Barta24

বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯, ৯ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

সরকার কৃষকদের পরিবর্তে চোরদের রক্ষায় ব্যস্ত: ভিপি নুর

সরকার কৃষকদের পরিবর্তে চোরদের রক্ষায় ব্যস্ত: ভিপি নুর
সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ অধিকার পরিষদের মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন ডাকসুর ভিপি নুরুল হক নুর/ ছবি: বার্তা২৪.কম
ঢাবি করেসপন্ডেন্ট
বার্তা২৪.কম


  • Font increase
  • Font Decrease

বর্তমান সরকার কৃষকদের রক্ষার পরিবর্তে বড় বড় চোরদের রক্ষায় ব্যস্ত রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহ-সভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুর।

তিনি বলেছেন, ‘খুলনায় পাটকল শ্রমিকরা বকেয়া মজুরির দাবিতে আন্দোলন করছেন। সেখানে সরকার বাধা দিয়েছে। কোনো শ্রমিক সংগঠন বা সরকার তাদের পাশে দাঁড়ায়নি।’

বুধবার (১৫ মে) দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। ‘বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের ব্যানারে ধানসহ সকল কৃষিপণ্যের ন্যায্য মূল্য নির্ধারণ, কৃষিখাতে পর্যাপ্ত ভর্তুকি প্রদান ও মধ্যস্বত্বভোগীদের দৌরাত্ম্য কমিয়ে নিয়ে আসার দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

রাজনৈতিক দলগুলো সাধারণ মানুষের পালস বোঝে না উল্লেখ করে ভিপি নুর বলেন, ‘যাদের উৎপাদিত পণ্য খেয়ে বেঁচে আছি, তাদেরকে আমরা সঠিক মূল্য দিতে পারছি না। মন্ত্রীরা বক্তব্য দিচ্ছেন ধান বেশি হওয়ায় দাম কমে যাচ্ছে। অথচ চালের দাম ঠিকই বেশি।’

‘সিন্ডিকেটের কারণে দাম কমে যাচ্ছে। চালকল মালিকরা পরিকল্পিতভাবে মূল্য কমিয়ে দিয়েছেন। সরকারের এক্ষেত্রে কোনো নজরদারি নেই।’

কৃষকদের রক্ষায় ছাত্র সমাজ সোচ্চার হবে বলেও তিনি জানান। কৃষকসহ সকল শ্রমিক, মেহনতি মানুষের পাশে থাকার ঘোষণা দেন নুর। তিনি বলেন, ‘ঈদের আগেই পাটকল ও গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরি পরিশোধ করতে হবে। কৃষকদের ধানের ন্যায্য মূল্য দিতে হবে।'

মানববন্ধনে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন সরকারের কাছে পাঁচ দফা দাবি তুলে ধরেন। দাবিগুলো হলো- খরচ অনুযায়ী ধানের ন্যায্য মূল্য দেওয়া, অসাধু ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করা, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের সরাসরি ক্ষতিপূরণ দেওয়া, কৃষিতে ভর্তুকি দিয়ে কমমূল্যে বীজ, সার, কীটনাশক ও সেচের ব্যবস্থা করা এবং হয়রানি-ঝামেলা মুক্তভাবে কৃষিঋণ দেওয়া।

মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন ডাকসুর সমাজ সেবা সম্পাদক আখতার হোসেন, সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক মুহাম্মদ রাশেদ খাঁন, ফারুক হাসান প্রমুখ।

আপনার মতামত লিখুন :

ষোলশহর-ফতেয়াবাদ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ

ষোলশহর-ফতেয়াবাদ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ
দুর্ঘটনা কবলিত মাইক্রোবাসটি। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া শাটল ট্রেনের সঙ্গে মাইক্রোবাসের ধাক্কা লেগেছে। এতে হতাহতের কোনো খবর পাওয়া না গেলেও ষোলশহর-ফতেয়াবাদ রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে।

বুধবার (২৪ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় ফতেয়াবাদ স্টেশনের একটু আগে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ষোলশহর রেলওয়ে স্টেশনের সহকারী মাস্টার তন্ময় চৌধুরী জানান, মাইক্রোবাসটি রেললাইনে পড়ে থাকায় ট্রেন চলাচলে বিলম্ব ঘটছে। রেলওয়ে পুলিশ ও কর্মচারীরা উদ্ধার কাজে নিয়োজিত রয়েছে। রেল চলাচল স্বাভাবিক হতে আরও দেড় থেকে দুই ঘণ্টা সময় লাগতে পারে।

এদিকে দুপুর আড়াইটায় নগরের বটতলী স্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া শাটল ট্রেনে চড়ে রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজনের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। সেখানে তিনি উপাচার্য ও সাংবাদিক সমিতির সঙ্গে মতবিনিময় সভায় মিলিত হবেন। এতে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মাঝেও চলছে আলোচনা। শাটল ট্রেনে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তি ও ষোলশহর স্টেশন থেকে ডাবল রেললাইন চালুর বিষয়ে আলোচনা হবে বলে জানা গেছে।

এর আগে দায়িত্ব পালন করা সাবেক রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের শাটল ট্রেনে চড়ে চবি ক্যাম্পাসে যাওয়ার কথা থাকলেও যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে সম্ভব হয়নি।

অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে আন্দোলনকারীদের পাহারা দিচ্ছে ছাত্রলীগ

অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে আন্দোলনকারীদের পাহারা দিচ্ছে ছাত্রলীগ
আন্দোলনকারীদের পাহারা দিচ্ছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। ছবি: বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) অপ্রীতিকর ঘটনা রোধ করতে এবং প্রশাসনিক কার্যক্রম যাতে কেউ নষ্ট না করতে পারে সেজন্য আন্দোলনকারীদের পাহারা দিচ্ছে ছাত্রলীগ।

বুধবার (২৪ জুলাই) ভোর থেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ফটকের সামনে সতর্ক অবস্থানে দেখা যায় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের।

জানা যায়, অধিভুক্তির স্থায়ী সমাধানে কাজ করছে ছাত্রলীগ। আগামী আগস্টের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে এর একটি যৌক্তিক সমাধান হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ডাকসু জিএস গোলাম রাব্বানী। সে পর্যন্ত আন্দোলনকারীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

ঢাবি ছাত্রলীগের হল শাখার কয়েকজন নেতাকর্মী বলেন, ‘শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সদা প্রস্তুত এবং এটাকে দায়িত্ব মনে করে। সেই বোধ থেকে আমরা আন্দোলনকারীদের পাহারা দিচ্ছি।’

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/24/1563939834268.jpg

সরেজমিনে বিশ্ববিদ্যালয় ঘুরে দেখা যায়, ঢাবির বিভিন্ন হলের সামনে ভোর ৬টা থেকে পাহারা দিচ্ছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

এদিকে সকাল সাড়ে ১০টায় আন্দোলনকারীদের পক্ষ থেকে কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সংবাদ সম্মেলন ডাকা হয়েছে। পরে সেখান থেকে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ মিছিল করার কথা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত কয়েকদিন ধরে সাত কলেজের অধিভুক্তি বাতিলের আন্দোলনে সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে পড়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ক্লাস, পরীক্ষাসহ প্রশাসনিক কার্যক্রম।

আরও পড়ুন:আন্দোলনকারীরা তালা দিলে ভাঙতে প্রস্তুত ছাত্রলীগ!

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র