Alexa

জাবিতে দোকান কর্মচারীকে ছাত্রলীগ কর্মীর মারধর

জাবিতে দোকান কর্মচারীকে ছাত্রলীগ কর্মীর মারধর

অভিযুক্ত তৌফিক আহমেদ / ছবি: সংগৃহীত

জাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) বটতলার নুরজাহান হোটেলের এক কর্মচারীকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে শাখা ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরুদ্ধে।

শনিবার (২৩ মার্চ) দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত ছাত্রলীগ কর্মী তৌফিক আহমেদ বিশ্ববিদ্যালয়ের পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের ৪৩তম ব্যাচ ও বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর হলের আবাসিক শিক্ষার্থী এবং বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানার অনুসারী।

পাশ্ববর্তী একাধিক দোকানদার অভিযোগ করে জানান, শুক্রবার রাতে নুরজাহান হোটেল থেকে বান্ধবীর জন্য খাবার নেন তৌফিক। সেই খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন তার বান্ধবী। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নুরজাহান হোটেলের মালিক মো. ফরমান খানের সঙ্গে দোকানের সামনে কথা বলেন তিনি। এ সময় একই দোকানের কর্মচারী রমজান আলী কাস্টমার ডাকতে সেদিকে গেলে তাকে চড়-থাপ্পড় মারেন। তৌফিককে রাগান্বিত হয়ে উচ্চাবাচ্য করতে দেখা যায়।

মারধরের শিকার রমজান আলী কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘কার কাছে বিচার দিব? কে এর বিচার করবে? এই ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের কোনো বিচার হয় না।’

অভিযুক্ত তৌফিক আহমেদ বলেন, ‘শুক্রবার রাতে ওই দোকান থেকে আমার বান্ধবীর জন্য খাবার নিয়ে যাই। খাবার খাওয়ার পর তার পেটে সমস্যা হয়। এজন্য দুপুরে আমি মালিকের সঙ্গে কথা বলতে দোকানেরা সামনে যাই। এ সময় রমজান এগিয়ে আসলে তাকে ধাক্কা দিয়ে পাঠিয়ে দেই। আমি চাইনি কর্মচারীর সামনে দোকানের মালিকের সম্মান নষ্ট হোক।’

শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. জুয়েল রানা বলেন, ‘বটতলার খাবারের মান নিয়ে অনেক প্রশ্ন আছে। শিক্ষার্থীদের এ বিষয়ে সোচ্চার হওয়া উচিত। তবে কর্মচারীদের গায়ে হাত তোলাটা কাম্য নয়। এ রকম কোনো ঘটনা ঘটে থাকলে সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘এ রকম কোনো ঘটনা এখনো শুনিনি। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

ক্যাম্পাস এর আরও খবর