Alexa

জবির অনলাইন পেমেন্ট প্রক্রিয়ায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি

জবির অনলাইন পেমেন্ট প্রক্রিয়ায় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি

ছবি: সংগৃহীত

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) অনলাইন পেমেন্ট প্রক্রিয়ায় ভোগান্তি পোহাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা। দক্ষ আইটি কর্মকর্তার অভাব এবং নেই পর্যাপ্ত পরিমাণে পেমেন্টের ব্যবস্থা। এছাড়া রয়েছে নেটওয়ার্ক জনিত নানান জটিলতা। এ কারণে অনলাইন পেমেন্ট সিস্টেমটি শিক্ষার্থীদের কাজে না আসলেও বাড়িয়েছে ভোগান্তি।

জানা গেছে, ব্যাংকে টাকা জমা দিতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের বিশাল লাইন ধরে দাঁড়িয়ে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হতো। শিক্ষার্থীদের এ সমস্যার কথা চিন্তা করে ২০১৮ সালে অনলাইনের মাধ্যমে ‘শিউর ক্যাশে’ টাকা পেমেন্টের প্রক্রিয়াটি চালু করে বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষ। তবে এখানে বিশ্ববিদ্যালয়ে নিয়মিত সব শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইনের এ পেমেন্ট প্রক্রিয়া চালু না করে ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষ থেকে এ অনলাইন পেমেন্ট প্রক্রিয়া চালু করে কতৃপক্ষ।

কিন্তু প্রশাসন এ সেক্টরকে যথাযথ উন্নায়ন না করে চালু করায় বছর না পেরুতেই নানা জটিলতা ও সমস্য তৈরি হয়। এছাড়া রয়েছে পর্যাপ্ত দক্ষ আইটি কর্মকর্তার অভাব এবং সর্বত্র শিউর ক্যাশ ব্যবস্থা নেই। ক্যাম্পাসের আশেপাশে কয়েক জায়গায় শিউর ক্যাশের ব্যবস্থা থাকলেও সেখানে লাইন ধরে টাকা জমা দিতে হয় শিক্ষার্থীদের। মাঝে মাঝে নেটওর্য়াকের সমস্যার কারণে অনেক শিক্ষার্থী ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও টাকা জমা দিতে পারছে না। আবার অনেক সময় পেমেন্ট করার আগে আইডি আনলক করা সম্ভব হয় না। ফলে নির্দিষ্ট সময় পার হয়ে গেলেও টাকা পেমেন্ট করতে পারে না অনেক শিক্ষার্থী। নির্ধারিত সময়ের পর টাকা জমা দিতে গেলে প্রতিদিন বাবদ ১০ টাকা করে এবং মাস পার হলে ১০০০ টাকা করে জরিমানার বিধান রয়েছে। ফলে অনলাইন জটিলতায় যে শিক্ষার্থীরা টাকা জমা দিতে পারে না তাদের পরবর্তীতে জরিমানা দিয়ে গুনতে হয় ।

সংশ্লিষ্টরা দাবি করেন, ভর্তি প্রক্রিয়ার দায়িত্বে থাকা কম্পিউটার প্রোগ্রামাররা খুব বেশি দক্ষ নন। এছাড়া রয়েছে পর্যাপ্ত অবকাঠামোর অভাব। তাই এ প্রক্রিয়াটি ঘিরে ভোগান্তি তৈরি হয়েছে।

কয়েকজন শিক্ষার্থী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, প্রতিবারই অনলাইন জটিলতার কারণে আমাদের জরিমানা দিয়ে টাকা পেমেন্ট করতে হয় । তবে এর চেয়ে ব্যংকে লম্বা লাইন ধরে টাকা জমা দেওয়া ভালো।

নেটওয়ার্কিং অ্যান্ড আইটি দফতরের পরিচালক ড. উজ্জ্বল কুমার আচার্য্য বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘একটা নতুন প্রক্রিয়াকে ভালোভাবে প্রতিষ্ঠার জন্য সময়ের প্রয়োজন। তবে আমাদের কিছু বিষয়ে সংকট রয়েছে। আমাদের এ সেক্টরে আরও দক্ষ জনবলের প্রয়োজন রয়েছে। এছাড়া কিছু অবকাঠামোগত সমস্যা রয়েছে সেগুলো পূরণ হলে আমরা এ সমস্যা থেকে কাটিয়ে উঠতে পারব।’

আপনার মতামত লিখুন :