সরকার কৃষকদের পরিবর্তে চোরদের রক্ষায় ব্যস্ত: ভিপি নুর

ঢাবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ অধিকার পরিষদের মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর/ ছবি: বার্তা২৪.কম

সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ অধিকার পরিষদের মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর/ ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বর্তমান সরকার কৃষকদের রক্ষার পরিবর্তে বড় বড় চোরদের রক্ষায় ব্যস্ত রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর।

তিনি বলেছেন, ‘খুলনায় পাটকল শ্রমিকরা বকেয়া মজুরির দাবিতে আন্দোলন করছেন। সেখানে সরকার বাধা দিয়েছে। কোনো শ্রমিক সংগঠন বা সরকার তাদের পাশে দাঁড়ায়নি।’

বুধবার (১৫ মে) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ব্যানারে ধানসহ সকল কৃষিপণ্যের ন্যায্য মূল্য নির্ধারণ, কৃষিখাতে পর্যাপ্ত ভর্তুকি প্রদান ও মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য কমিয়ে নিয়ে আসার দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

রাজনৈতিক দলগুলো সাধারণ মানুষের পালস বোঝে না উল্লেখ করে ভিপি নুর বলেন, ‘যাদের উৎপাদিত পণ্য খেয়ে বেঁচে আছি, তাদেরকে আমরা সঠিক মূল্য দিতে পারছি না। মন্ত্রীরা বক্তব্য দিচ্ছেন ধান বেশি হওয়ায় দাম কমে যাচ্ছে। অথচ চালের দাম ঠিকই বেশি।’

‘সিন্ডিকেটের কারণে দাম কমে যাচ্ছে। চালকল মালিকরা পরিকল্পিতভাবে মূল্য কমিয়ে দিয়েছেন। সরকারের এক্ষেত্রে কোনো নজরদারি নেই।’

কৃষকদের রক্ষায় ছাত্র সমাজ সোচ্চার হবে বলেও তিনি জানান। কৃষকসহ সকল শ্রমিক, মেহনতি মানুষের পাশে থাকার ঘোষণা দেন নুর। তিনি বলেন, ‘ঈদের আগেই পাটকল ও গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি পরিশোধ করতে হবে। কৃষকদের ধানের ন্যায্য মূল্য দিতে হবে।'

মানববন্ধনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন সরকারের কাছে পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো- খরচ অনুযায়ী ধানের ন্যায্য মূল্য দেওয়া, অসাধু ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করা, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সরাসরি ক্ষতিপূরণ দেওয়া, কৃষিতে ভর্তুকি দিয়ে কমমূল্যে বীজ, সার, কীটনাশক ও সেচের ব্যবস্থা করা এবং হয়রানি-ঝামেলা মুক্তভাবে কৃষিঋণ দেওয়া।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাকসুর সমাজ সেবা সম্পাদক আখতার হোসেন, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন, ফারুক হাসান প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :