট দাবিসমূহ পেশ করাকালে, ছবি: বার্তা২৪

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের ময়মনসিংহ জেলায় অবস্থিত। কাজী নজরুল ইসলামের স্মৃতি বিজড়িত ত্রিশাল উপজেলার নামাপাড়ার বটতলায় অবস্থিত দেশের ২১তম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়।

এই বটতলায় কবি তাঁর শৈশবের অনেকগুলো দিন কাটিয়েছেন। বৃহৎ ময়মনসিংহের বিদ্বৎসমাজ দীর্ঘদিন যাবৎ একটি সংস্কৃতি কেন্দ্রিক বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের দাবি জানিয়ে আসছিল। এরই প্রেক্ষিতে ২০০৪ সালে প্রকল্প হিসেবে সংস্কৃতি কেন্দ্রিক বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে এর যাত্রা শুরু হয়। কিন্তু ২০০৬ সালের জাতীয় সংসদে জারিকৃত ১৮ নং আইনের অধীনে এটি একটি সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে এবং ২০০৭ সালের ১ জুন এর শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়।

শুরু থেকেই বিভিন্ন সংকট নিয়ে পথচলা শুরু করে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়টি। তবে সব সমস্যাকে সম্ভাবনায় পরিণত করে বিশ্ববিদ্যালয়টিকে উচ্চশিক্ষার রোল মডেলে পরিণত হোক- এ স্বপ্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের।

বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদ্যমান সংকট মোকাবিলা করে বিশ্ববিদ্যালয়কে এগিয়ে নিয়ে যেতে উপাচার্য বরাবর ১৭ দফা দাবিতে স্মারকলিপি পেশ করেছে বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের, বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ ব্যাচের শিক্ষার্থী মাহফুজুর রাজ্জাক অনিক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর শিক্ষার্থীরা সেশনজট নিরসন, আবাসিক ও পরিবহন সমস্যার সমাধান, এবং মুক্ত জ্ঞান চর্চার বিকাশসহ ১৭ টি দাবি পেশ করে স্মারকলিপি প্রদান করেন।

১৭ দফা দাবি সমূহ হলো,

১। অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সেশনজট একটি ব্যাধি। আপনার কাছে বিনীত নিবেদন আপনার যথোপযুক্ত ব্যবস্থার মাধ্যমে আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ে সেশনজট নিরসন করে যথা সময়ে অনার্স-মাস্টার্স শেষ করার মাধ্যমে আমাদের এ ব্যাধি হতে মুক্ত করার আবেদন জানাচ্ছি।

২। আবাসিক ব্যবস্থা দুর্বল থাকায় আমাদের অনেকের ময়মনসিংহ হতে ক্যাম্পাসে যাতায়াত করতে হয়। আজ অবধি বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসের জন্য আমাদের নানাবিধ সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে। নতুন আরও এক হাজার ৪০ জন শিক্ষার্থী ভর্তি হওয়ায় এ সমস্যা আরও প্রবল হয়েছে। তাই অতি দ্রুত বাস বৃদ্ধির মাধ্যমে আমাদের এ সমস্যা নিরসনের জোর দাবি জানাই।

৩।বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে পর্যাপ্ত বইয়ের সুবিধা না থাকায় জ্ঞানচর্চায় নানাবিধ সমস্যায় পড়তে হয়। তাই দ্রুত লাইব্রেরিতে বইয়ের সংখ্যা বৃদ্ধির দাবি জানাচ্ছি।

৪। মুক্ত জ্ঞান চর্চা ও গ্রুপভিত্তিক শিক্ষণীয় আলোচনায় এবং ক্লাস শেষে ক্যাম্পাসে অবস্থানরত বিশ্রামের জন্য উন্মুক্ত শিক্ষার্থী ছাউনি ব্যবস্থার দাবি জানাই।

৫। স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ভাস্কর্য নির্মাণের জোর দাবি জানাই।

৬।জননেত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থিত ইন্টারনেটের গতি বৃদ্ধি করা এবং ওয়াইফাই ব্যবস্থা শক্তিশালী করার দাবি জানাই।

৭। বিশ্ববিদ্যালয়ের রাত্রি বেলায় আলোর স্বল্পতার দেখা যায়, যার দরুন নানাবিধ দুর্ঘটনায় আশঙ্কা থাকে। তাই অতি দ্রুত আলোর স্বল্পতা দূরীকরণের ব্যবস্থার দাবি জানাই।

৮। বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়তন বৃদ্ধি করা, অডিটোরিয়াম নির্মাণ এবং বড় আকারে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণের দাবি জানাই।

৯। ক্যাম্পাসে অবস্থানরত অভিভাবক ও শিক্ষার্থীদের জন্য নিরাপদ পানির তেমন কোন সুব্যবস্থা নাই। আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে টিউবওয়েল স্থাপনের মাধ্যমে আমাদের এই সমস্যা সমাধানে সহায়ক হয়। এবং সেই সাথে প্রতিটি বিভাগে নিরাপদ পানির ব্যবস্থার জন্য ফিল্টারের ব্যবস্থার দাবি জানাই।

১০। 'স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল' সুস্থ দেহ সুন্দর মন গঠনে অতিদ্রুত শেখ রাসেল কেন্দ্রীয় মাঠকে সমান করার মাধ্যমে খেলাধুলার উপযোগী করার দাবি জানাই।

১১। প্রতিটি বিভাগে শুকনা ও তরল/পচনশীল ময়লা আবর্জনা ফেলার জন্য ঝুড়ির ব্যবস্থার দাবি জানাই।

১২। বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫ তলা বিশিষ্ট কেন্দ্রীয় মসজিদ নির্মাণ এবং সনাতন ধর্মাবলম্বীদের জন্য মন্দির স্থাপনের দাবি জানাই।

১৩। শিক্ষার্থীদের মানসম্মত চিকিৎসাসেবা সুনিশ্চিত করার লক্ষ্যে পর্যাপ্ত ঔষধ সরবরাহের দাবি জানাই।

১৪। ছাত্রী হল সংলগ্ন ২ নং গেইটের রাস্তা চলাফেরার প্রায় অনুপযোগী। অতি দ্রুত রাস্তার সংস্কারের দাবি জানাই।

১৫। বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য বর্ধনে দোলনচাঁপা এবং অগ্নিবীণা হলের মাঝামাঝি পুকুরের চারপাশে বাঁধ নির্মাণের দাবি জানাই।

১৬। বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্য বর্ধনে সহায়ক মুক্ত জ্ঞান চর্চায় ছাত্র শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) নির্মাণের দাবি জানাই।

১৭। বিশ্ববিদ্যালয়ের চারপাশে নির্মাণাধীন বাউন্ডারি ৬/৮ ফুটে উন্নীত করনের দাবি জানাই।

মাহফুজুর রাজ্জাক অনিক পেশকৃত ১৭দফা সম্পর্কে বলেন, '১৭দফা হচ্ছে সাধারণ শিক্ষার্থীর উন্নত শিক্ষা ব্যবস্থার নানাবিধ সুযোগ সুবিধার স্মারক যা আমরা গত ৪/৫বছর আগে থেকে একটু একটু করে বঞ্চিত হয়েছি। যা সাধারণ শিক্ষার্থীর চাওয়া পাওয়া। মাননীয় উপাচার্য মহোদয়ের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নত ও সময়োপযোগী সুযোগ সুবিধার মাধ্যমে সমসাময়িক বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়কে আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হোক।'

শিক্ষার্থীদের এ দাবির প্রেক্ষিতে উপাচার্য প্রফেসর ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, 'ছাত্রদের দাবি বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নের প্লাটফর্মের দাবি। সকল দাবি যৌক্তিক এবং সময়োপযোগী, এসব আমারও চাওয়া পাওয়া।'

ক্যাম্পাস এর আরও খবর